| |

‘তামাক নিয়ন্ত্রণে স্বাস্থ্য উন্নয়ন সারচার্জ ব্যবহার করা দরকার’

আপডেটঃ ৩:৪৩ অপরাহ্ণ | এপ্রিল ১৮, ২০১৬

Ad

আলোকিত ময়মনসিংহ : ‘রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থাকে প্রাধান্য দিয়ে স্বাস্থ্যসেবা গড়ে তুলতে তামাক ব্যবহার ও অসংক্রামক রোগ নিয়ন্ত্রণে স্বাস্থ্য উন্নয়ন সারচার্জ ব্যবহার করা দরকার। এ লক্ষ্যে তামাকজাত দ্রব্য হতে আদায় করা ১ ভাগ সারচার্জ ব্যবহারে প্রণীত নীতিমালাটি দ্রুত চূড়ান্ত করা জরুরি।’

রবিবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে সেমিনারে এই আহ্বান জানানো হয়। জাতীয় তামাক নিয়ন্ত্রণ সেল (এনটিসিসি), স্বাস্থ্য অর্থনীতি ইউনিট, বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব হেলথ সাইন্সেস (বিইউএইচএস) ও ওয়ার্ক ফর এ বেটার বাংলাদেশ (ডাব্লিউবিবি) ট্রাস্ট যৌথভাবে এ সেমিনার আয়োজন করে।

সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপনা করেন স্বাস্থ্য অর্থনীতি ইউনিটের মহাপরিচালক মো. আসাদুল ইসলাম। বক্তব্য দেন— ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন অব বাংলাদেশ’র প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতি জাতীয় অধ্যাপক ব্রিগেডিয়ার (অব.) আব্দুল মালিক, দি ইউনিয়নের কারিগরি পরামর্শক অ্যাডভোকেট সৈয়দ মাহবুবুল আলম, বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব হেলথ সাইন্সেস’র উপাচার্য অধ্যাপক লিয়াকত আলী, পাবলিক হেলথ ফাউন্ডেশন বাংলাদেশ’র চেয়ারম্যান এম মোজাহেরুল হক, জাতীয় তামাক নিয়ন্ত্রণ সেলের প্রোগ্রাম অফিসার ডা. মাহবুব সোবহান, ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভর্সিটির ভাইস চেয়ারম্যান বোর্ড অব ট্রাস্টি ব্যারিস্টার শামীম পাটোয়ারী। সভাপতিত্ব করেন ডব্লিউবিবি ট্রাস্ট’র প্রোগ্রাম ম্যানেজার সৈয়দা অনন্যা রহমানের সঞ্চালনায় সংগঠনের পরিচালক গাউস পিয়ারী মুক্তি।

মুল প্রবন্ধ উপস্থাপক মো. আসাদুল ইসলাম বলেন, ‘চিকিৎসা করাতে গিয়ে প্রতিবছর ৩.৪ ভাগ মানুষ দরিদ্র হয়ে যাচ্ছে। স্বাস্থ্যসেবার উন্নয়ন করতে পারলে জিডিপিরও উন্নয়ন ঘটবে। বাংলাদেশে জনস্বাস্থ্য প্রতিরোধমূলক খাতে ব্যয় হচ্ছে মাত্র ১৩ ভাগ। স্বাস্থ্যসেবা উন্নয়নে জনস্বাস্থ্যকে গুরুত্ব দিতে হবে। স্বাস্থ্যসেবার উন্নয়নে অর্থায়ন জরুরি। স্বাস্থ্য খাতের অর্থায়নে তামাক ছাড়াও অন্য্যান্য অস্বাস্থ্যকর খাদ্যের ওপরও অধিক কর আরোপ করা যেতে পারে।’

ব্রেকিং নিউজঃ