| |

বিশ্বের প্রথম সাদা বাঘের সাফারি পার্ক

আপডেটঃ 3:48 pm | April 03, 2016

Ad

আলোকিত ময়মনসিংহ  : বাঘ বলতে আমরা বুঝি হলুদ শরীরে কালো ডোরা কাটা দাগের সেই ভয়ংকর হিংস্র প্রাণী। ভারত, বাংলাদেশের রয়েল বেঙ্গল টাইগার বিশ্বজুড়ে পর্যটকদের পছন্দের তালিকায় রয়েছে। হলুদের ওপর কালো ডোরা কাটা রয়েল বেঙ্গল টাইগার সত্যি সমীহ জাগায়। কিন্তু বাঘ যদি হয় সাদা-কালো ডোরা কাটা শরীরের, তাহলে? হ্যাঁ, এমন বিরল জাতের বাঘও আছে ভারতে।

মধ্যপ্রদেশের বিন্ধা এলাকায় ১৯৫১ সালে দেখা যায় প্রথম সাদা বাঘ। এবার মধ্যপ্রদেশের মুকুন্দপুরে আগামী ৩ এপ্রিল থেকে চালু হচ্ছে সাফারি পার্ক। সাফারি পার্ক বিশ্বে এটিই প্রথম নয়। তারপরও এই পার্কটির বিশেষত্ব রয়েছে। সেটি হলো এটি বিশ্বের প্রথম সাদা বাঘের সাফারি পার্ক। সরকারি উদ্যোগে এটি তৈরি করা হয়েছে।

পার্কে থাকবে একটি পুরুষ বাঘ রঘু এবং দুটি বাঘিনী- বিন্দা ও রাধা। ভারতের প্রাদেশিক মন্ত্রী রাজেন্দ্র শুক্লা বলেছেন, ‘‘অনেক আগে থেকেই সাদা বাঘের কথা শুনে আমি বিস্মিত হতাম। তবে আমি সৌভাগ্যবান যে ছোটবেলাতেই ‘মোহন’ নামের একটি সাদা বাঘ দেখেছি। বাঘটি মহারাজ মারতান্দ সিং ১৯৫১ সালের ২৭ মে জঙ্গল থেকে ধরে ছিলেন। পরে বাঘটি রাখা হয় গোবিন্দগড় প্যালেসে।’’

এখন বিশ্বে যতোগুলো সাদা বাঘ দেখা যায়, সব ঐ বাঘটিরই বংশধর বলে জানিয়েছেন তিনি। বাঘ বিশেষজ্ঞ জয়রাম শুক্লা ‘টেল অফ দ্য হোয়াইট টাইগার’ বইয়ে লিখেছেন: ‘এই সাদা বাঘগুলো রয়েল বেঙ্গল টাইগারেরই একটি প্রজাতি। জিন বিবর্তনের কারণে হলুদ-কালো ডোরাকাটা দাগ না হয়ে তাদের শরীর হয়েছে সাদা-কালো ডোরাকাটা। এরা ভিন্ন কোনো প্রজাতির নয়, বরং সত্যিকার অর্থেই ভারতীয় বাঘ।

প্রজাতি যাই হোক, বিরল এই সাদা বাঘ দেখতে সাফারি পার্কে প্রতিদিন পর্যটকের ভিড় লেগে থাকবে এতে কোনো সন্দেহ নেই।

 

 

ব্রেকিং নিউজঃ