| |

ফুলবাড়িয়া উপজেলায় ২৩ এপ্রিল-২০১৭ ইউনেস্কো ঘোষিত বিশ্ব বই-দিবস উদযাপন

আপডেটঃ 12:30 am | April 24, 2017

Ad

ফুলবাড়ীয়া ( ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি : ২৩ এপ্রিল ইউনেস্কো ঘোষিত বিশ্ব বই-দিবস। পৃথিবীর প্রায় ১০০টি দেশে বিভিন্ন কর্মসূচির মাধ্যমে এই দিবসটি পালন করা হয়ে থাকে। এই দিবসের অন্যতম উদ্দেশ্য তরুনদের বইপড়ায় আগ্রহী করে তোলার জন্য পাঠাভ্যাসের প্রসার ও সুযোগ বৃদ্ধি করা। বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্র এবং শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সেকায়েপ প্রকল্প এ লক্ষ্যে একযোগে কাজ করে যাচ্ছে।

বইপড়ার গুরুত্ব সম্পর্কে জনসচেতনতা বৃদ্ধির উদ্দেশ্যে আজ ২৩ এপ্রিল ২০১৭ ইউনেস্কো ঘোষিত বিশ্ব বই-দিবসে সেকায়েপ প্রকল্পভুক্ত ২৫০ টি উপজেলায় প্রায় ১২ হাজার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ২০১৬ সালের বইপড়া কর্মসূচির পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠান ও বইপড়ার গুরুত্ব বিষয়ে আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়েছে। ৬ লক্ষ ৫০ হাজার পুরস্কার বিজয়ীর হাতে ১০ লক্ষাধিক বই বিতরণ করা হয়েছে।

বিশ্ব বই-দিবস উপলক্ষ্যে সেকায়েপভূক্ত সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের উদ্যোগে দেয়াল পত্রিকা প্রকাশ ও প্রদর্শনী, বই মেলা, র‌্যালি, বিতর্ক প্রতিযোগিতা/উপস্থিত বক্তৃতা ইত্যাদির আয়োজন করা হয়েছে।
ঢাকায় বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্রে মাননীয় শিক্ষামন্ত্রী, সচিব মহোদয়বৃন্দ, মন্ত্রণালয়, মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর,  সেকায়েপ এর কর্মকর্তাবৃন্দের উপস্থিতিতে ৭টি উপজেলার নির্বাচিত পুরস্কার বিজয়ীদের নিয়ে একটি পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠান ও আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়েছে। ঢাকার অনুষ্ঠানটি ইউটিউবে লাইভ সম্প্রচার করা হয়েছে।
ফুলবাড়িয়া উপজেলায় ১২৬ টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পাঠাভ্যাস উন্নয়ন কর্মসূচি বাস্তবায়িত হচ্ছে।  ২০১৬ সালে এই উপজেলায় মোট ১৯২৩১ জন ছাত্র-ছাত্রী বইপড়া কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করেছে।

বিশ্ব বই-দিবস উপলক্ষে উপজেলা প্রশাসন ও মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসের সহযোগিতায় ১২৬ টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বইপড়ার গুরুত্ব বিষয়ে আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়েছে। বইপড়া কর্মসূচি সদস্যদের আয়োজনে অনুষ্ঠিত এ সকল সভায় শিক্ষক, অভিভাবক এবং ব্যবস্থাপনা কমিটির প্রতিনিধিবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

সভাগুলোতে ছাত্র-ছাত্রীরা বইপড়ার গুরুত্ব ও লাইব্রেরি উন্নয়নের  তাদের বক্তব্য তুলে ধরেছে। উপস্থিত বক্তাদের সকলেই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে লাইব্রেরির উন্নয়নে প্রয়োজনীয়তার বিষয়টি অনুধাবন করে বক্তব্য প্রদান করেন। ২০৪১ সালের মধ্যে যে উন্নত বাংলাদেশের স্বপ্ন আমরা দেখছি তা বাস্তবায়নে মননশীল, সুশিক্ষিত, উন্নত জাতি গড়তে হলে পড়–য়া সমাজ গঠনের বিকল্প নেই।

জ্ঞান নির্ভর সমাজ গঠন করতে বইপড়ার অভ্যাস বাড়াতে হবে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকেই এই অভ্যাস গড়ে তুলতে ছাত্র-ছাত্রীদের লাইব্রেরিমুখি করতে হবে।
”শাপলা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়” । মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার জনাব  নাসরিন আক্তার উক্ত প্রতিষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।
ইউনেস্কো ১৯৯৫ সাল থেকে এ দিনটি বিশ্ব বই ও কপিরাইট দিবস (World Book and Copyright Day) হিসেবে উদযাপন করে আসছে এবং সব সদস্য দেশকে উদযাপন করতে অনুরোধ করেছে।

বিশ্ব বই- দিবস উন্নত দেশগুলোতে দিবসটি পালিত হয় বইকে জীবনের সঙ্গে জড়িত করার জন্য, জীবনে চলার পথে সঙ্গী করার জন্য। ইউনেস্কো বিশ্ব বই-দিবস হিসেবে ২৩ এপ্রিলকে নির্বাচন করে কালজয়ী ইংরেজ লেখক উইলিয়াম শেকসপিয়ার এবং পেরুভিয়ান লেখক গার্সিলাসো দে লা ভেগাকে স্মরণ করার জন্য।উল্লিখিত দুই লেখকই এই দিনে মৃত্যু বরণ করেন।

বিশ্বব্যাপী এই দিবসের উদ্দেশ্য হলো-
ক্স    বই পাঠের অভ্যাসকে বাড়ানোর জন্য জনসচেতনতা তৈরী ও বইয়ের প্রসার ঘটানো;
ক্স    সব বয়সের মানুষের মধ্যে পাঠের অভ্যাস বাড়ানো;
ক্স    বই প্রকাশ এবং বইয়ের কপিরাইট সম্পর্কে সচেতনতা সৃষ্টি করা।

ব্রেকিং নিউজঃ