| |

দেশবিরোধী কোনো চুক্তি করলে মেনে নেওয়া হবে না -খালেদা জিয়া

আপডেটঃ 12:04 am | April 03, 2017

Ad

সাইফুল ইসলাম : দেশবিরোধী কোনো চুক্তি করলে মেনে নেওয়া হবে না বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। তিনি বলেছেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভারত সফরে যাচ্ছেন। তিনি সেখানে গিয়ে যাই কিছু করুন না কেন, আশা করি এমন কিছু তিনি করবেন না।

জনগণকে পাশ কাটিয়ে কিছু করা হলে অবশ্যই আমাদের প্রতিবাদ করতে হবে। প্রয়োজনে রাজপথের আন্দোলনে যেতে হবে বলেও জানান তিনি। শনিবার রাতে গুলশানে বিএনপির চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন-বিএফইউজের নেতৃবৃন্দ সৌজন্য সাক্ষাত করতে গেলে এ কথা বলেন তিনি।

৩০ সদস্যের প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেন বিএফইউজে’র সভাপতি শওকত মাহমুদ। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বিএফইউজে’র সাধারণ সম্পাদক এম আবদুল্লাহ, বিএফইউজে’র সাবেক সভাপতি রুহুল আমিন গাজী, বিএফইউজে’র সহকারী মহাসচিব মোহাম্মদ শাহনওয়াজ, বিএফইউজে’র নেতা শফিউল আলম দোলন, চট্টগ্রামের ইস্কান্দার আলী চৌধুরী, রাজশাহী সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি সরদার আব্দুর রহমান, সাংবাদিক ইউনিয়ন বগুড়ার সভাপতি সৈয়দ ফজলে রাব্বি ডলার ও সাংবাদিক ইউনিয়ন ময়মনসিংহের সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম।

এ সময় চেয়ারপারসনের প্রেস সচিব মারুফ কামাল খান, বিএফইউজে’র সাবেক সাধারণ সম্পাদক এম এ আজিজ, বিএফইউজে’র সহকারী মহাসচিব মো: মোদাব্বের হোসেন, জাতীয় প্রেসক্লাবের যুগ্ম-সম্পাদক ইলিয়াস খান, বিএফইউজে’র বর্তমান সাংগঠনিক সম্পাদক মো: শহিদুল ইসলাম প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে দুপুরে বিএফইউজে’র বার্ষিক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হয়। ওই বৈঠকে সংবাদ মাধ্যমের জন্য নবম ওয়েজবোর্ড ঘোষণা ও সাগর-রুনি হত্যাকান্ডের বিচারসহ ১১ দফা প্রস্তাব সর্বসম্মতভাবে অনুমোদিত হয়। খালেদা জিয়া বলেন, ‘দেশের পরিস্থিতি ভালো নেই। কারো কোনো নিরাপত্তা নেই। গুম-খুন অব্যাহত রয়েছে।

ছাত্রদল নেতা নূরুল আলম নূরুর মতো তরুণকে পৈশাচিক কায়দায় হত্যা করা হয়েছে। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী এ দায় এড়াতে পারে না। শুধু বিরোধী দলই নয়, আওয়ামী লীগের সাধারণ কর্মী-সমর্থকরাও সরকারের কর্মকা-ে অস্বস্তিতে আছে।’ তিনি বলেন, ‘কুমিল্লা সিটি করপোরেশনেও নির্বাচন কমিশন নিরপেক্ষতার প্রমাণ দিতে পারেনি।

লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড তৈরি করতে পারেনি। যদি সুষ্ঠু ভোট হতো তাহলে আরো অন্তত ৪০/৫০ হাজার ভোটের ব্যবধানে ধানের শীষের বিজয় হতো। শুধু আমরাই বলছি না, দেশি-বিদেশি বিভিন্ন সংস্থাই বলছে, কোনো নির্বাচনেই সবার জন্য সমান সুযোগ নেই। বিএনপির চেয়ারপারসন বলেন, হাসিনা দেশজুড়ে সরকারি কাজের নামে নির্বাচনী সভা করছেন, নৌকা মার্কায় ভোট চাচ্ছেন। নিজের ফিল্ড তৈরি করে পরে নির্বাচন দিবেন।

আর আমাদেরকে সভা-সমাবেশও করতে দেওয়া হচ্ছে না। ঘরের ভেতর সভা করার অনুমতিও মিলছে না। এটাকে কি গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র বলা যায় ?’ বেগম জিয়া বলেন, ‘আওয়ামী লীগ বুঝতে পেরেছে, সুষ্ঠু ভোট হলে তাদের ভরাডুবি হবে।

তাই তারা কোনো নির্বাচনই সুষ্ঠু করছে না।’ টালবাহানা না করে অবিলম্বে নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে জাতীয় নির্বাচন দেওয়ার দাবি জানান তিনি।

খালেদা জিয়া আরো বলেন, ৫ জানুয়ারি নির্বাচনের পর বিএনপি জোটের সরকারবিরোধী আন্দোলন স্থগিত করা ছিল একটি ‘ভুল’ সিদ্ধান্ত। ওই সময় আমি কারো পরামর্শ নিতে পারিনি। নিজেও সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে পারেনি।

ব্রেকিং নিউজঃ