| |

ত্রিশালে আট বছরের শিশু সজিব হত্যার ঘাতক সবুজ গ্রেফতার

আপডেটঃ 6:38 pm | April 18, 2016

Ad

ত্রিশাল প্রতিনিধি : পারিবারিক কলহে আপন ফুফাত ভাই শিশু সজিব (৯) কে গলাটিপে হত্যা করল মামাত ভাই। ঘটনাটি ঘটেছে ময়মনসিংহের ত্রিশাল উপজেলার ধানীখোলা উজান ভাটিপাড়া গ্রামে। রোববার রাতে ঘাতক সবুজ মিয়া (১৮) কে গ্রেফতার করেছে ত্রিশাল থানা পুলিশ।
পুলিশ ও শিশু সজিবের পরিবার সূত্রে জানা গেছে, গত ১৩ এপ্রিল বিকেলে ধানীখোলা উজান ভাটিপাড়া গ্রামের শফিকুল ইসলামের ছেলে সজিব মিয়া (৯) নিখোঁজ হয়। অনেক খোঁজাখুজির পর তাকে কোথাও না পেয়ে পরিবারের লোকজন বিচলিত হয়ে পড়েন। ওই রাতেই সজিবের মায়ের মোবাইলে মুক্তিপনের ১ লাখ টাকা চাঁদাদাবী করে ফোন আসে। এরপর ওই সিমটি বন্ধ দেখায়। আবার অন্য একটি নাম্বার থেকে মুক্তিপনের টাকা চেয়ে ফোন আসে। তার একদিন পর ১৫ এপ্রিল শুক্রবার দুপুরে বাড়ি থেকে সাতশ গজ উত্তরে ধানীখোলা উজানভাটি মাইজপাড়া গ্রামের আতিকুর রহমান হিরা কেরানীর ধানতে থেকে সজিবের ফুলে যাওয়া (গলিত) লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। পরে পুলিশ মোবাইল ফোনে চাঁদাদাবির সূত্র ধরে রোববার রাতে ঘাতক সবুজকে নিজ বাড়ি থেকে গ্রেফতার করে। গ্রেফতারের পর পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে সাংবাদিকদের উপস্থিতিতে ঘাতক সবুজ হত্যাকান্ডের বিস্তারিত ঘটনা বর্ণনা করে। এদিকে সজিবের বাবা শফিকুল ইসলাম বাদী হয়ে ত্রিশাল থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছে।
ঘাতক সবুজ হত্যাকান্ডের বিস্তারিত ঘটনা বর্ণনায় বলে নিহত সজিবের মা সম্পর্কে আপন তার ফুফু। তার ফুফু বহুদিন আগে তাকে অনেক বকাঝকা করেছিল। সেই জেদের বশেই ঘটনার দিন বিকেলে তেতুল পারার কথা বলে গভীর জঙ্গলে নিয়ে গিয়ে শিশু সজিবকে সে গলাটিপে হত্যা করে। এরপর জঙ্গলের পাশের একটি ধানেেত তার মৃত দেহ ফেলে রাখে। হত্যার ঘটনার মোটিভ অন্য দিকে প্রবাহিত করতে চাদাঁ দাবির নাটক সাজানো হয় বলেও জানায় সে। সজিবের বাবা শফিকুল ইসলাম তার সন্তান হত্যার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন।
ত্রিশাল থানার ওসি মনিরুজ্জামান জানান, চাঁদাদাবির মোবাইল ফোনের নাম্বারের সূত্র ধরে রোববার রাতে ঘাতক সবুজকে গ্রেফতার করেছি। সজিবের বাবা শফিকুল ইসলাম বাদী হয়ে থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছে। তার দেয়া জবানবন্দি সহ তাকে আদালতে প্রেরণ করা হবে।

ব্রেকিং নিউজঃ