| |

ত্রিশালে বৈধ গ্রাহকের বিদ্যুৎ সংযোগ কেটে নিয়ে ৫০ হাজার টাকা চাঁদাদাবি, অতঃপর মামলা

আপডেটঃ 12:07 am | March 02, 2017

Ad

ত্রিশাল অফিস ॥ ময়মনসিংহের ত্রিশালে বালিপাড়া ইউনিয়নের পাটুলী গ্রামের পিডিবি গ্রাহক আব্দুল ওয়াহেদের কাছে সহকারি লাইনম্যান মেহেদি হাসান রনির বিরুদ্ধে ৫০ হাজার টাকা চাঁদাদাবির অভিযোগ উঠেছে। আব্দুল ওয়াহেদ জানায়, আমার মিটারনং- ০১৭৪১০, নিয়মিত বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ করে আসলেও মিথ্যে অভিযোগ ও ভয় দেখিয়ে গফরগাঁও বিদ্যুৎ বিতরন বিভাগের সহকারি লাইনম্যান মেহেদি হাসান রনি সংযোগের তার কেটে নিয়ে ৫০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করেন। বেশ কয়েকদিন মোবাইল ফোনে টাকা চাওয়ার পর টাকা না পেয়ে আমার বিরুদ্ধে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্যাট আদালতে গফরগাঁও বিদ্যুৎ বিতরন বিভাগের সহকারি প্রকৌশলী মোশারফ হোসেন বাদী হয়ে একটি মামলা করেন। এদিকে লাইনম্যান রনি ওই গ্রাহককে মোবাইল ফোনে যা বললেন, কাকা আমরা এইখানে যে আসছি (সংযোগ বিচ্ছিন্ন করেছি) এই কথা বালিপাড়ার কেউ যদি জানে, তাহলে অফিসে স্যারের কাছে এই খবর যাইবো গা। আমার বাড়িতে আসেন আমরাই আলাপ করে সমাধান কইরা দেই। কেউ জানলে ডাইরেক মামলাত ঢুকাইয়া দেম। কাকা এই জামেলা শেষ করতে হলে ৫০ হাজার টাকা  লাগবে। সংযোগ দিয়া দিব, কেউ জানতে পারবে না। ( মোবাইল ফোনের কল রেকর্ড সংগৃহিত) এ ঘটনায় ভোক্তভোগি আব্দুল ওয়াহেদ গফরগাঁও বিদ্যুৎ বিতরন বিভাগের সহকারি প্রকৌশলী মোশারফ হোসেন ও সহকারি লাইনম্যান মেহেদি হাসান রনি সহ ৬ জনের বিরুদ্ধে ময়মনসিংহের ত্রিশাল বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্যাটের ৩ নং আমলী আদালতে একটি মামলা দায়ের করেন। এদিকে একই ইউনিয়নের সাইদুল ইসলাম (মিটারনং-১২৯৪৫) জানান, শহর গ্রামের প্রায় সব বাসাবাড়িতে সাবমার্সেবল ব্যবহার চলে। চাঁদাবাজ লাইনম্যান আমার তার কেটে নিয়ে মামলার ভয় দেখিয়ে ৪০ হাজার টাকা হাতিয়ে নেয়। হয়রানি ও মামলার ভয় দেখিয়ে চান মিয়া (মিটারনং-২৩০৭৮৬) নামক আরেক গ্রাহকের কাছ থেকেও ২৫ হাজার টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ব্যাপারে নিজের জড়িত থাকার বিষয়টি অস্বীকার করে প্রকৌশলী মোশারফ হোসেন বলেন, রনির বিরুদ্ধে অভিযোগ পেয়েছি। অফিসিয়াল ভাবে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ব্রেকিং নিউজঃ