| |

ময়মনসিংহ পৌরসভার মেয়র টিটু‘র নামে অপপ্রচার করায় প্রবীর বসাকের নামে ৫০ কোটি টাকার মানহানি মামলা

আপডেটঃ 8:07 pm | April 06, 2016

Ad

স্টাফ রিপোর্টার ॥ তথ্য প্রযুক্তি অপব্যবহার করে ময়মনসিংহ পৌরসভার মেয়র মো: ইকরামুল হক টিটু‘র নামে অপপ্রচার করায় ১১নং দুর্গাবাড়ী রোডের বাসিন্দা প্রবীর বসাকের নামে জেলা ময়মনসিংহের ১ম যুগ্ন জেলা জজ আদালতে ৫০ কোটি টাকার মানহানি মামলা দায়ের করেছেন।
মামলার বিবরনে জানাযায়, বাদীর নামে বিবাদীর ফেসবুক আইডি পরিবর্তন করে মিথ্যা কুরুচিপুর্ণ অশ্লীল উস্কানিমূলক বক্তব্য সম্বলিত স্ট্যাটাস উল্লেখিত ফেসবুক আইডিতে প্রচার করে যা জনসম্মুখ্যে বহুল ভাবে প্রচারিত হওয়ায় বাদীর মান সম্মান ুন্ন হওয়ায় বাদী বিবাদীর বিরুদ্ধে তিপূরণের টাকা দাবী আদায়ের ডিক্রির প্রার্থনায় বর্তমান মোকাদ্দমা দায়ের করেন। বাদী মো: ইকরামুল হক টিটু ইংরেজি ১৯৯৯ সনে ময়মনসিংহ পৌরসভার ৯ নং ওয়ার্ডের নির্বাচনে কমিশনার নির্বাচিত হন। অত্যন্ত সুনামের সহিত কমিশনারের দায়িত্ব পালন করেন। পরবর্তী সময়ে বিপুল ভোটে বাদী ৯নং ওয়ার্ডের কমিশনার নির্বাচিত হন এবং তিনি পৌরসভার প্যানেল চেয়ারম্যান-১ হিসাবে  দায়িত্ব পালন করা অবস্থায় তৎকালীন পৌর চেয়ারম্যান এডভোকেট মাহমুদ আল নূর তারেক সাহেবের অকাল মৃত্যুতে বাদী ময়মনসিংহ পৌরসভার ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন। ইতিমধ্যে সরকারী ভাবে পৌর চেয়ারম্যান পদের নাম করণ মেয়র পদে ভূষিত হয় এবং পরবর্তী সময়ে অর্থাৎ ২০১১ইং সনে বাদী  ময়মনসিংহ পৌরসভার মেয়র পদে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্ধিতা করেন এবং বিপুল ভোটে পৌর মেয়র  নির্বাচিত হন। মেয়র হিসাবেও তিনি অত্যন্ত সুনামের সাথে ময়মনসিংহ পৌর সভার মেয়র হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছে। তাছাড়া বাদী ইংরেজী ২০০৯ সনে ময়মনসিংহ চেম্বার অব কমার্স ইন্ডাষ্টীজ এর সভাপতি নির্বাচিত হন  এবং পরপর তিন বার ময়মনসিংহ চেম্বার অব কমার্স ইন্ডাষ্টীজ এর সভাপতি নির্বাচিত হন। তিনি ময়মনসিংহ পৌরসভার রাস্তাঘাট, ড্রেনেজ ব্যাবস্থা ও রাস্তাঘাটে বৈদ্যুতিক  ব্যাবস্থা  ও দর্শনীয় স্থানে নগরীর সৌন্দর্য বৃদ্ধি করণার্থে বিভিন্ন প্রকল্প গ্রহন ও বাস্তবায়ন করায় পৌরবাসীর নিকট প্রশংসিত হয়েছেন।
বিবাদী প্রবির বসাক তার ফেসবুকে একাধিক আইডি ব্যাবহার করে বাদী ময়মনসিংহ পৌরসভার বর্তমান মেয়রের বিরুদ্ব্যে কুরুচিপুর্ন বিভ্রান্তিকর অশ্লীল মানহানিকর  মিথ্যা তথ্য ও উস্কানি মূলক বক্তব্য সম্বলিত স্ট্যাটাস উল্লেখিত ফেসবুক আইডি হতে প্রচার ও প্রকাশ করে বাদীর মানহানী ও সমাজে হেয় প্রতিপন্ন করে আসছে। তাছাড়া ময়মনসিংহ শহরের জেলা আওয়ামীলীগ নেতা এডভোকেট মোয়াজ্জেম হোসেন বাবুল, ময়মনসিংহ জেলা জজ কোর্টের জিপি এডভোকেট আনোয়ার হোসেন খান, বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি প্রফেসর আনোয়ারুল ইসলাম, নূর মোহাম্মদ মিজান, মোঃ আনিসুল ইসলাম, আশরাফুল মোমেন পারভেজ, সোহেল গনি আরো প্রমুখ ব্যাক্তিদের বিরুদ্ধে ঐ একই পদ্ধতিতে বিবাদী ফেসবুক আইডিতে অপপ্রচার করেন।
যা তথ্য ও যোগাযোগ আইনে বিবাদী অপরাধ সংঘটন করেছে এবং কুরুচিপুর্ন মিথ্যা তথ্য ও উস্কানি মূলক বক্তব্য সম্বলিত স্ট্যাটাস উল্লেখিত ফেসবুক আইডি হতে প্রচার ও প্রকাশ করায় বাদী সামাজিক ও মানসিক ভাবে হেয় প্রতিপন্ন হয়েছেন। বিবাদী মিথ্যা তথ্য ও উস্কানি মূলক বক্তব্য সম্বলিত স্ট্যাটাস উল্লেখিত ফেসবুক আইডি হতে প্রচারের প্রেেিত নূর মোহাম্মদ মিজান তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি আইন ২০০৬ সংশোধনী ২০১৩ এর ৫৭ ধারার বিধান মতে বিবাদীর বিরুদ্ধে কোতুয়ালী মডেল থানায় বিগত ২৩-০৩-২০১৬ ইং তারিখে ৮৭ নম্বর  মোকাদ্দমা দায়ের করেন ।তদ্রুপ মোঃ আমিনুল ইসলাম  ও ১টি মোকাদ্দমা এই বিবাদীর বিরুদ্ধে দায়ের করেন যার নম্বর ৮৯। তদ্রুপ সোহেল গনি তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি আইন ২০০৬ সংশোধনী ২০১৩ এর ৫৭ ধারার বিধান মতে বিগত ১৪-০৩-২০১৬ তারিখে কোতুয়ালী মডেল থানায় ১ টি  মামলা দায়ের করেন যার নম্বর ৪২। অতঃপর বিগত ১৪-০৩-২০১৬ ইং তারিখে দৈনিক জাহান পত্রিকায় ফেসবুকের আইডি পরিবর্তন করে মেয়র টিটু সহ আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দের নামে অপপ্রচার করায় কবির বসাক গ্রেফতার শিরোনামে সংবাদ প্রচার হয়।
ঐ একই তারিখে দৈনিক ঈষিকা পত্রিকায় ফেসবুকের আইডি পরিবর্তন করে সাইবার ক্রাইম অপরাধে ময়মনসিংহের প্রবির বসাক গ্রেফতার, নামকরণে সংবাদ প্রচারিত হয়। ঐ একই তারিখে দৈনিক নিউ টাইমস পত্রিকায় ফেসবুকে মেয়র টিটু সহ একাধিকের নামে অপপ্রচার করায় দুর্গাবাড়ি রোডে প্রবির বসাক গ্রেফতার । ঐ একই তারিখে দৈনিক সবুজ পত্রিকায় ফেসবুকের আইডি পরিবর্তন করে সাইবার ক্রাইম অপরাধে ময়মনসিংহে ব্যাবসায়ী প্রবির বসাক গ্রেফতার, নামকরণে সংবাদ প্রচারিত হয়।
ঐ একই তারিখে দৈনিক দিগন্ত বাংলা ফেসবুকে মেয়র টিটু সহ একাধিকের নামে অপপ্রচার অবশেষে রাজিব পেপার্স এর মালিক প্রবির বসাক আটক। একই শিরোনামে ঐ একই তারিখে দেশের খবর, দৈনিক হৃদয়ের বাংলা, দৈনিক লোক লোকান্তর, দৈনিক স্বজন, দৈনিক আলোকিত ময়মনসিংহ, দৈনিক আজকের বাংলাদেশ , দৈনিক আজকের ময়মনসিংহ পত্রিকায় প্রচারিত হয় তাতে বাদী সামাজিক ভাবে মান সম্মান ুন্ন হয়। বিবাদী তার নামে বেনামে ১০/১১ টি ফেসবুক আইডি ব্যাবহার করে মর্মে পুলিশ আইডি বিভাগ হতে জানাযায়। বিবাদী তার ফেসবুক আইডিতে জঘন্য কুরুচিপুর্ন  অশ্লীল ভাষায় ছবিসহ প্রচার করেন, যা ঐ সকল আইডি ফেসবুক হতে ইন্টারনেটে ডাউনলোড করে বাদী ও বাদীর  সহোদর জৈষ্ঠ ভ্রাতা প্রখ্যাত ব্যাবসায়ী ও শিল্পপতি এবং এফ বি সি সি আই এর নির্বাচিত পরিচালক জনাব আমিনুল হক শামীম এর নামে ও বিকৃত। কুরুচিপুর্ন অশ্লীল তাহা সম্বলিত ডায়ালগ ও ছবি পাওয়া গিয়েছে ।
তাছাড়া বিবাদী বাদীর বিরুদ্ধে মানহানিকর বক্তব্য সহ মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ছবি ও জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর ছবি সহ প্রচার করেন। বিবাদীর প্রকাশিত ফেসবুকের আইডি ইন্টারনেট হতে ডাউনলোড করে ” মেয়র টিটু নিজেইতো মাইজ্ঞ্যাদের সমিতির সভাপতি, এই ধরনের বহু কুরুচিপুর্ন বক্তব্য সহ ছবি পাওয়া যায় ।
বিবাদী দীর্ঘ দিন ধরে বিভিন্ন লোকজনের নামীয় ফেসবুকের সাইবার ক্রাইমের মাধ্যমে ঢুকে আইডি ও নাম পরিবর্তন করে নিজেই নানা  লোকের নামে অপপ্রচার করে বিবাদী সাইবার ক্রাইম অপরাধ সংঘটিত করেছে। বিবাদী বাদীর বিরুদ্ধে মিথ্যা কুরুচিপুর্ন অশ্লীল ও উস্কানী মূলক বক্তব্য প্রচার করে বাদীর মানহানি করেছে । যা ৫০,০০০০০০০/- (পঞ্চাশ কোটি ) টাকার তি হয়েছে। উক্ত তিপুরণে টাকা আদায়ের নিমিত্ত বাদী অত্র আদালতের আশ্রয় লইতে বাধ্য হলেন ।
মামলায় জানাযায়, মোকাদ্দমা অত্র আদালতের এলাকাধীন হেতু আদালতে বিচার্য বটে। মোকাদ্দমাটি তিপূরণ আদায়ের মোকাদ্দমা বিধায় বাদীর ৫০,০০০০০০০/ (পঞ্চাশ কোটি ) টাকা মানহানিকর তি ধার্য্য  হওয়ায় অত্র মোকাদ্দমার মূল্যায়ন ৫০,০০০০০০০/ (পঞ্চাশ কোটি ) টাকা ধার্য্য করা হলো এবং তদুপরি কোর্ট ফি প্রদানে অত্র মোকাদ্দমা দায়ের করা হলো।
এছাড়া বিবাদী বাদীর বিরুদ্ধে তার ফেসবুক আইডিতে মিথ্যা  কুরুচিপুর্ন  ও উস্কানি মূলক মানহানিকর বক্তব্য প্রচার করায় তা বিগত ২৪-০৩-২০১৬ইং তারিখে ময়মনসিংহের ১৫টি দৈনিক পত্রিকায় একযোগে প্রচার হওয়ায় ও বাদী বিভিন্ন লোক মুখে তার নিজের সম্পর্কে নিন্দনীয় সংবাদ প্রচার হওয়ায় উক্ত তারিখ হতে অত্র মোকাদ্দমার কারণ উদ্ভব হয়েছে এবং বিদ্যামান ।
বিবাদী বাদীর বিরুদ্ধে তার ফেসবুক আইডিতে ও বিভিন্ন ব্যাক্তির ফেসবুকের আইডিতে সাইবার ক্রাইমের মাধ্যমে ঢুকে বিবাদী বাদীর বিরুদ্ধে মিথ্যা, কুরুচিপুর্ন অশ্লীল বিভ্রান্তিকর সংবাদ প্রচার করে বাদীর ৫০,০০০০০০০/-(পঞ্চাশ কোটি ) টাকা মানহানি করেছে তা সাব্যস্থ করে তিপূরণের টাকা আদায়ের ডিক্রি দিতে, বিবাদীর বিরুদ্ধে যাবতীয় আদালত ব্যয় ডিক্রি দিতে, আদালতের ন্যায় বিচারে আইন ও ইকুইটি মতে বাদী আর যে সকল প্রতিকার অন্য যেভাবে পাইতে পারে তা যদি বিজ্ঞ আদালত সঙ্গত বোধ করেন তবে তাও বাদী অনুকূলে ডিক্রি দিতে আজ্ঞা হয় ।

ব্রেকিং নিউজঃ