| |

পোস্টার কথা বলে

আপডেটঃ 9:18 pm | December 13, 2020

Ad

“পোস্টার কথা বলে”আমি ফেইসবুকে অতীতের একটি পোষ্টার দিলাম।যে পোষ্টারটি আঃলীগের অতীতের কথা মনে করিয়ে দেয়।সময় ২০০১ সাল।মৌলবাদী আবদুর রহমান ও বাংলাভাইয়ের নেতৃত্বাধীন জিএমবির জঙ্গীরা বিজয়ের মাস ডিসেন্বরে অলকা, ছায়াবানী,অজন্তা সিনেমা হলে সিনেমা চলা কালে বোমা হামলা চালায়।নিহত এবং আহত হয় বেশকিছু দর্শক। বিএনপি জামাত সরকার হামলাকে প্রকৃত দোষিদের আড়াল করে জনগনের দৃষ্টিকে আঃলীগের বিপক্ষে নেওয়ার জন্য তৎকালিন ময়ঃজেলা আঃলীগের সভাপতি অধ্যক্ষ মতিউর রহমান,কেন্দ্রীয় নেতা সাবের হুসেন চৌধুরী সহ স্বনাম ধন্য জাতীয় বুদ্ধিজীবিদের কয়েক জনকে আসামী করে। ঘটনা ঘটার পর পরই অধ্যক্ষ মতিউর রহমানকে গ্রেফতার করে। অধ্যক্ষ মতিউর রহমানের গ্রেফতারের পরিপ্রেক্ষিতে ফুসে উঠে ময়মনসিংহের যুব সমাজ। এদিকে জেলা যুবলীগের সভাপতি হিসাবে দায়িত্ব পালনের ভার পরে আমার উপর। এর পূর্বে জাতীয় নির্বাচনে নেতিবাচক ভূমিকার অভিযোগ এনে ইউসুফ খান পাঠানকে জেলা সভাপতির দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়। আমরা সেই সময়কার জেলা যুবলীগের কর্মীরা মতিউর রহমান স্যারের গ্রেফতারের প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিলের সিদ্ধান্ত নেই। সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ১২ ই ডিসেন্বর যথারীতি বিক্ষোভ মিছিল গাঙ্গীনাপাড়ের শিব বাড়ী অফিস থেকে বের হয়। সেই সময় পার্টি অফিসে উপস্হিত আঃলীগ,ছাত্রলীগ,শ্রমিক লীগের সদস্যরাও যুবলীগের বিক্ষোভ মিছিলে যোগ দেয়। মিছিলটি শহর প্রদক্ষিন করে ট্রান্ক পট্টি হয়ে ছোট বাজারের রাস্তা ধরে ওল্ড পুলিশ ক্লাব হয়ে পার্টী অফিসের দিকে অগ্রসর হওয়ার সময় পুলিশ মিছিলের অগ্রভাগে হামলা চালায় ও লাঠি চার্জ করে। মিছিল থেকে সেই সময়কার সাঃসন্পাদক অধ্যাপক গোলাম সরওয়ার ,যুগ্ম সাঃসন্পাদক সাবেক কমিশনার নজরুল ইসলাম, জেলা সাংগঠনিক সন্পাদক,এড,আজাহারুল ইসলাম কে গ্রেফতার করে। পুলিশের হামলায় ছত্রভঙ্গ হওয়া মিছিল থেকে আঃলীগ নেতা বাবুল রায়,মানিক সরকার,সোহরাব আলী, মোসলেম উদ্দীন গামা,জাহাঙ্গীর আলম,ছাত্রলীগ নেতা মোতাহার হুসেন লিটু ,আঃখালেক, আঃলীগ নেতা ইমতিয়াজ হবি,প্রদীপ,আবদুর রহিম, যুবলীগ নেতা উত্তম,লিটন,রাসেল ও জাহাঙ্গীর আলম প্রমূখ।আমি ভাগ্য গুনে মিছিলের পিছন দিকে থাকায় গ্রেফতারের হাত থেকে বেঁচে যাই। গ্রেফতারকৃতদের মুক্তির দাবিতে যে পোষ্টারটি শহরের বিভিন্ন জায়গায় সাহসীকতার সহিত লাগানো হয়েছিল তার প্রকাশক ছিল সেই সময়কার জেঃযুবলীগের দপ্তর সন্পাদক এড,পীযূষ,এবং প্রচারে ছিল জেঃ যুবলীগের প্রচার সন্পাদক শওকত ওসমান লিটন। এড,পীযূষ এখন ময়ঃ জেলা আঃলীগের সহ সভাপতি । ,এড,আজাহারুল ইসলাম ও শওকত ওসমান লিটন জেঃযুবলীগের আহ্বায়ক ও যুগ্ম আহ্বায়ক হিসাবে দায়িত্বরত।আমি তৎকালিন যুবলীগের জেলার সভাপতি প্রদীপ ভৌমিক ও সাঃ সন্পাদক গোলাম সরওয়ার, ও যুগ্ম সন্পাদক নজরুল ইসলাম কোন কমিটীতে জায়গা না পেয়েও মুজীব আর্দশের কর্মী হিসাবে মিছিল মিটিংএ আজও অংশ গ্রহন করি। জয় বাংলা।

ব্রেকিং নিউজঃ