| |

ময়মনসিংহ প্রেসক্লাবে সাংবাদিক সম্মেলনে অধ্যাপক ইউসুফ খান পাঠান চ্যালেঞ্জ দিয়ে বলছি কোথাও কোন দূর্নীতি হয়নি

আপডেটঃ 5:56 pm | September 12, 2020

Ad


স্টাফ রির্পোটার ॥ ময়মনসিংহ জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ইউসুফ খান পাঠান তার বিরুদ্ধে জেলা পরিষদের ১৭ জন সদস্য গত দুদিন আগে যে অভিযোগ করেছেন তা মিথ্যা বলে অভিহিত করেছেন। ১২ সেপ্টেম্বর শনিবার বেলা ১২টায় ময়মনসিংহ প্রেসক্লাবে অভিযোগের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলনে অধ্যাপক ইউসুফ খান পাঠান বলেন, জেলা পরিষদের প্রায় ৬শ প্রকল্প আছে। আমি চ্যালেঞ্জ দিয়ে বলছি, কোথাও কোন দূর্নীতি হয়নি। কেউ তা প্রমান করতে পারবে না। তিনি আরো বলেন, সারা দেশের মধ্যে জেলা পরিষদ নির্বাচনে আমি সবচেয়ে বেশী ভোটে নির্বাচিত হয়েছি। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আমাকে মনোনয়ন দিয়েছেন। এরপর থেকেই আমার বিরুদ্ধে একটি চক্র নানা ষড়যন্ত্র করছে। জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ইউসুফ খান পাঠান বলেন, পাটগুদাম মন্দির ভাঙ্গা নিয়ে একটি মহল নোংরা রাজনীতি করছে। ঐ মন্দিরে আমি ২লাখ টাকা বরাদ্দ দিয়েছি। একটি প্রকল্পে বারবার অর্থ বরাদ্দ নিয়ে বিরোধীদের প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, জেলা পরিষদের ডাকবাংলা ৪২শতাংশ জায়গার উপর নির্মিত। দীর্ঘদিনের ডাকবাংলা নির্মানে ৪৫কোটি টাকা দরকার। আমার আগে জেলা পরিষদের প্রশাসক এড. জহিরুল হক খোকা ৩০কোটি টাকা রেখেছেন। আমার আমলে ১২ কোটি টাকা বরাদ্ধ রাখা হয়েছে। এখানে সচ্ছতার কোন অভাব নেই। মুজিব বর্ষের জন্য জেলা পরিষদ সদস্যদের একটি প্রকল্প তৈরীর জন্য বলি। উনারা ৭কোটি টাকার প্রকল্প গ্রহন করে। কেক কাটা অনুষ্ঠানের জন্য ২লাখ টাকা করে প্রতিজন দাবী করে। তাদের প্রতি সদস্যকে ১লাখ টাকা করে বরাদ্দ দেয়া হয়। ১৫ই আগষ্ট উপলক্ষে জেলা পরিষদ অনুষ্ঠান করেছে। স্বজন প্রীতির অভিযোগকে মিথ্যা বলে অভিহিত করনে তিনি। তিনি বলেন, এখানে লটারির মাধ্যমে টেন্ডারের কাজ বন্টন হয়। জেলা পরিষদের কাজ নিয়ে গোপনের কোন কিছু নেই। তারাকান্দায় একটি দুতলা মার্কেট নির্মান করে ২৫ লক্ষ টাকা সাশ্রয় করে জেলা পরিষদের ফান্ডে জমা করেছি। তিনি বলেন, আজ আমি খুব সন্তুষ্ট। সংবাদ সম্মেলেন উপলক্ষে আমি জেলা পরিষদের সাড়ে তিন বছরের উন্নয়ন তুলে ধরতে পেরেছি। আমার জীবনে এটা শ্রেষ্ঠ সময়। ময়মনসিংহ জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ইউসুফ খান পাঠান তার বিরুদ্ধে অভিযোগের প্রতিবাদে পাল্টা সংবাদ সম্মেলনে বলেন, তার বিরুদ্ধে জেলা পরিষদের ২০ জনের মধ্যে ১৭ জন সদস্য গত ৯ সেপ্টেম্বর অনিয়ম, দূর্ণীতি, স্বেচ্ছাচারিতা, অশালীন আচরন, আত্বীয়করণ এবং প্রকল্প গ্রহনে একক সিন্ধান্ত চাপিয়ে দেওয়ার অভিযোগ আনেন। তার বিরুদ্ধে আনিত প্রতিটি অভিযোগ মিথ্যা বানোয়াট বলে অভিহিত করেন। ময়মনসিংহ জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অধ্যাপক ইউসুফ খান পাঠান সাংবাদিক সম্মেলনে ময়মনসিংহের কর্মরত ইলেক্ট্রনিক ও প্রিন্ট মিডিয়ার সাংবাদিকগনকে যথাসময়ে উপস্থিত থাকায় বিশেষ ভাবে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন ও সকলকে ধন্যবাদ জানান।

ব্রেকিং নিউজঃ