| |

ভালুকায় অগ্নিসংযোগ লুটপাট : শিশু ও মহিলাসহ আহত-১১

আপডেটঃ 7:45 pm | February 20, 2017

Ad

শেখ আজমল হুদা মাদানী ভালুকা ॥ ভালুকায় জমি সংক্রান্ত বিরোধকে কেন্দ্র করে বসতবাড়িতে হামলা, অগ্নিসংযোগ ও লুটপাটের ঘটনা ১৮ ফেব্রুয়ারি দিবাগত রাতে ঘটেছে। এ সময় হামলায় শিশু ও মহিলাসহ ১১ জন আহত হয়েছেন। আহতদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে শনিবার গভীর রাতে উপজেলার ধামশুর আখালিয়া গ্রামে। এ ঘটনায় মডেল থানায় লিখিত অভিযোগ দেয়া হয়েছে। অভিযোগে জানা যায়, উপজেলার ধামশুর মৌজার ১১৩৯ নম্বর দাগে আখালিয়া গ্রামের আব্দুল জব্বার ফকিরের ছেলে রমজান আলী ফকির গংদের সাথে জমি নিয়ে গুলশান স্পিনিং মিলের (প্রস্তাবিত) বিরোধ চলে আসছিল। এরই জের হিসেবে শনিবার গভীর রাতে গুলশান স্পিনিং মিলের এজিএম জমির আলী ও উর্ধ্বতণ কর্মকর্তা মাসুদুর রহমান চৌধুরীর নেতৃত্বে মাইক্রোবাস নিয়ে প্রায় দেড় শতাধিক লোক বসতবাড়িতে ঘুমন্ত অবস্থায় হামলা চালায়। এ সময় সেলিনা আক্তার (৩৮), লাভলি আক্তার (৩৬) দিলারা বেগম (২০) নাছিমা (২১), শেফালী (২৩), শেফালীর শিশুকন্যা রাবেয়া (চার মাস), লাকীর শিশু কন্যা তায়েবা (১৪ মাস), রমজান আলী ফকির (৩৫), শিহাব ফকির (১৭), বাছির ফকির (২০) রোকেয়া (৪৪) আহত হন। আহতদের মাঝে সেলিনা আক্তার, লাভলি আক্তার, দিলারা বেগম, নাছিমা ও শেফালীকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। হামলাকারীরা যাওয়ার সময় বসতবাড়িতে অগ্নিসংযোগ ও লুটপাট করে প্রায় লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি সাধন করে। জমির মালিক রমজান আলী ফকির জানান, কমদামে জমি বিক্রি না করায় গুলশান স্পিনিং মিলের এজিএম জামির আলী ও উর্ধ্বতণ কর্মকর্তা মাসুদুর রহমান চৌধুরীর নেতৃত্বে মাইক্রোবাস নিয়ে প্রায় দেড় শতাধিক লোক নিয়ে আমাদেরকে উচ্ছেদ করার জন্য এ হামলা ও অগ্নিসংযোগ করেছে। এমনকি আমাদের বিরুদ্ধে ২০ লাখ টাকার মিথ্যা চাঁদাবাজিসহ বেশ কয়েকটি মামলা দিয়ে হয়রানী করছেন। পুলিশের ভয়ে আমারা কয়েকটি পরিবারের কলেজ ছাত্রসহ ২৫/৩০ জন নারী পুরুষ বাড়ি ছেড়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছি। এ ঘটনায় বাশান ফকির বাদি হয়ে মডেল থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। অভিযুক্ত গুলশান স্পিনিং মিলের উর্ধ্বতন কর্মকর্তা মাসুদুর রহমান চৌধুরীর মোবাইলে বার বার চেষ্টা করেও রিসিভ না করায় তার মন্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি। ভালুকা মডেল থানার ওসি (তদন্ত) মো.  হযরত আলী জানান, ঘটনাস্থল থেকে আহতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠিয়েছি। অভিযোগের ভিত্তিতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে। 

ব্রেকিং নিউজঃ