| |

দেশের অষ্টম বিভাগ ময়মনসিংহ শহরকে একটি নির্মল, পরিচ্ছন্ন সবুজ শহর করা সম্ভব : মেয়র টিটু

আপডেটঃ 12:41 am | November 12, 2016

Ad

মো: মেরাজ উদ্দিন বাপ্পী : দেশের অষ্টম বিভাগ ময়মনসিংহ শহরকে একটি নির্মল, পরিচ্ছন্ন সবুজ শহর করা সম্ভব বলে মন্ত্যব্য করেছেন ময়মনসিংহ পৌরসভার মেয়র ও আওয়ামী লীগ নেতা মো: ইকরামুল হক টিটু। ময়লা-আবর্জনামুক্ত সবুজ ময়মনসিংহ গড়ার লক্ষ্যে আনুষ্ঠানিকভাবে কাজ শুরু করেছে ময়মনসিংহ ক্লিন। সবুজ ময়মনসিংহ গড়তে এ কার্যক্রমটি অনাগত প্রজন্মের সুন্দর ভবিষ্যত বিনির্মাণে পরিচ্ছন্ন ও পরিবেশ বান্ধব শহর গড়ার বিকল্প নেই। এজন্য ময়মনসিংহবাসীসহ সকলের সহযোগিতা চান মেয়র টিটু।
জেলা প্রশাসন ও পৌরসভার এ যৌথ উদ্যোগে ময়মনসিংহ ক্লিনকে সাথে নিয়ে “এই শহর আমার, এই দেশ আমার, পরিচ্ছন্ন করার দায়িত্ব আমার” এই শ্লোগানকে সামনে রেখে শুক্রবার বিকেলে সার্কিট হাউস মাঠ থেকে পরিচ্ছন্নতা অভিযান ও জনসচেতনতামূলক কার্যক্রম শুরু হয়।
এ অভিযানের অংশ নেন ময়মনসিংহ বিভাগীয় কমিশনার জিএম সালেহ উদ্দিন, ময়মনসিংহের জেলা প্রশাসক (ডিসি) খলিলুর রহমান, জেলা পরিষদ প্রশাসক ও জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি অ্যাডভোকেট জহিরুল হক খোকা, পুলিশ সুপার (এসপি) সৈয়দ নুরুল ইসলাম, ময়মনসিংহের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (এডিসি) হারুন অর রশিদ, ময়মনসিংহ পৌরসভার মেয়র ও আওয়ামী লীগ নেতা মো: ইকরামুল হক টিটু, মহানগর আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক মোহিত উর রহমান শান্ত, জেলা যুবলীগের সহ-সভাপতি নজরুল ইসলাম, জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারন সম্পাদক সাজ্জাদ জাহান চৌধুরী শাহীন, জেলা স্বেচ্ছাসেক লীগের সাধারন সম্পাদক উত্তম চক্রবর্তী রকেট, জেলা ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক সরকার মো: সব্যস্বাচ্যীসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও পেশাজীবী সংগঠনের নেতাকর্মীরা অংশ নেন।
এ অভিযানে স্বেচ্ছাসেবকদের সবাই সবুজ রঙের টি-শার্ট পরে ব্যস্ত রাস্তা পরিষ্কারের কাজে। পলিথিন, চিপসের প্যাকেট কিংবা বোতল, সব আবর্জনা এক জায়গায় করে নগরীকে সবুজ ঢাকা গড়ার প্রচেষ্টা এসব সারথীদের। অভিযানকালে ময়মনসিংহের জেলা প্রশাসক (ডিসি) খলিলুর রহমান বলেন, মূলত ময়মনসিংহকে ময়লা আবর্জনামুক্ত বসবাসযোগ্য একটি শহর হিসেবে গড়ে তুলতেই এ উদ্যোগ।
পরিচ্ছন্নতা অভিযানকে সুন্দর, সুশৃঙ্খল ও সাফল্যমন্ডিত করতে ছয়টি স্থান নির্ধারণ করে ছয়টি স্থানের জন্য ছয়টি গ্রুপ করা হয়েছে। ছয়টি গ্রুপ যেখানে কাজ করেছে তা হল- ১। সার্কিট হাউস মাঠ ২। আবুল মনসুর সড়ক ৩। শিল্পাচার্য জয়নুল আবেদীন পার্কের গেট থেকে হিমু আড্ডা পর্যন্ত ৪। কাঁচিঝুলি থেকে শিল্পাচার্য জয়নুল আবেদীন সংগ্রহশালা  ৫। কাচিঝুঁলি বাজার থেকে পুলিশ সুপারের কার্যালয়সহ মোড় পর্যন্ত ৬। টাউন হল থেকে কাচিঝুলির চার রাস্তার মোড় পর্যন্ত। ছয়টি গ্রুপের মধ্যে একটি মহিলাদের গ্রুপ আছে যারা সার্কিট হাউস মাঠে কাজ করেছেন। সার্কিট হাউজের স্যালুটিং ডায়েসের সম্মুখে গ্রুপগুলো আলাদা আলাদাভাবে অবস্থান করেছে।

ব্রেকিং নিউজঃ