| |

জঙ্গি-মাদক প্রতিকার এবং শান্তি-সম্প্রীতি প্রতিষ্ঠার লক্ষে সুশীল সমাজের প্রতি জোর দাবি ওসি কামরুলের

আপডেটঃ 8:10 pm | March 20, 2017

Ad

মো: মেরাজ উদ্দিন বাপ্পী: বিভাগীয় রেঞ্জের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ জেলা ময়মনসিংহ। ময়মনসিংহের মধ্যে অধিকতর গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠছে কোতোয়ালী মডেল থানা। এই থানা এলাকায় জনবসতি বেড়ে উঠায় অপরাধীদের বিচরণও বাড়ছে।

‘জঙ্গি-মাদক প্রতিকার বাংলাদেশ পুলিশের অঙ্গিকার’ এ প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে ১৮ মার্চ শনিবার থেকে নগরীর প্রতিটি ওয়ার্ডে ও এলাকায়-এলাকায় জঙ্গিবাদ প্রতিরোধ এবং শান্তি-সম্প্রীতি প্রতিষ্ঠার লক্ষে বাড়ীর মালিক ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধিদের সাথে মতবিনিময় করছেন কোতোয়ালী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো: কামরুল ইসলাম।
ওসি কামরুল ইসলাম মতবিনিময় সভায় জঙ্গিবাদের আর্থিক উৎস ও পৃষ্ঠপোষকতা বন্ধ, তৃণমূলে জঙ্গিবাদবিরোধী সমন্বিত প্রচার বন্ধের ব্যাপারে বাড়ীর মালিক ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধিদের ঐক্যের আহ্বান জানান।
পাশাপাশি আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী, ছাত্র-যুবক, রাজনৈতিক, সুশীল সমাজের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় জঙ্গিবাদ ও মাদক নামক ভয়াবহ সমস্যা থেকে জাতিকে মুক্ত করতে বাড়ীর মালিক ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধিদের দিকনির্দেশনা দেন।
জানাযায়, চলতি মার্চ মাসের শুরু থেকে জঙ্গিবিরোধী বিশেষ অভিযান চলছে ময়মনসিংহে। সে অনুযায়ী পুলিশের পাশাপাশি জেলা গোয়েন্দা পুলিশের বিভিন্ন টিম এই অভিযানে কাজ করছে। দিনে রাতে এই অভিযান অব্যাহত রয়েছে।
কোতোয়ালী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো: কামরুল ইসলাম এর সাথে আলাপ কালে যমুনা নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, প্রত্যেক অভিভাবককে নিজের সন্তানদের প্রতি খেয়াল রাখতে হবে। সন্তান কোথায় যায় কি করে এবং কার সাথে আড্ডা দেয় তার প্রতি খেয়াল না রাখলে নিজের ও পরিবারের এমনকি দেশের পরিস্থিতি ভয়াবহ হয়ে উঠবে।
বাড়ীর মালিক ও ছাত্রবাস মেস মালিকদের প্রতি আহবান জানিয়ে যমুনা নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে ওসি মো: কামরুল ইসলাম বলেন, পুলিশের কাছ থেকে ভাড়াটিয়ার তথ্য সংক্রান্ত ফরম সংগ্রহ করে ভাড়াটিয়ার সঠিক তথ্য যাচাই বাছাই করে বাড়ী ভাড়া দিন। বর্তমানে জঙ্গিরা শহরের বিভিন্ন এলাকায় বাসা ও মেস ভাড়া নিয়ে জঙ্গি কার্যক্রমসহ প্রশিক্ষন চালিয়ে যাচ্ছে।
বাড়ির মালিকদের বাসা ও মেস ভাড়াটিয়াদের প্রতি সতর্ক দৃষ্টি রাখার আহবান জানিয়ে তিনি আরও বলেন, শহরে কিংবা বাড়ীর আশপাশ কোন অপিরিচিত লোক বা সন্দেহভাজন ঘুরাফেরা করলে তাৎক্ষনিক পুলিশকে অবহিত করে সহযোগীতা করার অনুরোদ জানান।
সবশেষে জঙ্গি-মাদক মুক্ত সমাজ গড়তে সরকার ও পুলিশ প্রশাসনকে সহযোগিতা করার জন্য সুশীল সমাজের প্রতি জোর দাবি জানান পুলিশের এই কর্মকর্তা।

ব্রেকিং নিউজঃ