| |

জেল হত্যা দিবসে ময়মনসিংহ জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের দিনব্যাপী কর্মসূচি

আপডেটঃ 1:50 am | November 03, 2016

Ad

মো: মেরাজ উদ্দিন বাপ্পী : জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবের যোগ্য উত্তরসূরী মহান মুক্তিযুদ্ধের নেতৃত্বদানকারী জাতীয় চার নেতার স্মরণে ৩ নভেম্বর (বৃহস্পতিবার) জেল হত্যা দিবস পালন উপলক্ষ্যে ময়মনসিংহ জেলা আওয়ামীলীগের প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।  বুধবার (০২ নভেম্বর) দুপুরে শীববাড়ি রোডস্থ আওয়ামীলীগের কার্যালয়ে ময়মনসিংহ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদ প্রশাসক এডভোকেট জহিরুল হক খোকার সভাপতিত্বে প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সাধারন সম্পাদক এডভোকেট মোয়াজ্জেম হোসেন বাবুলের পরিচালনায় প্রস্তুতি সভায় উপস্থিত ছিলেন আহম্মেদ আলী আকন্দ, কাজী আজাদ জাহান শামীম, হোসাইন জাহাঙ্গীর বাবু, প্রদীপ ভৌমিক, শওকত জাহান মুকুল, এমদাদুল হক সেলিম, এম এ কুদ্দুস, বজলুর রশীদ নাসিম, আখেরুল ইমাম সোহাগ, এড নুরুজ্জামান খোকন, উত্তম চক্রবর্তী রকেট, আনিসুর রহমান স্বপন, আব্দুর রহিম মিন্টু, আবু সাইদ দিন ইসলাম, হুমায়ুন কবির হিমেল, জাকির হোসেন, শিবলী সাদিক খান, মো: রুহুল আমিন, শাহব উদ্দিন শেখ প্রমুখ।
১৯৭৫ সালের ৩ নভেম্বর জেলখানার মধ্যে জাতীয় চার নেতা সৈয়দ নজরুল ইসলাম, তাজউদ্দিন আহমেদ, ক্যাপ্টেন মনছুর আলী এবং এএইচএম কামরুজ্জামানকে নিসংশভাবে হত্যা করা হয়। দিবসটি উপলক্ষে গৃহিত কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে- ৩ নভেম্বর সকাল ৭টায় জেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে জাতীয় ও দলীয় পতাকা অর্ধনমিতকরণ এবং কালো পতাকা উত্তোলন করা হবে। এরপর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন, পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হবে। সকাল ১০ টায় নগরীর কৃঞ্চচুড়া চত্তর থেকে র‌্যালী বেড় হয়ে কলেজ রোডস্থ সৈয়দ নজরুল ইসলাম বাসায় গিয়ে শেষ হবে। সবশেষে কলেজ রোডের সৈয়দ নজরুল ইসলাম বাসায় বিকেল ৫ টায় দোয় ও মিলাদ মাহফিলের মধ্য দিয়ে জেল হত্যা দিবশের কর্মসুচী শেষ হবে। এসব কর্মসূচি ঘোষণা করে ময়মনসিংহ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এডভোকেট জহিরুল হক খোকা বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শকে চিরতরে মুছে ফেলতে জেলের ভেতর জাতীয় চার নেতাকে নির্মমভাবে খুন করা হয়েছিল।  তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর খুনিদের বিচার হয়েছে। একইভাবে ১৯৭১ সালে গণহত্যাকারী যুদ্ধাপরাধীদের বিচারও হচ্ছে। কোন ষড়যন্ত্রই এ বিচার বানচাল করতে পারবে না। তিনি আরও বলেন, দীর্ঘদিন পরে আমরা আওয়ামীলীগ অফিসে উপস্থিত হয়েছি, আমাদের মনে রাখতে হবে শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে হলে ঐক্যের বিকল্প নেই। তাই আমরা ঐক্যবদ্ধ ভাবে সব কর্মীর সক্রিয় অংশগ্রহনের মাধ্যমে সংগঠনের কাজ করে যাব। বাংলাদেশের উন্নয়নের জন্য জননেত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে কাজ করার চেষ্ঠা করব। আমরা অতীতের বিভেদ ভুলে ঐক্যবদ্ধ আওয়ামীলীগ গড়ে তুলব।
নেতৃবৃন্দ যখন জেলা আওয়ামীলীগ অফিসে উপস্থিত হন জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক দপ্তর সম্পাদক হোসাইন জাহাঙ্গীর বাবু নেতৃবৃন্দকে স্বাগত জানান।

ব্রেকিং নিউজঃ