| |

জামালপুরে জেলা কাইযেন কনভেনশনে সুন্দর হাসি চর্চার আহ্বান

আপডেটঃ 10:55 pm | February 08, 2017

Ad

স্টাফ রিপোর্টারঃ রিয়াজুর রহমান লাভলু ॥ ‘আসুন সুন্দর হাসি দিয়ে সেবা গ্রহীতাদের সাথে পরিচিত হই’ এমন ভালোবাসাময় এবং সৌহার্দ্যপূর্ণ আচরণ প্রতিষ্ঠা ও সর্বত্র সর্বোচ্চ ইতিবাচক পরিবর্তনের লক্ষ্য সামনে রেখে  গতকাল সোমবার জামালপুরে সামগ্রিক মান ব্যবস্থাপনার (টিকিউএম) মাধ্যমে জনসেবার মানোন্নয়ন বিষয়ক জেলা কাইযেন সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক মো. শাহাবুদ্দিন খান। জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত কাইযেন কনভেনশনে সভাপতিত্ব করেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) রাসেল সাবরিন। কনভেনশনে আলোচনায় অংশ নেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রওনক জাহান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ, জাতীয় শিক্ষা ব্যবস্থাপনা একাডেমির (নায়েম) কোর্স পরিচালক মামুনুল হক ভূঁইয়া, প্রশিক্ষণ বিশেষজ্ঞ খান মাইনুল হক, জামালপুর পৌরসভার মেয়র মির্জা সাখাওয়াতুল আলম মনি, মাদারগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ওবায়দুর রহমান বেলাল, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ড. কামরুজ্জামান, জেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি শফিক জামান, উন্নয়ন সংঘের মানব সম্পদ বিভাগের পরিচালক ও বাংলারচিঠি ডটকমের সম্পাদক জাহাঙ্গীর সেলিম, আজকের জামালপুরের সম্পাদক এম এ জলিল প্রমুখ। সভায় জেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসনসহ জেলা পর্যায়ের ২৫টি সরকারি দপ্তর কাইযেন অনুযায়ী কার্যক্রম বাস্তবায়নের চিত্র উপস্থাপন করেন। সভায় জানানো হয়, কাইযেন একটি জাপানী শব্দ। এর আবিধানিক অর্থ ইতিবাচক বা সর্বোত্তম পরিবর্তন। পাঁচটি ‘স’ বা ‘এস’ ব্যবহার করে এই পরিবর্তনের ধারা অব্যাহত রাখা যায় যেমন, সর্টিং, সাজানো, সুন্দর করা, স্বীকৃত মান প্রতিষ্ঠা এবং স্ব-নিয়ন্ত্রিত শৃঙ্খলা। কনভেনশনে প্রতিটি সরকারি-বেসরকারি অফিস, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের কক্ষ ও আঙ্গিনা পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখা, তথ্যপত্র গুছিয়ে রাখা, দ্রুত সেবাদান এবং সেবা গ্রহীতাদের সাথে হাসিমুখে কথা বলার অভ্যাস চর্চা করাসহ সুন্দর পরিপাটি ও দৃষ্টি নন্দন পরিবেশ সৃষ্টি করার জোর আহ্বান জানানো হয়। জেলা প্রশাসক মো. শাহাবুদ্দিন খান কাইযেনের ফোকাল পয়েন্ট হিসেবে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তানভির হোসেনকে দায়িত্ব দেন। এ ছাড়া কাইযেনের সফল বাস্তবায়নে একটি মনিটরিং সেল গঠন এবং বছরে দুটি কনভেনশন করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। অনুষ্ঠান আয়োজন করে জাতীয় শিক্ষা ব্যবস্থাপনা একাডেমি (নায়েম) এবং সহযোগিতায় ছিলো বাংলাদেশ লোক প্রশাসন প্রশিক্ষণ কেন্দ্র, জাপান আন্তর্জাতিক সহযোগিতা সংস্থা (জাইকা) ও জামালপুর জেলা প্রশাসন।

 

ব্রেকিং নিউজঃ