| |

কর্মদতা ও নেতৃত্ব যোগ্যতার কারনে মেয়র টিটু আগামীতেও ময়মনসিংহবাসীর নেতৃত্ব দিবেন

আপডেটঃ 8:59 pm | June 21, 2016

Ad

মো: নাজমুল হুদা মানিক ॥ ময়মনসিংহ পৌরসভার মেয়র মো: ইকরামুল হক টিটু‘র সভাপতিত্বে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ভুমিকম্পন এর পুর্ব ও পরবর্তী করনীয় বিষয়ে কর্মশালায় প্রধান অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন দুর্যোগ মন্ত্রনালয়ের সচিব মো: শাহ কামাল। কর্মশালায় বিশেষ অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন দুর্যোগ মন্ত্রনালয়ের যুগ্ন সচিব মো: মহসিন। কর্মশালায় মুল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ময়মনসিংহ পৌরসভার প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা একেএম তারিকুল আলম। ভুমিকম্প প্রবনতা: বাংলাদেশ ও ময়মনসিংহ জেলা বিষয়ে প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক আরিফ আব্দুল্লাহ খান, ইউএনডিপির সহকারী পরিচালক মো: খোরশেদ আলম। কর্মশালায় ময়মনসিংহের অতি: জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো: হারুন অর রশিদ, অতি: পুলিশ সুপার (সদ্য পদোন্নিতপ্রাপ্ত পুলিশ সুপার) মো: হারুন অর রশিদ, সিভিল সার্জন ডা: মোস্তফা কামাল, জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক যুগ্ন সাধারন সম্পাদক আলহাজ্ব এহতেশামুল আলম, দৈনিক আলোকিত ময়মনসিংহের সম্পাদক প্রদীপ ভৌমিক, ময়মনসিংহ প্রেসকাবের সাধারন সম্পাদক বাবুল হোসেন, দৈনিক কালেরকন্ঠের স্টাফ রিপোর্টার নিয়ামুল কবীর সজল সহ প্রশাসনের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তা, পৌর পরিষদের প্যানেল মেয়র, কাউন্সিলরবৃন্দ, কর্মকর্তা কর্মচারীবৃন্দ, সাংবাদিকবৃন্দ, সুশীল সমাজের প্রতিনিধিবৃন্দ, কমিউনিটি লিডার ও সদস্যবৃন্দ, সুধী সমাজের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।  দুর্যোগ মন্ত্রনালয়ের সচিব মো: শাহ কামাল বলেন, সকলে মিলে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ভুমিকম্প মোকাবেলায় কাজ করতে হবে। তিনি বলেন, আমরা কাজ করছি সুন্দর বাংলাদেশ গড়তে আর মেয়র টিটু কাজ করছে সুন্দর ময়মনসিংহ গড়তে। তিনি বলেন, প্রজন্ম ও নিজেদের বাঁচার তাগিদে দুর্যোগ ও ভুমিকম্পের ঝুঁকি নিয়ে কাজ করতে হবে। ময়মনসিংহবাসীর নেতৃত্ব দিবে ময়মনসিংহ পৌরসভার সুযোগ্য মেয়র মো: ইকরামুল হক টিটু। তিনি মেয়রের ভুয়সী প্রশংসা করে বলেন, মেয়র যেমন সুন্দর, ময়মনসিংহ শহরটাকেও তেমনি সুন্দর করে তুলেছেন। তিনি আশা প্রকাশ করেন কর্মদতা ও নেতৃত্বের যোগ্যতার কারনে তিনি আগামীতেও ময়মনসিংহবাসীর নেতৃত্ব দিবেন। তিনি বলেন, মেয়র পরবেন এই আতœবিশ্বাস আমাদের আছে। নতুন বিল্ডিং নির্মানের বিষয়ে সকলের দৃষ্টি আকর্ষন করে সচিব শাহ কামাল বলেন, বিল্ডিং নির্মানে সকলকে বিল্ডিং কোড মেনে চলতে হবে। আগামীদিনে বিল্ডিং এর সামনে ইঞ্জিনিয়ার কর্তৃক সাইন বোর্ড দেয়া থাকবে। তিনি বলেন, ভুমিকম্পে দেশের ১ম ঝুঁকিতে সিলেট, ২য় ময়মনসিংহ ও ৩য় চট্রগ্রাম রয়েছে। তিনি বলেন, স্বজনপ্রীতি না করে মেয়র ও ইঞ্জিনিয়ারদের মহান আল্লাহকে হাজির নাজের জেনে কাজ করতে হবে। সকলকে আইন মেনে চলতে হবে। তিনি বলেন, দুর্যোগ মোকালোয় ৩০ জুনের মধ্যে ১শথ কোটি টাকার তাবু ক্রয় করার পদপে নেয়া হয়েছে। তিনি বলেন, ঝুঁকিপুর্ন এলাকার পাশাপাশি ঝুঁকিপুর্ন এলাকার বাইরের লোকজনকেও প্রশিন দিতে হবে। তিনি বলেন, বর্তমানে দেশে ১৭টি বিশ্ববিদ্যালয়ে দুর্যোগ ও ভুমিকম্প নিয়ে লেখাপড়া হচ্ছে। তারা আগামী দিনে দুর্যোগ ও ভুমিকম্প মোকাবেলায় সম্পদে পরিনত হবে। তিনি বলেন, মেয়র আমার পাশে বসে ইতিমধ্যেই ময়মনসিংহবাসীর উন্নয়নের জন্য অনেক কাজ আমাকে দিয়ে দিয়েছেন। আমি ইতিমধ্যেই আমার কাজ শুরু করে দিয়েছি। তিনি বলেন, সুন্দর বাংলাদেশ গড়তে চাই, সুন্দর ময়মনসিংহ গড়তে চাই।
দুর্যোগ মন্ত্রনালয়ের যুগ্ন সচিব মো: মহসিন ময়মনসিংহবাসীর প্রশংসা করে বলেন, ময়মনসিংহের মানুষ সহজ সরল। তাদের মাঝে অতিথি পরায়নতা অনেক বেশি। তিনি বলেন, বিশ্বের উন্নত দেশের মধ্যে বাংলাদেশ ২৫গুন বেশি ঝুঁকিপুর্নের তালিকায় রয়েছে। তার মধ্যে ভুমিকম্পের কথা উঠলেই সিলেট, ময়মনসিংহের কথা আসে। তিনি বলেন, আগামী ১৪মাসে বিদেশী অনেক এক্সপার্ট ময়মনসিংহে আসবে। তিনি আরো বলেন, ময়মনসিংহে ৭তলার উপর ভবন করার কথা নয়। এর বেশি সুউচ্চ ভবন হলে এ মাটি এটি বহন করার কথা নয়। তারপরও ডেবলাপার কোম্পানী ১৪/১৬তলা ভবন করছে। এটি খুবই ঝুকিপুর্ন। তিনি বলেন, ময়মনসিংহের পাশেই মধুপুর ভুমিকম্পের জন্য খুবই ঝুঁকিপুর্ন। তিনি বলেন, ভু-কম্পনের মাত্রা সম্পর্কে অবহিত হওয়ার জন্য সুদুর প্রসারী পরিকল্পনা নিয়ে বর্তমান সরকার ঢাকায় একটি ভুকম্পন মিউজিয়াম প্রতিষ্টা করার পরিকল্পনা নিয়েছে। ঢাকায় ভুকম্পন মিউজিয়াম প্রতিষ্টার পর ময়মনসিংহের জন্য একটি মিউজিয়াম করার জন্য তিনি ময়মনসিংহবাসীর পে সচিবের কাছে দাবী জানান।
ময়মনসিংহ পৌরসভার মেয়র মো: ইকরামুল হক টিটু বলেন, ময়মনসিংহে সকলেই ভাল থাকতে চাই। জীবন ব্যবস্থাকে ঢেলে সাজাতে চাই। তিনি বলেন, দুর্যোগ জীবন ব্যবস্থাকে অনেক সময় ভেঙ্গে ফেলে। কখন কোন অবস্থায় দুর্যোগে পড়তে হবে সেকথা কেউ জানেনা। তিনি বলেন, মনে রাখতে হবে অতীতের অবস্থা থেকে আমরা অনেক সচেতন হয়েছি। দুর্যোগ ও ভুমিকম্প মোকাবেলায় কাজ করতে হবে। তিনি বলেন, জীবন যাপনের জন্য বাড়ী করেছি কিন্তু অসাবধানতোর কারনে সে বাড়ী জীবন ধবংসের কারন হতে পারে। তিনি বলেন, যে কোন স্থানে স্কুল ও হাসপাতাল করা হচ্ছে। এসব স্কুল ও হাসপাতাল ভেঙ্গে পরলে কি অবস্থা হবে। এসব স্কুল ও হাসপাতাল কতটুকু নিরাপদ। প্রত্যেক জায়গাকে নিরাপদ স্থানে পরিনত করতে হবে। বাংরাদেশের মডেল হিসাবে ময়মনসিংহকে বেছে নেয়ার জন্য তিনি ইউএনডিপির কাছে কৃতঞ্জতা প্রকাশ করেন। মেয়র বলেন, দুর্যোগ ও ভুমিকম্প মোকাবেলায় পৌরবাসীকে দ মানুষ হিসাবে গড়ে তুলতে চাই। তিনি বলেণ, ইউএনডিপির মাধ্যমে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে ময়মনসিংহকে তুলে ধরা সম্ভব হয়েছে।

ব্রেকিং নিউজঃ