| |

ফুল ফুটুক আর না ফুটুকঋতুরাজ বসন্ত দুয়ারে

আপডেটঃ 8:12 pm | February 13, 2016

Ad

সেলিম হোসাইন ফুলবাড়ীয়া প্রতিনিধি : কমতে শুরু করেছে শীত। বাড়ছে তাপমাত্রা। প্রভুর অপার সৃষ্টি মহিমায় দক্ষিণ গোলার্ধে পরিভ্রমণ শেষে সূর্য তার কক্ষপথে উত্তর দিকে ধাবিত হতে থাকে। এমনিতেই প্রকৃতিতে বইতে লাগে পরিবর্তনের হাওয়া। কমতে শুরু করেছে লেপ-তুষক ও শীত বস্ত্রের দোকানে মানুষের আনাগোনা। সীমিত হয়ে যাচ্ছে লেপ কম্বলের ব্যবহার। এর মাঝে ঝড়তে শুরু করেছে গাছের পাতা। ঋতুর পালাক্রমে গত শুক্রবার বিদায় নিয়েছে শীত। পঞ্জিকা মতে, আজ রবিবার ০২ ফাল্গুন। উৎসব উন্মাদনার ঢেউ বইতে আরম্ভ করেছে সারা দেশে। প্রথম দিনে ফুলেল বসন্ত, মধুময় বসন্ত, যৌবনের উদ্দামতা বইয়ে আনার বসন্ত আর আনন্দ উচ্ছ্বাস ও উদ্বেলতায় মন-প্রাণ কেড়ে নেয় ১ম দিন। বন্ধুর বাড়ি ফুলেল সুবাসে মন আনচান করার দিন। চারদিকে কোকিলের কুহুতানে জেগে উঠার দিন। কাঁঠাল গাছে ধরেছে মুছি (মুকুল), আম গাছের শাখায় ধরেছে বৈল (মুকুল) এর চেয়ে বেশী উপভোগ করা যায় লাল পলাশ, শিমুল, ডালিয়া ইত্যাদি ফুলে।
এই ফাল্গুনে দিগন্ত জুড়া মাঠের বোরে ধানের সবুজের সমারোহ।
ফাল্গুনের স্বরুপ কবি, সাহিত্যিক, চিত্রকর, ফটো গ্রাফার, সঙ্গীত শিল্পী, সাংবাদিক সকলকেই মুগ্ধ করে।
গরম অনুভূত তথা ঋতু বদলের সাথে পানিবসন্তের মত অনেক রোগ দেখা দেয়। এসব কেন্দ্র করে চলে চিকিৎসক, কবিরাজ ও হুজুরদের পরামর্শ। দেখা যায় একুশে বই মেলা সহ গ্রাম-বাংলায় অনেক মেলা। স্কুল, কলেজে চলে বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগীতা, শিক্ষা সফর, বন-ভোজন ও অনেক তরুণ-তরুণীদের দেখা যায় রঙিন জামা কাপড় পড়ে ফুলেল দোকান গুলোতে বিড় জমাতে কিংবা বন্ধুর হাত ধরে পার্কে বসে ভালবাসার গল্পের ফুলঝুড়ি। বসন্তের মাঝে আমাদের কে স্বরণ করিয়ে দেয় ভাষা শহীদদেরকে- ১৯৫২ সালের ২১ ফেব্র“য়ারি মাতৃভাষার জন্য সালাম, বরকত, শফিক, জব্বার বুকের তাজা রক্ত ডেলে দিয়েছিল আমাদের মায়ের ভাষার জন্য।
আমাদের মাঝে বার বার ফিরে আসে ফাল্গুন, বসন্ত আসে বীর সন্তানদের অমর গাথা ইতিহাস। আমাদের কাছে  অন্য যেকোন মাসের চেয়ে ফাল্গুন সুন্দর এক আল্পনা বা ইতিহাস।

ব্রেকিং নিউজঃ