| |

তীব্র রোদ উধাও, পহেলা বৈশাখের বিকালে মেঘের গর্জন

আপডেটঃ 8:35 pm | April 14, 2016

Ad

মো: মেরাজ উদ্দিন বাপ্পি :
পহেলা বৈশাখের সকাল থেকে রোদের তীব্রতা ছিল প্রচন্ড বিকেলে বৃষ্টি পড়ার শব্দ শুনেই মনটা ভরে গেল। কি জানি এক শীতল হওয়া মনের ভিতর ভালবাসার পরশ বুলিয়ে দিল। মনের আনন্দে গুণ গুণ করে গাইতে লাগল  জীবনের চাকা গেছে আঁকা-বাঁকা সৃষ্টি বা অনাসৃষ্টি তবু এক মুঠো সুখ ছুঁয়ে গেল ভাবি এ যেন হঠাৎ বৃষ্টি।
রোদ উপো করে সেজেগুজে পহেলা বৈশাখ বর্ষ বরণের উৎসবে দলে দলে যোগ দিয়েছে বিভিন্ন বয়সের নারী-পুরুষ, শিশু-কিশোর-কিশোরী, তরুণ-তরুণীরা। দুপুর গড়িয়ে বিকালে আকাশে দেখা সাদা মেঘের ভেলা। বিকেল সাড়ে ৪ টার দিকে মেঘের গর্জনের পর বছরের প্রথম বৃষ্টিপাত শুরু হয়। বেশি সময় বৃষ্টি না হলেও স্বস্থি নেমে আসে বৈশাখী প্রানে।
বৃষ্টি ভেজা শীতল বাতাস ময়মনসিংহ বাসীর শরীরে দোলা লাগালেও রাজনৈতিক অস্তিরতার কারণে মোটেও শান্তিতে নেই ময়মনসিংহবাসী। বৃষ্টির পরে সবার একটাই প্রত্যাশা মাঘের এই শীতল বৃষ্টি স্নিগ্ধতার পরশ ছড়িয়ে ভিজিয়ে দিক রাজনীতির গরম উত্তাপকে। শান্তির বারতা ফিরিয়ে আনুক সারা দেশজুড়ে।
পহেলা বৈশাখের প্রথম বৃষ্টিতে ভিজেছে অনেকেই। তারপরও অতৃপ্ত নয় কেউ। সকলেই সকাল থেকে অপো করছিল বৃষ্টির জন্য। পহেলা বৈশাখে প্রথম বৃষ্টিতে বোরো আবাদসহ শাকসবজি আবাদীদের মুখে ফুটে উঠেছে হাসির ঝিলিক। বৃষ্টি পর বৈশাখী মেলায় স্বস্তি নিয়ে কেনাকাটা করেছে মানুষ। অনেকেই মনের অজান্তে গেয়ে উঠেছে বৎসরের আবর্জনা ধুয়ে যাক … এসো হে বৈশাখ এসো এসো।

ব্রেকিং নিউজঃ