| |

মন্ত্রী পরিষদ অনুমোদিত সড়ক পরিবহনের নতুন আইন বাতিলের দাবীতে ময়মনসিংহ জিলা মটরযান কর্মচারী ইউনিয়নের মানববন্ধন

আপডেটঃ 10:09 pm | April 23, 2017

Ad

মো: নাজমুল হুদা মানিক ॥ মন্ত্রী পরিষদ অনুমোদিত ২০১৭ সড়ক পরিবহন এর নতুন আইন বাতিলের দাবীতে কেন্দ্রীয় কর্মসুচির অংশ হিসেবে সারাদেশের ন্যায় ময়মনসিংহের পাটগুদাম ব্রীজ মোড়ে ময়মনসিংহ জিলা মটরযান কর্মচারী ইউনিয়ন ২৩ এপ্রিল সকাল ১১টায় ২ঘন্টাব্যাপী এক বিশাল মানববন্ধন করেছে।

মানববন্ধন চলাকালে মন্ত্রী পরিষদ অনুমোদিত ২০১৭ সড়ক পরিবহন এর নতুন আইন বাতিলের দাবী জানিয়ে বক্তব্য রাখেন ময়মনসিংহ জিলা মটরযান কর্মচারী ইউনিয়ন এর সভাপতি মো: নজরুল ইসলাম, কার্যকরী সভাপতি মো: মানিক মিয়া, সহ সভাপতি মো: আব্দুল গফুর, সাধারন সম্পাদক মো: সানোয়ার হোসেন চানু, যুগ্ন সম্পাদক মো: মজিবুর রহমান, সহ সম্পাদক মো: সাজ্জাদ হোসেন সেলিম, সাংগঠনিক সম্পাদক ইখতিয়ার আহমেদ রনি, প্রচার সম্পাদক মো: আলী হোসেন আলী, কোষাধ্য মো: সিরাজুল ইসলাম, দপ্তর সম্পাদক মো: নুরুল ইসলাম, পাটগুদাম ব্রীজ বাস টার্মিনাল কমিটির সভাপতি মো: আতাউর রহমান প্রমুখ।

ময়মনসিংহ পাটগুদাম ব্রীজ মোড়ে এ মানববন্ধন কর্মসূতিতে সকল শ্রেণীর মটরযান শ্রমিকগণ অংশ গ্রহণ করেন। ময়মনসিংহ জেলা মটরযান কর্মচারী ইউনিয়নের সভাপতি মো: নজরুল ইসলাম বলেন, গার্মেন্স শ্রমিকরা আন্দোলন করলে ভাংচুর করে।

পরিবহন শ্রমিকরা আন্দোলন করলে ভাংচুর করবেনা। গাড়ীর চাবি বন্ধ করে দিবে। সারাদেশের রাস্তা অচল করে দিবে। তিনি বলেন, কেন দুর্ঘটনা ঘটে সে বিষয়টি নির্নয় করতে হবে। হাইওয়ে রোডের উপর যেখানে সেখানে হাট বাজার। যত্রতত্র যানজট লেগেই থাকে। এই অবস্থার পরিবর্তন করতে হলে হাইওয়ে রোডের আধা কিলোমিটার দুরে হাট বাজার নিতে হবে।

তিনি বলেন, শ্রমিকদের ন্যায্যদাবী আদায় করতে আগামীদিনে কঠোর আন্দোলন করা হবে। সাধারন সম্পাদক মো: সানোয়ার হোসেন চানু বলেন, আইন বাতিল না হলে ড্রাইভার সিটে বসবেনা। সারাদেশে ৮০লাখ শ্রমিক রয়েছে। তাদের পরিবারের কমপে ৩কোটি মানুষ রয়েছে।

এই বিশাল জনগোষ্টিকে না খাইয়ে মারার মরন সিদ্বান্ত নিবেন না। সাংগঠনিক সম্পাদক ইখতিয়ার আহমেদ রনি বলেন, আগামী ২ তারিখ জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবরে স্মারকলিপি প্রদান করা হবে।

তারপরও সরকার আইন বাতিল না করলে কেন্দ্রীয় কর্মসুচী কঠিন ভাবে পালন করা হবে। তিনি বলেন, শ্রমিকরা জানে কি ভাবে অধিকার আদায় করতে হয়। ব্রীজ বাস টার্মিনাল কমিটির সভাপতি মো: আতাউর রহমান বলেন, শ্রমিকরা সবসময় সরকারের সাথে ছিল এবং আছে।

কিন্তু সরকার বর্তমানে শ্রমিকদের ডাষ্টবিনে ফেলে দিতে চাচ্ছে। এটি কোন ভাবেই মেনে নেয়া হবেনা। অনতি বিলম্বে শ্রমিক বিরোধী আইন বাতিল করতে নেতৃবৃন্দ প্রধানমন্ত্রীর কাছে অনুরোধ করেন।

manik pic 03

নেতৃবৃন্দ মানববন্ধনে বলেন, আমারা যাত্রী সাধারনকে সর্বোচ্চ সেবা দিয়ে থাকি, আমরা ঘাতক নই।আমরা জনগনের সেবক। যারা রাস্তায় গাড়ীর যাত্রী হয় ও পথচারী হয় তাদের মধ্যে আমারদেরও বাবা-মা, ভাই বোন, সন্তান ও আত্বীয় স্বজন হয়ে থাকে। তাই আমাদেরও তাদের প্রতি অনেক দায়িত্ব রয়েছে।

আমারা কোন ভাবেই একটি দুর্ঘটনা কামনা করি না। আমরা একটি পিপড়াকেও বাচাতে চেষ্ঠা করি। নেতৃবৃন্দ আরো বলেন, মহাসড়ক গুলোতে গরু-ছাগল হাট বাজার বসিয়ে রাস্তায় প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করেছে।

নেতৃবৃন্দ রাস্তার উপর থেকে গরু ছাগল ও হাট বাজার সড়িয়ে নেওয়ার আহবান জানান। পাশাপাশি স্কুল কলেজ, মসজিদ, মাদ্রাসা পাড়া মহলায় রাস্তা পাড়াপাড়ের জন্য সচেতনতা সৃষ্টির আহবান জানান।

নেতৃবৃন্দ অবিলম্বে মন্ত্রী পরিষদের অনুমোদিত ২০১৭ সড়ক পরিবহন এর নতুন আইন বাতিলের জোর দাবী জানান। নেতৃবৃন্দ বলেন, সারাদেশে শ্রমিক ইউনিয়নের ২৩৫টি ট্রেড ইউনিয়ন রয়েছে।দাবী আদায় না হলে কেন্দ্রীয় কর্মসুচীর মাধ্যমে দাবী আদায়ে জোর প্রচেষ্টা চালানো হবে।

ব্রেকিং নিউজঃ