| |

শেরপুরে অবিরাম বর্ষণ ও পাহাড়ী ঢলের পানিতে বহু এলাকা প্লাবিত

আপডেটঃ 8:38 pm | July 23, 2016

Ad

মোঃ আবু রায়হান, শেরপুর ঝিনাইগাতী প্রতিনিধি:
শেরপুর জেলায় গত ৭ দিনের টানা অবিরাম বর্ষণ ও পাহাড়ী ঢলে বহু এলাকা প্লাবিত হয়ে পড়েছে। বর্ষণ অব্যাহত থাকায় এবং ভারত থেকে ৫টি নদী দিয়ে প্রবল বেগে নেমে আসা বন্যার পানি প্রবেশ করায় নতুন নতুন এলাকা প্লাবিত হতে শুরু করেছে। ভারতের মেঘালয় রাজ্য থেকে উৎপত্তি হয়ে ৫টি নদী প্রবাহিত হয়ে শেরপুর জেলার মধ্য দিয়ে বাংলাদেশের অভ্যান্তরে প্রবেশ করে। নদী ৫টি হলো, ভোগাই, মহারশি, সোমেশ্বরী, কালঘোষা ও কর্ণঝোড়া। ইতিমধ্যে যে সমস্ত এলাকা বন্যার পানিতে প্লাবিত হয়ে পড়েছে সেগুলি হলো, কান্দুলী, বগাডুবি, মাটিয়াপাড়া, জিগাতলা, চতল, দিঘীরপাড়, আয়নাপুর, পানবর, বাগেরভিটা রাঙ্গামাটিয়াসহ আরও বহু এলাকা। এতে কয়েক হাজার পরিবার পানিবন্দি হয়ে পড়েছে। বন্যার পানি প্রবল বেগে নদী দিয়ে প্রবেশ করায় নদীর পাড় ভেঙ্গে নতুন নতুন এলাকার প্লাবিত হচ্ছে। বন্যার পানির তুরে বহু রাস্তা-ঘাট ভেঙ্গে যোগাযোগ ব্যবস্থা ক্ষতিগ্রস্থ্য হয়েছে। চলতি মৌসুম আমন ফসলের রোপন করার উপর্যুক্ত সময় অতিবাহিত হচ্ছে। বন্যার পানির কারণে কৃষকেরা আমন ফসল চারা রোপন করতে পারছে না। যে সমস্ত কৃষক ইতিপূর্বে রোপা আমন চারা রোপন করেছে তা বন্যার পানির তুরে ক্ষতিগ্রস্থ্য হচ্ছে। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত বর্ষণ ও পাহাড়ি ঢল অব্যাহত রয়েছে। এতে বন্যা পরিস্থিতি আরও অবনতির আশংকা রয়েছে। প্রকাশ থাকে যে, অত্র শেরপুর জেলার সিংহভাগ লোক কৃষক। তাদের উৎপাদনের প্রধান ফসল হলো রোপা আমন। বন্যা পরিস্থিতির কারণে রোপা আমনের ফসল অনেকটা ঝুঁকির মুখে পড়েছে। তাই অত্র এলাকার কৃষকেরা হতাশার মুখে পড়েছে।

ব্রেকিং নিউজঃ