| |

জঙ্গি সন্ত্রাস খুনী গোষ্ঠীর দোসরদের বিরুদ্ধে ময়মনসিংহ জেলা নাগরিক আন্দোলনের উদ্যোগে স্মরন কালের বৃহত্তম মানববন্ধন অনুষ্ঠিত

আপডেটঃ 9:52 pm | July 23, 2016

Ad

মো: আবুল মনসুর ॥ জঙ্গি সন্ত্রাস খুনী গোষ্ঠী ও তাদের দোসরদের বিরুদ্ধে ময়মনসিংহ জেলা নাগরিক আন্দোলনের আয়োজনে শহরের শহীদ ফিরোজ জাহাঙ্গীর চত্বরে ২৩ জুলাই সকাল ১১টায় মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। মানববন্ধনে ময়মনসিংহ মহানগর সেক্টর কমান্ডারস ফোরাম, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, ত্রিশাল উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, পেশাজীবী সমন্বয় পরিষদ, বাংলাদেশ কমিউনিস্ট পার্টি, মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ড, উদীচী শিল্পীগোষ্ঠী, মহিলা পরিষদ, বঙ্গবন্ধু পরিষদ, ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্র, এনজিওদের শীর্ষ সমন্বয়কারী প্রতিষ্ঠান এডাব, গণকল্যান পরিষদ, চেতনা সংসদ, সুলতানা সিরাজ ফাউন্ডেশন (এসএসএফ) অনসাম্বল থিয়েটার, শব্দ আবৃতিচর্চা কেন্দ্র, জয়বাংলা সাংস্কৃতিক ঐক্যজোট, বিদ্রোহী নাট্যগোষ্ঠী, জঙ্গী নির্মূল আন্দোলন, জংবাংলা সাংস্কৃতিক জোট, রাইফেল্স কাব, ছায়ানট সাংস্কৃতিক সংস্থা, বঙ্গবন্ধু শিশু একাডেমী, আব্দুর রশিদ স্মৃতি সংসদ, জাগরনী নাট্য গোষ্ঠী, সিটি কলেজ, বঙ্গবন্ধু দু:স্থ ও প্রতিবন্ধী পরিষদ সহ শহরের বিভিন্ন সংগঠনের নেতাকর্মীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। বৈরী আবহাওয়ার বৃষ্টি উপো করে অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে ময়মনসিংহ জেলা নাগরিক আন্দোলনের সভাপতি এডভোকেট আনিসুর রহমান খানের সভাপতিত্বে ও জেলা নাগরিক আন্দোলনের সহ সাধারন সম্পাদক ও বঙ্গবন্ধু পরিষদের সভাপতি এডভোকেট মোয়াজ্জেম হোসেন বাবুলের পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন ময়মনসিংহ পেশাজীবী সমন্বয় পরিষদের সাধারন সম্পাদক অধ্য রিয়াজুল ইসলাম, বাংলাদেশ মানবাদিকার কমিশন ময়মনসিংহ জেলার সভাপতি এডভোকেট এএইচ এম খালেকুজ্জামান, জেলা আওয়ামীলীগ নেতা আলহাজ্ব এহতেশামুল আলম, ময়মনসিংহ জেলা নাগরিক আন্দোলনের সাধারন সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার নুরুল আমীন কালাম, গনফোরাম নেতা অধ্যাপক আতিকুল ইসলাম, সিপিবির সাধারন সম্পাদক এডভোকেট এমদাদুল হক মিল্লাত, দৈনিক আলোকিত ময়মনসিংহ পত্রিকার সম্পাদক ও জেলা যুবলীগের সাবেক সভাপতি প্রদীপ ভৌমিক, জেলা ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির আহবায়ক বীরমুক্তিযোদ্ধা মো: আব্দুর রব, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের ডেপুটি ইউনিট কমান্ডার বীরমুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব জিয়াউল ইসলাম, সহকারী কমান্ডার বীরমুক্তিযোদ্ধা কামাল পাশা, ময়মনসিংহ মহানগর সেক্টর কমান্ডারস ফোরামের সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব মো: হাফিজুর রহমান, সাধারন সম্পাদক বীরমুক্তিযোদ্ধা জুবায়ের হোসেন সন্ধি, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমান্ডার বীরমুক্তিযোদ্ধা মো: আবুল কালাম আজাদ, জয়বাংলা সাংস্কৃতিক ঐক্যজোট ময়মনসিংহ জেলার আহবায়ক ও আওয়ামী শিল্পীগোষ্ঠীর সভাপতি এডভোকেট এম এ কাশেম, বিশিষ্ট সাংস্কৃতিক সংগঠক শাহ সাইফুল আলম পান্নু, কাজল কোরায়শী, আলহাজ্ব ইব্রাহিম খলিল, মো: আব্দুল হক শিকদার, সিঁড়ি সাংস্কৃতিক সংস্থার সভাপতি এডভোকেট আব্দুল মোতালেব লাল, দৈনিক মাটি ও মানুষ পত্রিকার নির্বাহী সম্পাদক কবি স্বাধীন চৌধুরী, একাত্তুরের ঘাতক দালাল নির্মুল কমিটি ময়মনসিংহ সদর উপজেলা শাখার সাধারন সম্পাদক আবু সাইদ দীন ইসলাম ফখরুল, জেলা পুঁজা উদযাপন কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক শংকর সাহা, উদীচী শিল্পীগোষ্ঠীর সহসভাপতি স্বপন সরকার, মহিলা পরিষদের সভাপতি ফেরদৌস আরা মাহমুদা হেলেন, সাধারন সম্পাদক মনিরা সুলতানা অনু, হোটেল ব্যাবসায়ী সমিতির সাধারন সম্পাদক খন্দকার শরীফ আহমেদ, বঙ্গবন্ধু মহিলা পরিষদ নেত্রী অধ্যাপক শারমিন মোয়াজ্মে শারমিন, ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্র ময়মনসিংহ জেলার সভাপতি মাহবুব বিন সাইফ, এনজিওদের শীর্ষ সমন্বয়কারী প্রতিষ্ঠান এডাব নেতা মো: আবুল কালাম রাসেল, গণকল্যান পরিষদের নির্বাহী পরিচালক আলহাজ্ব ড. সিরাজুল ইসলাম, চেতনা সংসদের সভাপতি এডভোকেট শিব্বীর আহমেদ লিটন, নাগরিক আন্দোলন নেতা কাজী আজাদ জাহান শামীম, মো: শহীদুর রহমান শহীদ, ফয়জুর রহমান ফয়েজ, সুপ্রিয় বনিক, ময়মনসিংহ সদর প্রেসকাবের সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা সোহরাব উদ্দিন খান, ময়মনসিংহ মহিলা শ্রমিকলীগের সভাপতি সৈয়দা রোকেয়া আফছারী শিখা, সুলতানা সিরাজ ফাউন্ডেশন (এসএসএফ) নির্বাহী পরিচালক সুলতানা সিরাজ, অনসাম্বল থিয়েটারের সভাপতি আবুল মনসুর, ছায়ানট সাংস্কৃতিক পরিষদ সভাপতি শরীফ মাহফুৃজুল হক আপেল, বিদ্রেুাহী নাট্যগোষ্ঠীর সভাপতি আজহার হাবলু, বঙ্গবন্ধু দু:স্থ ও প্রতিবন্ধী উন্নয়ন পরিষদ ময়মনসিংহ জেলা কমিটির সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা মো: হোসেন আলী, সহ-সভাপতি মোছা: নাহিদা ইকবাল, সাধারন সম্পাদক মো: আব্দুল হাকিম, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক মো: আব্দুল বাতেন, কার্যকরী সদস্য মো: মোশাররফ হোসেন মুছা, শব্দ আবৃতিচর্চা কেন্দ্র এর পরিচালক জয়দেব সাহা, বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড ময়মনসিংহ জেলা শাখার আহবায়ক মো: হুমায়ুন রশিদ সোহাগ, সদস্য সচিব রিয়াদুল ইসলাম রানা, আবাসন পল্লী শাখার সভাপতি মো: ফরহাদ আলম খান সোহেল প্রমুখ। বৃষ্টি উপো করে স্মরনকালে এত বড় মানববন্ধন ‘৯০এর গণ আন্দোলনের পর এটিই পথম। বক্তারা বলেন, ময়মনসিংহবাসী ঐক্যবদ্ধ হয়েছি। দেশবাসীকেও ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহবান জানাই। সভাপতির বক্তব্যে জেলা নাগরিক আন্দোলনের সভাপতি এডভোকেট আনিসুর রহমান খান বলেন, মুক্তিযুদ্ধ করে এদেশকে স্বাধীন করেছি।  এদেশে সাম্প্রদায়িকতার জায়গা নেই। এদেশকে অকার্যকর রাষ্ট্র হিসাবে পরিনত করার জন্য বিএনপি জামাত শিবির চক্র জঙ্গীদেরকে মদদ দিচ্ছে। বাংলাদেশের মানুষ জঙ্গীদেরকে প্রশ্চয় দিবেনা। প্রতিরোধ করবে। নাগরিক আন্দোলনের সাধারন সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার নুরুল আমীন কালাম বলেন, যুদ্ধাপরাধীদেরকে অভিলম্বে গ্রেফতার করতে হবে। যুদ্ধাপরাধীদের মদদে জামাত শিবির চক্র এদেশে জঙ্গী হামলা চালাচ্ছে। এদের নির্মূল না করা পর্যন্ত এধরনের জঙ্গী কার্যক্রম চলতেই থাকবে। জেলা অঅওয়ামীলীগ নেতা এডভোকেট মোয়াজ্জেম হোসেন বাবুল বলেন, বিএনপির মদদেই রতনের মত যুদ্ধাপরাধীরা নির্বাচন করার সাহস পায়। এদেরকে দ্রুততম সময়ের মধ্যে গ্রেফতার করতে হবে। এরা জঙ্গীবাদের প্রশ্চয়দাতা। এদেরকে নির্র্মুল করতে না পারলে জঙ্গীবাদকে প্রতিরোধ করা সম্বব হবে না। এ জন্য প্রশাসন থেকে শুরু করে জনগনের সবার ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।
বিশিষ্ট আওয়ামীলীগ নেতা ও দৈনিক আলোকিত ময়মনসিংহ পত্রিকার সম্পাদক বাবু প্রদীপ ভৌমিক বলেন, বেশ কয়েক বছর যাবৎ দেশে যখন গুপ্তহত্যা, পুরহিত হত্যা হচ্ছিল তখন আমরা অনেকেই চুপ করে ছিলাম, অনেকেই বলেছে এটা সংখ্যালঘুদের উপর আক্রমন, ঠিক হয়ে যাবে। আমরা তখন থেকে বলে আসছিলাম সকলকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। আজ সারাদেশে এমনটি হচ্ছে যা মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে অর্জিত বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলায় কোন মতেই হতে দেওয়া যাবে না। আমরা এখনো বেঁচে আছি, প্রয়োজন হলে আবারো অশ্র হাতে নিব। আমাদের বয়স হয়েছে আমাদের হারানোর কিছু নাই। আগামী প্রজন্মের জন্য নিরাপদ দেশ রেখে যেতে চাই। মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বাস্তবায়নের মধ্যদিয়ে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনারবাংলা গড়ে তুলতে চাই। মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বাস্তবায়নের জন্য তিনি সকলের প্রতি আহবান জানান। দুস্কৃতিকারীদের প্রতি হুশিয়ারী উচ্চারন করে বলেন, জাতীরজনক বঙ্গবন্ধুর আহবানে দেশকে মুক্ত করার জন্য জীবনবাজি রেখে যুদ্ধ করেছি, বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার সরকারের সফলতার সময়ে জ্ঙ্গী সন্ত্রাসীরা দেশে নৈরাজ্য সৃষ্টি করবে আমরা ঘরে বসে থাকবো এটা হতে পারেনা।

ব্রেকিং নিউজঃ