| |

বাংলাদেশ সব ধর্মের মানুষের : প্রধানমন্ত্রী

আপডেটঃ 12:49 am | October 09, 2016

Ad

স্টাফ রিপোর্টার:  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বাংলাদেশে প্রত্যেক ধর্মের মানুষ স্বাধীনভাবে তাদের ধর্ম পালন করবে। কারণ বাংলাদেশ সব ধর্মের মানুষের।

শনিবার বিকেলে রাজধানীর লালবাগের ঢাকেশ্বরী জাতীয় মন্দিরে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের শারদীয় দুর্গাপূজা উৎসব পরিদর্শন শেষে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

প্রধনমন্ত্রী বলেন, বিশ্বের কাছে আজ বাংলাদেশ রোল মডেল। সম্ভাবনাময় একটি দেশ। শারদীয় দুর্গাপূজা উপলক্ষে দেশের হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকদের শুভেচ্ছা জানান তিনি। সেইসঙ্গে প্রবাসীদেরও দুর্গাপূজার শুভেচ্ছা জানান প্রধানমন্ত্রী।

এর আগে বিকেল ৩টার দিকে ঢাকেশ্বরীতে পৌঁছান প্রধানমন্ত্রী। এরপর পূজা মণ্ডপ পরিদর্শন করেন তিনি। পরে মন্দির প্রাঙ্গণে মহানগর সার্বজনীন পূজা কমিটি ও বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ আয়োজিত শারদীয় শুভেচ্ছা বিনিময় অনুষ্ঠানে অংশ নেন।

জঙ্গি ও সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে কঠোর হুঁশিয়ারি দিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘ধর্মের নামে কোনো সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড বরদাশত করা হবে না। বাংলাদেশে কোনো সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদের স্থান হবে না।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধে এদেশের প্রতিটি ধর্ম, বর্ণ, গোত্রের মানুষের অবদান রয়েছে। সবাই এক হয়ে যুদ্ধ করে এদেশের স্বাধীনতা এনেছে। তাই সব ধর্মের মানুষ এই দেশটাতে ঐক্যবদ্ধভাবে বসবাস করতে চাই।’

তিনি বলেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ মুক্তিযুদ্ধের নেতৃত্ব প্রদানকারী দল। তাই এই দল যখন রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় আসে তখনই দেশের উন্নয়ন হয়। কারণ মানুষের কল্যাণ চিন্তাটাই আমাদের কাছে সব থেকে বড়।

শেখ হাসিনা বলেন, ইসলাম শান্তির ধর্ম, সৌহার্দ্যের ধর্ম, ভ্রাতৃত্বের ধর্ম। এখানে কোনো জঙ্গিবাদের জায়গা নেই। কিন্তু যারা এই সন্ত্রাস সৃষ্টি করে তারা ধর্মবিরোধী।’

অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রীর জ্বালানি উপদেষ্টা এইচ টি ইমাম, আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত, ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র মোহাম্মদ সাঈদ খোকন, স্থানীয় সংসদ সদস্য হাজী মো. সেলিম, মহানগর সার্বজনীন পূজা কমিটির সভাপতি ডিএন চ্যাটার্জী, কমিটির সাধারণ সম্পাদক শ্যামল কুমার পাল, ঢাকেশ্বরী মন্দিরের সেবায়েত প্রদীপ কুমার চক্রবর্তী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

ব্রেকিং নিউজঃ