| |

নিজে দুর্নীতি করব না, কাউকে করতে দেব না : প্রধানমন্ত্রী

আপডেটঃ 2:41 pm | March 31, 2016

Ad

আলোকিত ময়মনসিংহ : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, দুর্নীতি প্রতিরোধ করতে হবে। আমি নিজে দুর্নীতি করব না, কাউকে করতে দেব না— এ মানসিকতা নিয়ে কাজ করতে হবে।

বৃহস্পতিবার (৩১ মার্চ) সকালে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে (বিআইসিসি) লোকপ্রশাসন প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের ৬০তম বুনিয়াদি প্রশিক্ষণ কোর্সের সমাপনী অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত নবীন কর্মকর্তাদেরকে জনগণের সেবক হিসেবে দায়িত্ব পালন করার আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘কাউকে অবহেলা করা যাবে না। কেন না জনগণের টাকায় আপনাদের বেতন হয়। তা ছাড়া আমাদের সরকার রেকর্ড পরিমাণ বেতন বাড়িয়েছে। দেশকে ভালোবাসতে হবে, জনগণের প্রতি শ্রদ্ধা রাখতে হবে। দেশের অর্থনীতিকে এগিয়ে নিতে দুর্নীতিকে প্রশ্রয় না দিয়ে কাজ করতে হবে। কারো কাছে হাত পেতে নয়, নিজের সম্পদ দিয়ে আমাদেরকে এগিয়ে যেতে হবে।’

শেখ হাসিনা বলেন, ‘জনসেবা মানুষের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিতে দেশের সব কর্মক্ষেত্রে আমরা ডিজিটাল পদ্ধতি প্রণয়ন করেছি। ২৫ হাজার ওয়েব পোর্টাল নিয়ে পৃথিবীর দ্বিতীয় বৃহত্তম পোর্টাল চালু করেছি, যাতে এক জায়গায় সব তথ্য পাওয়া যায়। আপনারা প্রকল্প নেন, যত টাকা লাগে আমরা দেব। আমি এটা ওয়ার্নিং দিয়ে দিচ্ছি, যাতে আর বলতে না হয়।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘বিশ্ব আজ এগিয়ে যাচ্ছে। বিশ্বের সঙ্গে আমাদেরকে তাল মিলিয়ে চলতে হবে। আর এ জন্য প্রশিক্ষণের বিকল্প নেই। আমরা উচ্চতর প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করেছি। বিদেশে প্রশিক্ষণেরও ব্যবস্থা রয়েছে। বিশেষ করে সিভিল সেক্টরে। সরকারের কাজে যাতে গতি আসে সে জন্য সব ব্যবস্থা গ্রহণ করেছি।’

মানুষের শিক্ষাগ্রহণ কখনও শেষ হয় না। পড়াশোনার কোনো বয়স নেই। তাই লোকপ্রশাসন প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের ৬০তম বুনিয়াদি প্রশিক্ষণার্থীদের বেশি করে পড়াশোনা করার আহ্বান জানান তিনি। নতুন নতুন দিক উদ্ভাবনে কর্মকর্তাদের পড়াশোনার দিকে নজর দেয়ার ওপর গুরুত্বারোপ করেন প্রধানমন্ত্রী।

তিনি আরো বলেন, ‘গত সাত বছরের যেমন আমরা অসংখ্য নতুন পদ সৃষ্টি করেছি। তেমনি প্রতিটি ক্যাডারে ব্যাপকভাবে পদোন্নতি দেয়া হয়েছে। ২০০৯ থেকে এ পর্যন্ত আমরা ১১৩ জন সচিব  ৬০৯ জন অতিরিক্ত সচিব, ১৪১১ জন যুগ্ম সচিব এবং ১৪৩৪ জনকে উপসচিব পদে পদোন্নতি দিয়েছি। অতীতে কোনো সরকার এমন পদোন্নতি দিতে পেরেছে বলে মনে হয় না।

১২৩ শতাংশ বেতন বৃদ্ধি করেছি। সংসার যেন সচ্ছলভাবে চালাতে পারে। দুর্নীতির দিকে যেন হাত না বাড়ায়। কারণ দুর্নীতি বন্ধ করো বললে হবে না। এ জন্য শতভাগ বেতন বৃদ্ধি করেছি যাতে কেউ অসচ্ছল না থাকে।’

ব্রেকিং নিউজঃ