| |

নিম্ন মাধ্যমিকের ২০০ স্কুল যাচ্ছে প্রাথমিক শিক্ষায়

আপডেটঃ 9:30 pm | May 10, 2016

Ad

আলোকিত ময়মনসিংহ: শিক্ষানীতির আলোকে প্রাথমিক শিক্ষা অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত নিতে দুই শতাধিক বেসরকারি নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয় পাঠদানের অনুমতির জন্য প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কাছে হস্তান্তর করছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

দু’একদিনের মধ্যে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কাছে এসব স্কুলের তালিকা পাঠানোর কথা জানিয়েছেন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম-সচিব (মাধ্যমিক-১) একেএম জাকির হোসেন ভূঁঞা।

বর্তমানে অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত পাঠদানের জন্য নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়গুলো শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অধীনে পরিচালিত হয়ে আসছে।

জাকির হোসেন বাংলানিউজকে বলেন, ‘জাতীয় শিক্ষানীতি-২০১০’র আলোকে নিম্ন মাধ্যমিক স্কুলগুলো প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অধীনে দেওয়া হচ্ছে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের উপসচিব (মাধ্যমিক-২) সালমা জাহান মঙ্গলবার (১০ মে) বলেন, নিম্ন মাধ্যমিক পর্যায়ে পাঠদানের অনুমতি চাওয়া প্রায় দু’শ’ স্কুল হস্তান্তরের প্রক্রিয়া চূড়ান্ত হয়েছে। দু’একদিনের মধ্যে তালিকা পাঠানো হবে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয় জানায়, বর্তমানে সারাদেশে তিন হাজার ৪৫৮টি নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয় রয়েছে। প্রচলিত ধারায় প্রাথমিক শিক্ষা পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত পরিচালিত হলেও জাতীয় শিক্ষানীতি অনুযায়ী, প্রাথমিক শিক্ষা প্রথম থেকে অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত বিবেচিত হবে।

ইতোমধ্যে প্রায় ছয়শ’ প্রাথমিক বিদ্যালয় অষ্টম শ্রেণিতে উন্নীত হয়েছে বলে জানিয়েছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়। এবারই প্রথম সেসব স্কুলের শিক্ষার্থীরা জেএসসি-জেডিসি পরীক্ষায় অংশ নেয়।

সারাদেশের নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়গুলো হস্তান্তরের জন্য চলতি বছরের জানুয়ারি মাসে নির্দেশনা দেয় শিক্ষা মন্ত্রণালয়। ওই সময় থেকে নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয় স্থাপন বা পাঠদানের অনুমতি স্থগিত রাখা হয়।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ওই আদেশে বলা হয়, পরবর্তীতে বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের নিম্ন মাধ্যমিক পর্যায়ে পাঠদানের অনুমতির বিষয়টি শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়কে হস্তান্তর করা হবে।

গত বছরের ২৮ ডিসেম্বর শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত বৈঠকে নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয় স্থাপনের অনুমতিসহ কার্যক্রম স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত হয়।

চলতি বছরের ১৯ জানুয়ারি শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নের জন্য মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদফতরের (মাউশি) মহাপরিচালক ও আঞ্চলিক উপ-পরিচালকসহ সব শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যানের কাছে চিঠি পাঠানো হয়।

যুগ্ম-সচিব জাকির হোসেন বলেন, শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে নিম্ন মাধ্যমিকের পাঠদানের অনুমতি, এমপিও প্রদান, শাখা ও বিষয় খোলা পরিচালিত হতো। ষষ্ঠ শ্রেণি পর্যন্ত খোলার পর্যায়ে পরিচালনায় সমস্যা দেখা দেয়।

প্রথম থেকে পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত স্কুলগুলো পরিচালনা করে আসছিলো প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়।

প্রাথমিক শিক্ষা অষ্টম শ্রেণিতে নেওয়া প্রসঙ্গে পরবর্তী প্রক্রিয়া সম্পর্কে জানতে চাইলে জাকির হোসেন বলেন, দুই মন্ত্রণালয় সমন্বয় করে স্কুলগুলো আনুষ্ঠানিকভাবে হস্তান্তর করবে। তবে কবে এ প্রক্রিয়া সম্পন্ন হবে তা জানাননি তিনি।

এবছর জেএসসি-জেডিসি পরীক্ষা শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অধীনে অনুষ্ঠিত হওয়ার পরেরবার প্রাথমিক মন্ত্রণালয়ের অধীনে তা দেওয়া হবে বলে জানান শীর্ষ এক কর্মকর্তা

ব্রেকিং নিউজঃ