| |

সুপ্রবৃত্তির বিকাশ ঘটাতে হবে। পশুত্ব যেনো জেগে না ওঠে

আপডেটঃ 1:11 am | October 28, 2016

Ad

স্টাফ রিপোর্টার : মানুষের ভেতরে থাকা সুপ্রবৃত্তির বিকাশ ঘটানোর ওপর গুরুত্ব দিয়ে শেখ হাসিনা বলেছেন, মানুষের ভেতরে সুপ্রবৃত্তি থাকে, কুপ্রবৃত্তিও থাকে। সুপ্রবৃত্তির বিকাশ ঘটাতে হবে। পশুত্ব যেনো জেগে না ওঠে।

একই সঙ্গে অপরাধীদের ছাড় না দেওয়ার হুশিয়ারি উচ্চারণ করে তিনি বলেন, যারা অপকর্ম করবে তারা সঙ্গে সঙ্গে ধরা পড়ে যাবে।

বৃহস্পতিবার (২৭ অক্টোবর) দুপুরে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে চাইল্ড হেল্পলাইন-১০৯৮ এর কার্যক্রম আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধনকালে তিনি এসব কথা বলেন।

শিশু ও নারী নির্যাতন বন্ধে সমাজের সবাইকে সচেতন হওয়ার আহ্বান জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, সবারই মা-বোন আছে, নিজের সন্তান আছে। নিজের সন্তানের নিরাপত্তা দেওয়া যেমন দায়িত্ব, অন্যের ছেলেমেয়েদের নিরাপত্তা দেওয়াও তাদের দায়িত্ব। এটা মনে রাখতে হবে, অন্যের মেয়ের ক্ষতি করতে গেলে, নিজের বোন বা মেয়েরও ক্ষতি হতে পারে।

মানুষের মধ্যে মানবিকতা সৃষ্টি করতে সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়কে সচেতনতা বাড়ানোর কাজ করার আহ্বান জানান।

সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের অধীন সমাজসেবা অধিদফতর পরিচালিত এবং ইউনিসেফের আর্থিক ও কারিগরি সহায়তায় হেল্পলাইনের মাধ্যমে নির্যাতিত শিশুরা বিনামূল্যে সহায়তা ও পরামর্শ নিতে পারবে।

হেল্প লাইন ১০৯৮ কার্যক্রমের প্রশংসা করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, এটা মহৎ উদ্যোগ। সমাজের সব স্তরের মানুষ এর সুফল পাবে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, কোনো শিশু বিপদে পড়লে তারা ১০৯৮ নম্বরে ফোন করে সহায়তা নিতে পারবে। এই উদ্যোগের ফলে যারা কোনো অপকর্ম করতে চেষ্টা করবে তারা সঙ্গে সঙ্গে ধরা পরে যাবে। তাদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

হেল্পলাইনের অপব্যবহার সর্ম্পকেও সর্তক থাকতে বলেন প্রধানমন্ত্রী।

বাল্যবিয়ের বিরুদ্ধে বাবা-মাসহ সবাইকে সচেতন হওয়ার আহ্বান জানিয়ে বলেন, ছেলে-মেয়েকে বিয়ে দিলেই সমস্যা সমাধান হলো না। তাকে লেখাপড়া শেখাতে হবে, নিজের পায়ে দাঁড়াবার সুযোগ দিতে হবে।

কল সেন্টারে ফোন করে প্রধানমন্ত্রী হেল্পলাইনের উদ্বোধন করেন।

প্রধানমন্ত্রী ফোন করলে অন্যপ্রান্ত থেকে কল সেন্টারের অপারেটর পরিচয় জানতে চেয়ে বলেন, কী সহযোগিতা করতে পারি?

এসময় প্রধানমন্ত্রী হেসে বলেন, আমি শিশু না। আমাকে অবশ্য ৭০ বছরের শিশু বলা যেতে পারে। একজন ৭০ বছরের শিশু হিসেবে আমি কী সহায়তা পেতে পারি?

তথ্য সহায়তা, আইনি সেবা, কাউন্সেলিং সেবা, বাল্যবিয়ে প্রতিরোধ এবং ঝুকিপূর্ণ অবস্থা থেকে শিশুকে উদ্ধারে সহায়তা পাওয়া যাবে বলে জানান হেল্প লাইন-১০৯৮ এর অপারেটর।

ভিডিও কনফারেন্সে প্রধানমন্ত্রী ফরিদপুর ও রাজবাড়িতে থাকা কয়েকজন নির্যাতিতের সঙ্গে কথা বলেন।

সমাজকল্যাণ সচিব মো.জিল্লার রহমান, সমাজকল্যাণ প্রতিমন্ত্রী নুরুজ্জামান আহমেদ, সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের বিচারপতি মো. ইমান আলী এবং ইউনিসেফের পক্ষে সারা বোরদাস বক্তব্য রাখেন।

২০১৫ সালের ডিসেম্বরে অনানুষ্ঠানিকভাবে এই কার্যক্রম শুরু হয়। এর মাধ্যমে ৩শ ৭৯টি বাল্যবিয়ে রোধ এবং দুই হাজার ৭০ জন শিশুকে স্বাস্থ্য ও শিক্ষা সহায়তার পাশাপাশি আইনি সেবাও দেওয়া হয়েছে।

পরে প্রধানমন্ত্রী বাগেরহাট জেলার মংলায় নির্মিত ৫০ হাজার মেট্রিক টন ধারণ ক্ষমতাসম্পন্ন কনক্রিট গ্রেইন সাইলো এবং মংলা-ঘষিয়াখালী পুনঃখনন করা চ্যানেলটি উন্মুক্তকরণ ও ড্রেজার কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্স করে এই চ্যানেলটি উন্মুক্ত করার পাশাপাশি নবনির্মিত ১১টি ড্রেজারের উদ্বোধন করেন।

ব্রেকিং নিউজঃ