| |

বিলুপ্ত প্রায় উঠুন, সেহেরির সময় হয়েছে, সেহরি খান, রোজা রাখুন

আপডেটঃ 2:55 am | June 18, 2016

Ad

মো: মেরাজ উদ্দিন বাপ্পী:

রমজান মাসের মধ্যরাত। দূর থেকে বেজে উঠছে ‘উঠুন, উঠুন। সময় হয়েছে সেহেরির। আর ঘুম নয়। তাড়াতাড়ি উঠুন, সেহরি খান, রোজা রাখুন। সেহরির শেষ সময়….’।
গলায় সুর তুলে হাঁক দিয়ে চলে যায় রাত জাগানিয়ার দল। গোটা রমজান মাস জুড়েই চোখে ঘুম নেই এই রাত জাগানিয়াদের। কেন না সানকিপাড়া এলাকায় রোজার জন্য তৈরি হতে বলবে কে?
আজান দেয়ার আগে সবাইকে ঘুম থেকে তুলে সেহেরি (রমজান মাসে সূর্য ওঠার আগেই যে খাবার খান মুসলিমরা) খাওয়ার কথা মনে করিয়ে দেওয়াই কাজ ওঁদের। কারণ বিশ্বাস, তাতে তুষ্ট হবেন আল্লাহ্। রোগ বালাই রক্ষা করবেন তিনি। আর তাই পবিত্র রমজান মাস পড়লেই কাজে নেমে পড়েন তাঁরা। সাদারণ মানুষের কাছে ওঁদের পরিচিতি ‘জাগনদার দল’।
কিন্তু প্রযুক্তির ছোঁয়ায় বদলে যাওয়া জীবনে হারিয়ে যেতে বসেছে প্রাচীন এই রেওয়াজটি। কেবল শহর নয় গ্রাম থেকেও অনেকটা উঠে গেছে রোজাদারদের ঘুম থেকে জাগানোর এই রেওয়াজটি।
কয়েক বছর আগেও ময়মনসিংহে দেখা যেত টিনের চোং, হাত মাইক, লাঠি, বাঁশ, টর্চ নিয়ে দল বেঁধে কিশোর-যুবকদের ‘ঘুম থেকে উঠুন’ চিৎকারে রোজাদারদের ঘুম ভাঙতো।
বিরাট দায়িত্ব তাদের। আর ঘরের মানুষও নিশ্চিন্তে ঘুমাতে পারতেন। কারণ তারা জানতেন সেহরি পার্টির হাঁক-ডাক তাদের কানে যাবেই। অঞ্চলভেদে সেহেরি পার্টিকে জাগানিয়ার দল, জাগো পার্টি নামেও ডাকা হতো।
কিন্তু হালের প্রযুক্তিতে সেই দিন একেবারেই শেষ হতে চলেছে। সেহরি পার্টির সদস্যরা পুরো মাস কাটাতেন উৎসবের আমেজে। যেন তারাই ডেকে আনছেন খুশির ঈদের খবর। তার ওপর রয়েছে তাদের সম্মানী সংগ্রহ করার আনন্দ। ২৭ রমজানে বাড়ি বাড়ি ঘুরে খুশি হয়ে যা দিতেন তা নিয়েই সন্তুষ্ট থাকতেন তারা।
রাত জাগানিয়াদের একজন জাহাঙ্গীর তিনি বলেন, গরিব ছেলেরাই বেশি এই দলে যোগ দেয়। ২৭ রমজানে বাড়ি বাড়ি ঘুরে খুশি হয়ে যা দেয় তা নিয়েই সন্তুষ্ট আমরা। তিনি বলেন, আমরা মোট তিন জন এখন ডাকা ডাকি করি। মাঝে মাঝে ৫-৬ জনও হয়ে যায়। তাঁদের বিশ্বাস, এই কাজে মানুষের দোয়া মেলে।
সানকিপাড়া এলাকার রোকসানা নামের এক গৃহিণী বলেন, অভিনব সব প্রযুক্তিতে বদলে যাচ্ছে আমাদের প্রাত্যহিক জীবন। বদলে যাচ্ছে ঐতিহ্য। প্রযুক্তি প্রয়োজন। কিন্তু স্বাভাবিকতা কেড়ে নিয়ে নয়। প্রযুক্তির সব সুবিধা নিয়েও কখনো-সখনো মনে হয়, সেই দিনই বোধহয় ভালো ছিলো।

ব্রেকিং নিউজঃ