| |

সরিষাবাড়ী দূর্নীতি প্রতিরোধ কমিটি তোপের মুখে

আপডেটঃ 8:59 pm | April 26, 2017

Ad

সরিষাবাড়ী প্রতিনিধি:  জামালপুরের সরিষাবাড়ীতে গতকাল বুধবার স্থানীয় শিল্পকলা একাডেমী হলরুমে উপজেলা পরিষদের ১০টি দপ্তরের কর্মকর্তাদের নিয়ে আয়োজিত বহুল আলোচিত দুদকের গণ শুনানীর আদালত শুরু হয়। এ সময় প্রশ্নোত্তর পর্বে সরিষাবাড়ী উপজেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটিকে দূর্নীতির অভিযোগে তোপের মুখে ফেলেন ভুক্তভোগী জনতা।
বুধবার দিনভর দুদকের গণশুনানীর আদালতে উপজেলার একটি পৌরসভা ও ৮টি ইউনিয়নের ২২৪টি গ্রামের প্রত্যন্ত অঞ্চল থেকে আসা শতশত নারী পুরুষ অনুষ্ঠানে যোগ দেয়। দুদকের সংগ্রহ করা বিভিন্ন সরকারী দপ্তরের দূর্নীতি সংক্রান্ত অভিযোগের আলোকে শুরু হয় গণশুনানী।

এ সময় দৈনিক যুগান্তরের জামালপুর সরিষাবাড়ী প্রতিনিধি জহুরুল ইসলাম ঠান্ডু স্থানীয় দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটিকে চি‎িহ্নত করে বলেন, উপজেলায় দূর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির ক্ষমতাকে অপব্যবহার করে ম্যাজিষ্ট্রেসি ক্ষমতা দেখিয়ে সরকারী বেসরকারী বিভিন্ন দপ্তরের ম্াধ্যমে একাধিক দূর্নীতিতে আক্রান্ত হয়ে কালো টাকার পাহাড় জমিয়েছে।

গণশুনানী অনুষ্ঠান শেষে উপস্থিতি জনতার মধ্যে নিম্নমানের খাবার পরিবেশনের নামে আরেকটি দুর্নীতির জন্ম দেয় স্থানীয় দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটি। এ ব্যাপারে সরিষাবাড়ী পৌরসভার ক্যান্টিন মালিক তবারক আলী জানান, আমাকে প্যাকেট প্রতি ৪০ টাকা হিসেবে ৪শ ৫০টি প্যাকেট অর্ডার দিয়েছে, আমি তাই সরবরাহ করেছি।

তবারক আলী আরও জানান, আমি সরিষাবাড়ী পৌরসভা ক্যান্টিনের প্যাডে বিল ভাউচার দাখিল করলে প্রতিরোধ কমিটির সদস্য সচিব আন্নু মিয়া ও সরকার আবুল হোসেন আমার উপর মারমুখী হয়ে গালাগাল শুরু করে।

এক পর্যায়ে খাবারের বিল পরিশোধের নাম করে ৩টি সাদা কাগজে আমার স্বাক্ষর নেয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মাননীয় কমিশনার (তদন্ত) দুর্নীতি দমন কমিশন ঢাকা জনাব এএফএম আমিনুল ইসলাম।

তিনি অনুষ্ঠানে স্থানীয় দুর্নীতি দমন প্রতিরোধ কমিটির বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগের বিষয়টি তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেবেন বলে আশ্বাস দেন। এছাড়াও অনুষ্ঠানে জেলা প্রশাসক জামালপুর শাহাবুদ্দিন খান সহ জেলা ও উপজেলা সকল দপ্তরের কর্মকর্তাগণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

ব্রেকিং নিউজঃ