| |

দুর্গাবাড়ী এলাকায় ওষুধ বিক্রি বন্ধ, বিপাকে পড়েছেন সাধারণ গ্রাহক ও রোগীরা

আপডেটঃ 4:04 pm | October 11, 2016

Ad

 ময়মনসিংহ প্রতিনিধি:  শারদীয় উৎসবের আজকে শেষ দিন। নতুন পোশাক, মজার খাবারের জন্য সবার নানা রকম আয়োজন। এই আয়োজনের সঙ্গে ওষুধের আয়োজনটাও যুক্ত হওয়া জরুরি।
কারণ মঙ্গলবার অনেক ঔষধের দোকান বন্ধ রেখেছে ব্যাবসায়ীরা। জরুরি কোনো ঔষধ দরকার হলে পাওয়া যাচ্ছে না দূর্গাবাড়ী রোডে।
জানা গেছে, শারদীয় উৎসব উপলক্ষে দুর্গবাড়ী ঔষধ ব্যাবসায়ী কল্যান সমিতির পক্ষ্য থেকে ১০/১০/২০১৬ তারিখ মঙ্গলবার সারাদিন দুর্গাবাড়ী রোডের সকল ঔষধ দোকান বন্দ রাখার নির্দেশ দেন।
সরজমিনে দুর্গাবাড়ী রোডে গিয়ে দেখা যায়, দুর্গাবাড়ী রোডে দু একটি ঔষুধের দোকান ছারা আর কোন দেকান খোলা নেই। দুপুর ১০ টার দিকে বন্ধ একটি দোকানের সামনে দাঁড়ানো একজনকে তালিকার ওষুধগুলো দেওয়ার জন্য অনুনয় বিনয় করেন আনোয়ার। তিনি বলেন, ‘আজব শহর বাহে! তন্ন তন্ন করে অ্যাকটা ঔষুধের দোকান থেকে ঔষধ জোগাড় করবার পারছি না। শুধু আনোয়ার নন, রোগীর জন্য ওষুধ কিনতে এসে দোকান বন্ধ পেয়ে এমন বিপাকে পড়েছেন তাঁর মতো অনেকে। এতে চরম ভোগান্তি পোহাতে হয় রোগী ও ওষুধ ক্রেতাদের।
অন্যদিকে সাধারণ ওষুধের দোকান বন্ধ থাকায় ইসলাম ফার্মেসি, উত্তরা ফার্মেসি, অগ্রনী ফার্মেসির ওষুধের দোকানে ক্রেতাদের অস্বাভাবিক ভিড় লক্ষ্য করা গেছে। নগরীর ওষুধ মার্কেট হিসেবে পরিচিত দুর্গাবাড়ী এলাকায় ব্যবসায়ীরা ওষুধের দোকান বন্ধ রেখেছে। এতে বিপাকে পড়েছেন সাধারণ গ্রাহক ও রোগীরা।
অনেক রোগী এবং তাদের স্বজনকে ওষুধ কিনতে এসে দোকান বন্ধ দেখে হতাশ হয়ে ফিরে যেতে দেখা গেছে। সকাল ৯টায় শহরের দুর্গাবাড়ী এলাকার ওষুধ দোকানের সামনে দাঁড়িয়ে থাকা আজগর আলী বলেন, “ব্যবসায়ীদের দোকান বন্ধ রাখার বিষয়টি আমার জানা ছিল না। তারা এ ব্যাপারে কোনো প্রচারণাও চালাননি।
ওষুধের দোকান বন্ধ থাকায় ভোগান্তির শিকার ফেরদৌস আলম জানান, তার একজন রোগীর ঔষধ দরকার। জরুরি কিছু ঔষধ দরকার হলেও তিনি সংগ্রহ করতে পারছেন না।
ইসলাম ফার্মেসির মালিক মো: মুনসুর আলী ভূঞা বলেন, ক্রেতাদের সুবিধা-অসুবিধার বিষয়টি মাথায় রেখে আমরা কয়েক জন ব্যাবসায়ী দোকান খোলা রেখেছি। এতে রোগী ও ওষুধ ক্রেতাদের সুবিদা হচ্ছে।
প্রসঙ্গত, সনাতন হিন্দু ধর্মাম্বলীদের শারদীয় দূর্গোৎসব ৭ অক্টোবর থেকে শুরু হওয়া ১১ অক্টোবর দশমীতে প্রতিমা বিসর্জনের মধ্য দিয়ে শেষ হবে।

ব্রেকিং নিউজঃ