| |

ভারতে চলছে শূন্য টাকার নোট!

আপডেটঃ 12:41 pm | March 22, 2016

Ad

নিউজ ডেস্ক : ভারতের বাজারে সেই হৈ চৈ ফেলেছে নতুন এক নোট! কী এমন নতুনত্ব আছে, তাই ভাবছেনতো? হ্যা, নতুনত্ব আছে। হৈ চৈ পড়বে না? নোটটার মূল্যমান যে ‘শূন্য’ টাকা! মাথা চুলকোচ্ছে নিশ্চয়ই?

তাহলে শুনুন। ধরুন কেউ আপনার কাছে ঘুষ চাইছেন। চিন্তায় পড়ে যাবেনতো! কিন্তু এই নোট থাকলে আর চিন্তায় পড়তে হবে না। ‘চাহিবামাত্র’ বাহককে দিয়ে দিন— ঘুষ চাইলেই হাতে ধরিয়ে দিন শূন্য টাকার নোটের বান্ডিল।

ফিফথ পিলার নামে একটি এনজিও এই শূন্য টাকার নোট বাজারে এনেছে। ঘুষের বিরুদ্ধে আন্দোলন গড়ে তুলতেই এই অভিনব ভাবনা সংস্থাটির। সংস্থার প্রতিষ্ঠাতা বিজয় আনন্দ বলছেন, এই শূন্য টাকার নোট যদি দেশের মানুষ ঠিক মতো ব্যবহার করতে পারেন, তা হলে ঘুষের বিরুদ্ধে এক বিরাট আন্দোলন গড়ে তোলা যাবে।

ঘুষখোরদের খপ্পরে পড়ে অনেকেই ঠিক মতো প্রতিবাদ করতে পারেন না। কাজ উদ্ধারের জন্য অনেকেই ঘুষ দিতে বাধ্য হন। অনেকে ঘুষ দিতে রাজি হন না। কিন্তু সে ভাবে প্রতিবাদও করতে পারেন না। ঘুষের বিরুদ্ধে যেটুকু প্রতিবাদ হয়, তা যে যার নিজের মতো করে করেন। তাতে ঘুষ বিরোধী আন্দোলন কোনও অবিচ্ছিন্ন রূপ পায় না। ফিফথ পিলার চাইছে, ঘুষ বিরোধী আন্দোলন গোটা দেশে একটা সংঘবদ্ধ আন্দোলন হিসেবে গড়ে উঠুক। কেউ ঘুষ চাইলেই তাকে শূন্য টাকার নোট ধরিয়ে দেয়া হোক। তাতে ঘুষখোরদের এই বার্তা দেয়া যাবে যে গোটা দেশে একই ধাঁচে আন্দোলন শুরু হয়ে গিয়েছে ঘুষের বিরুদ্ধে।

বিজয় আনন্দের কথায়, যে সব সরকারি কর্মী ঘুষ নেন, তারা ভয়ে ভয়ে থাকেন। ঘুষ নেয়ার খবর জানাজানি হলে যে চাকরি যেতে পারে, জেলও হতে পারে, সে কথা তারা জানেন। কিন্তু সাধারণ মানুষ প্রতিবাদ করেন না বলে ঘুষের লেনদেন চলতে থাকে। কেউ প্রতিবাদ করলে কিন্তু এই ঘুষখোররা চুপসে যান। ঘুষ চাইলেই শূন্য টাকার নোট ধরিয়ে দেওয়ার প্রবণতা যদি দেশজুড়ে বাড়তে থাকে, তা হলে ঘুষ চাইতেই ভয় পাবেন দুর্নীতিগ্রস্ত সরকারি কর্মী এবং নেতামন্ত্রীরা।

ব্রেকিং নিউজঃ