| |

সাংবাদিকদের সাথে মৃদু কথা কাটাকাটি ও উত্তেজনার সৃষ্টি

আপডেটঃ 2:34 am | January 21, 2017

Ad

মো: মেরাজ উদ্দিন বাপ্পী : সাবেক ছাত্রলীগ নেতা প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী মাহবুবুল হক শাকিলের স্মরনসভাটি চলছিল শৃংখলার ভিতরদিয়েই। হাজার হাজার নেতাকর্মীর মিছিলে অংশ গ্রহনকারীরা নির্ধারিত স্থানেই বসেই শোনছিলেন আলোচনা।

শুক্রবার (২০ জানুয়ারি) বিকেল চারটা ময়মনসিংহের সার্কিট হাউজ মাঠে জেলা ও মহানগর আওয়ামীলীগ আয়োজিত শাকিল স্বরন সভায় প্রধান অতিথি বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বক্তব্য রাখবেন।

এর কিছুক্ষন আগেই জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের মিছিলটি আলোচনা সভাস্থলে এসে মঞ্চের সামনের ফাঁকা জায়গাটি দখল করে নেয়। স্বেচ্ছাসেবকলীগের নির্ধারিত নেতা ছাড়াও অনেকেই উঠে পরে আলোচনা মঞ্চে।

ঠিক কিছুক্ষনের মাযেই এমনই ঘটনা ঘটায় যুবলীগের একটি মিছিল। ভালুকার উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান জেলা যুবলীগের যুগ্ন আহবায়ক রফিকুল ইসলাম পিন্টুর সমর্থকরা বারবার নিষেধ করা সত্যেও সেলফি তুলতে ব্যাস্ত থাকে। মিছিলে অংশ গ্রহনকারীরা সাংবাদিকদের জন্য নির্ধারিত স্থানে এসে ভীড় করে।

যার ফলে সংবাদ কর্মীদের সংবাদ সংগ্রহ ও ছবি তুলতে বিশেষ অসুবিধা হয়। মঞ্চ থেকে অনুষ্ঠানের সঞ্চালক জেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক এডভোকেট মোয়াজ্জেম হোসেন বাবুল ও মহানগর আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক মোহিত উর রহমান শান্ত মাইকে বারবার অনুরোধ করার পরেও কর্মীরা সে জায়গাটি ত্যাগ করেনি।

এক পর্যায়ে সাংবাদিকদের সাথে মৃদু কথা কাটাকাটি ও উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। অডিয়েন্সের শাড়িতে বসা জেলা যুবলীগের সাবেক সভাপতি ও দৈনিক আলোকিত ময়মনসিংহের সম্পাদক প্রদীপ ভৌমিকের হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি শান্ত হয়।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য থাকে যে, নির্ধারিত বক্তা ও অতিথি ছাড়াও অনেককে মঞ্চে দাড়িয়ে ও বসে থাকতে দেখা যায় ও মোবাইল ফোনে সেলফি তুলতে দেখা যায়।

যা দৃষ্টি কটু লেগেছে। যার ফলশ্রুতিতে বিশৃংখল অবস্থার সৃষ্টি হয় এবং অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক, সড়ক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের তার বক্তব্যে দলের শৃংখলার কথা উল্লেখ্য করে বক্তব্য রাখেন।

ব্রেকিং নিউজঃ