| |

শেরপুরে অসময়ে ঝড়-তুফান, ক্ষতিগ্রস্থ বহু সবজি ক্ষেত ও ফলের বাগান

আপডেটঃ 8:29 pm | March 12, 2017

Ad

মো. জয়নাল আবদিন ঝিনাইগাতী প্রতিনিধি:শেরপুর জেলা শহরসহ পার্শ্ববর্তী উপজেলায় অসময়ে হঠাৎ করে কাল বৈশাখীর ঝড় তুফান। গত ৩দিন যাবৎ মেঘলা আকাশ, হালকা বাতাশ, গুড়ি-গুড়ি বৃষ্টি ছিল। হঠাৎ গতকাল বিকালের দিকে কালো মেঘ আর দমকা বাতাসে মিলে বৈশাখীর ঝড়ো হাওয়ায় সীমান্তবর্তী গ্রামগুলি ও পাহাড়ের গাছপালার বহু ক্ষয়-ক্ষতি সাধিত হয়।

কাল বৈশাখীর ঝড়ে যে সমস্ত এলাকায় ঘর-বাড়ি ক্ষতিগ্রস্থ্য হয়েছে, সন্ধাকুড়া, কালাকুড়া, গোমড়া, হলদীগ্রাম, বাঐবাধা, ফাকরাবাদ, রাংটিয়া, হালচাটি, গুরুচরণ দুধনই, পানবর, বাকাকুড়াসহ আরও অনেক এলাকা।

উল্লেখ্য, ওসময়ের ঝড়-তুফানে বহু ঘর-বাড়ি ক্ষতি সাধনের পাশাপাশি ফসলি ক্ষেত, ফলদ গাছের ব্যাপক ক্ষতি সাধন হয়েছে। কারণ এসময়ে আম, জাম, লিচু কাঠালসহ অন্যান্য ফলের মুকুল আসে।

আর এই বৈশাখী ঝড়ে বিভিন্ন সবজি ক্ষেতসহ নানা জাতের ফল গাছের মুকুলের ব্যাপক ক্ষতি সাধন করে। দেশে এখন বৈশ্যিক আবহাওয়া কারণে বিরূপ প্রভাব পড়েছে জীব বৈচিত্রের উপরে।

বর্তমানে ঋতুর সঙ্গে আবহাওয়ার ব্যাপক পার্থক্য লক্ষ্য করা যাচ্ছে। প্রকাশ থাকে যে, শেরপুর জেলার উত্তরাঞ্চলের সীমান্তবর্তী এলাকায় ব্যাপক ভাবে কৃষকরা সবজি চাষ করে ও বিভিন্ন জাতের ফলের বাগান করে থাকে।

এসমস্ত চাষীদের উৎপাদিত সবজি ও ফল এলাকার চাহিদা মিটিয়ে দেশের অভ্যান্তরিণ চাহিদার যোগান্তকারী ভূমিকা রেখে আসছে। এতে একদিকে যেমন কৃষকরা লাভবান হতো, অন্যদিকে দেশের খাদ্য চাহিদায় ব্যাপক অবদান রাখতো এইসমস্ত চাষিরা।

কিন্তু এবছর এ অসময়ের বৈরী আবহাওয়া প্রভাবের ফলে প্রাকৃতিক দূর্যোগে ছিন্ন ভিন্ন করে দিল কৃষকের সকল আশা-আকাঙ্খার ফসল। অসময়ের কাল বৈশাখীর ঝড়ে বহু কৃষক ক্ষতিগ্রস্থ হয়ে হতাশার মধ্যে পড়ল।

তাই এবছর অত্রাঞ্চলে ফল ও সবজির সংকট দেখা দিবে। আবহাওয়া বিরূপ প্রভাবের কারণে যে সমস্ত কৃষক সবজি ও ফল বিক্রি করত তাদের এখন নিজেদেরকেই কিনে খেতে হবে।

ব্রেকিং নিউজঃ