| |

মমিনুল-প্যাটেল জুটিতে দুর্দান্ত জয় রাজশাহীর

আপডেটঃ 2:25 am | November 22, 2016

Ad

স্পোর্টস ডেস্ক : আগের ছয় ম্যাচে বড় ইনিংস খেলতে পারেননি তিনি। এবারের বিপিএলে অবশেষে হাসল কুমার সাঙ্গাকারার ব্যাট। লঙ্কান গ্রেট করলেন দারুণ এক হাফ সেঞ্চুরি। কিন্তু তার হাফ সেঞ্চুরির দিনে জয় পায়নি ঢাকা। ১৮৩ রানের টার্গেট দিয়েও ৩ উইকেটে হার মেনেছে ঢাকা।

১৮৩ রানের জয়ের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে ১৯.৫ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে জয়ের বন্দরে নোঙর করে রাজশাহী কিংস। ব্যাট হাতে রাজশাহীর সামিত প্যাটেল ৩৯ বলে ৫ চার ও ৬ ছক্কায় ৭৫ রান করেন। এ ছাড়া মমিনুল হক ৫৬ রানের কার্যকরী এক ইনিংস খেলেন। উমর আকমল করেন ১২ রান।

সোমবার ঢাকার ইনিংসে ওপেনিংয়ে সাঙ্গাকারার সঙ্গে ভালো সূচনা এনে দেওয়া মেহেদী মারুফও খেললেন কার্যকরী এক ইনিংস। আর শেষ দিকে সেকুগে প্রসন্ন ও সাকিব আল হাসান খেললেন ছোট্ট দুটি ঝোড়ো ইনিংস। তাতে রাজশাহী কিংসের বিপক্ষে ঢাকা ডায়নামাইটস পেল বড় পুঁজি।

চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে সোমবার দিনের প্রথম এই ম্যাচে আগে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৪ উইকেটে ১৮২ রান করেছে ঢাকা। জয়ের জন্য রাজশাহীর চাই ১৮৩ ।

টস জিতে ব্যাট করতে নেমে শুরুতে অবশ্য রানের জন্য লড়াই করেছেন সাঙ্গাকারা ও মারুফ। প্রথম তিন ওভারে মারুফ শুধু একটি চার মারতে পেরেছিলেন। তিন ওভারে রান আসে ১৫।

তবে মেহেদী হাসান মিরাজের করা চতুর্থ ওভার থেকেই দুই ব্যাটসম্যান দুই চার আর এক ছক্কায় তোলেন ১৭ রান। লং অনের ওপর দিয়ে মারুফের ছক্কাটি ছিল দেখার মতো। পরের ওভারে সাঙ্গাকারাও কাউ কর্নারের ওপর দিয়ে হাঁকান দারুণ এক ছক্কা।

সাঙ্গাকারা-মারুফের ব্যাটে ৮ ওভারে বিনা উইকেটে ৬৫ রান তোলে ঢাকা। নবম ওভারে মারুফকে ফিরিয়ে ৭১ রানের জুটি ভাঙেন আবুল হাসান রাজু। আগের বলেই কভার দিয়ে চার মেরেছিলেন। পরের বলে ছক্কা হাঁকাতে গিয়ে লং অফে সাব্বির রহমানের হাতে ধরা পড়েন মারুফ (২৫ বলে ৩৫)।

মারুফ ফিরলেও সাঙ্গাকারা ৪৭ বলে তুলে নেন ফিফটি। এরপর অবশ্য একটি করে চার ও ছক্কা মেরেই বিদায় নেন তিনি। একই ওভারে মোসাদ্দেক (১৩) ও সাঙ্গাকারাকে ফিরিয়ে দেন ফরহাদ রেজা। ৪৬ বলে ৫ চার ও ৩ ছক্কায় সাঙ্গাকারা করেন ৬৬ রান।

এরপর দ্রুত ম্যাট কোলসের উইকেট হারালেও পঞ্চম উইকেটে সাকিব আল হাসান ও সেকুগে প্রসন্নর ৪৪ রানের অবিচ্ছিন্ন জুটিতে বড় পুঁজি পায় ঢাকা। রাজুর করা শেষ ওভারের প্রথম দুই বলে প্রসন্ন হাঁকান টানা দুই ছক্কা। শেষ বলে মারেন চার। মাঝে চতুর্থ বলে সাকিব হাঁকান এক চার। তাতে শেষ ওভারেই আসে ২২ রান।

১৬ বলে ৩ ছক্কা ও ২ চারে ৩৪ রানের ছোট্ট ঝোড়ো ইনিংস খেলে অপরাজিত ছিলেন প্রসন্ন। ১২ বলে ৩ চারে সাকিব অপরাজিত থাকেন ১৮ রানে। রাজশাহীর পক্ষে সর্বোচ্চ ২ উইকেট নেন ফরহাদ রেজা।

ব্রেকিং নিউজঃ