| |

স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষ্যে মাল্টি-পার্টি এডভোকেসি ফোরামের উদ্যোগে ভার্চুয়াল আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত

আপডেটঃ 12:00 am | April 25, 2021

Ad

স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষ্যে মাল্টি-পার্টি এডভোকেসি ফোরামের উদ্যোগে ভার্চুয়াল আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত।।ফিসঃ মহান স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষ্যে মাল্টি পার্টি এডভোকেসি ফোরাম, ময়মনসিংহ এর উদ্যোগে ২৪-০৪-২০২১ শনিবার সকাল ১১ টায় “স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী এবং শতবর্ষপূর্তিতে প্রত্যাশা ও করণীয় ” শীর্ষক এক ভার্চুয়াল আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। মাল্টি পার্টি এডভোকেসি ফোরাম,ময়মনসিংহ-এর সভাপতি সুমন চন্দ্র ঘোষের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক জামাল উদ্দিন আহমেদ এর সঞ্চালনায় ভার্চুয়াল আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন,ময়মনসিংহ মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি এহতেশামুল আলম,জেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি জাহাঙ্গীর আহমেদ,জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মোয়াজ্জেম হোসেন বাবুল, মহানগর বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-আহবায়ক আবু ওয়াহাব আকন্দ, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক কাজী আজাদ জাহান শামীম,দক্ষিণ জেলা বিএনপির যুগ্ম-আহবায়ক আলমগীর মাহমুদ,জেলা জাতীয় পার্টির সাহিত্য ও ক্রীড়া সম্পাদক শহীদ আমিনী রুমি,জাতীয়তাবাদী মহিলা দলের জেলা সভাপতি ফরিদা ইয়ামিন পারভীন,জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সহ- সভাপতি অধ্যাপক দিলরুবা সারমীন প্রমুখ। স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে আয়োজিত ভার্চুয়াল আলোচনা সভায় অন্যান্যের মধ্যে জেলা বিএনপির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক এ কে এম মাহবুবুল আলম,মহানগর আওয়ামী লীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদক সালেমা খাতুন সিদ্দিকা জেসমিন , জেলা আওয়ামী লীগের শিক্ষা ও পাঠচক্র বিষয়ক সম্পাদক অধ্যাপিকা তসলিমা জামান লাভলী,মহানগর আওয়ামী লীগের বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক রফিকুল ইসলাম রতন,জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি নূরজাহান মিতু,জেলা মহিলা দলের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ফারিয়া তাসনিম তিথি, মাহজাবিন জেবিন,মহানগর ছাত্রদলের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক জাহিদ হোসেন উৎপল,জাতীয় ছাত্র সমাজের কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি শরীফ উদ্দীন, জেলা যুব মহিলা লীগের নেত্রী মাহমুদা হোসেন মলি,মহানগর যুব মহিলা লীগের নেত্রী শারমীন আক্তার লাকী,দক্ষিন জেলা যুবদলের সদস্য এনামুল হক শাহীন,জেলা যুব নাগরিক সোসাইটির সভাপতি শুভ্র চক্রবর্তী, মানবতার সেবায় আমরা ময়মনসিংহের সভাপতি রায়হান আকন্দ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। আলোচনার শুরুতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন ডেমোক্রেসি ইন্টারন্যাশনালের রিজিউনাল ম্যানেজার নার্গিস আক্তার ও রিজিউনাল কো-অর্ডিনেটর নিরুপমা ভৌমিক। স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষ্যে আয়োজিত আলোচনা সভায় ময়মনসিংহ মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি এহতেশামুল আলম বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন আওয়ামী লীগ সরকার রাষ্ট্র ক্ষমতায় থাকা অবস্থায় আমরা স্বাধীনতার ৫০ বছর উদযাপন করছি।বর্তমান সরকার দেশের উন্নয়নে অসামান্য ভূমিকা রাখছেন এবং আগামী ৫০ বছরেও জঙ্গিবাদ- মুক্তিযুদ্ধবিরোধী শক্তিকে প্রতিহত করে কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্যে আমরা এগিয়ে যাব। মহানগর জাতীয় পার্টির সভাপতি জাহাঙ্গীর আহমেদ বলেন, ৩০ লক্ষ শহীদের রক্তের বিনিময়ে ও ২ লক্ষ মা-বোনের সম্ভ্রমের বিনিময়ে আমরা এই স্বাধীন দেশটি পেয়েছি, এই দেশটি আমাদের সকলের। তিনি আরো বলেন, ময়মনসিংহ সদর আসনের এমপি মহান জাতীয় সংসদের বিরোধীদলীয় নেতা বেগম রওশন এরশাদ এমপি অত্র এলাকার উন্নয়নে ব্যাপক ভূমিকা রেখেছেন এবং আগামীদিনেও আমরা ময়মনসিংহের উন্নয়নের স্বার্থে ঐক্য ধরে রাখবো বলে বিশ্বাস করি। ভার্চুয়াল আলোচনা সভায় ময়মনসিংহ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মোয়াজ্জেম হোসেন বাবুল বলেন, রাজনীতিতে মত-পথের ভিন্নতা থাকতেই পারে কিন্তু আমরা ময়মনসিংহের উন্নয়নের প্রশ্নে একমত। তিনি আরো বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুকন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে স্বাধীনতার ৫০ বছরে আমাদের অর্জন ঈর্ষণীয়, তাই উন্নয়নের ধারা বজায় রাখতে এবং আগামী ৫০ বছরে বাংলাদেশকে পৃথিবীর বুকে একটি সমৃদ্ধশালী রাষ্ট্র হিসেবে দেখতে হেফাজত- জামায়াত- জঙ্গিবাদ ও স্বাধীনতাবিরোধী চক্রকে বাদ দিয়ে রাজনীতিতে ঐক্যের সুবাতাস আনতে হবে জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে। ময়মনসিংহ মহানগর বিএনপি’র সিনিয়র যুগ্ম-আহ্বায়ক আবু ওয়াহাব আকন্দ বলেন, শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের হাতে গড়া বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল উন্নয়নের রাজনীতিতে বিশ্বাস করে এবং আমরা দেশনেত্রী খালেদা জিয়ার নেতৃত্বাধীন সরকারে থাকাকালীন সময়ে এই দেশের কাঙ্খিত উন্নয়নে ব্যাপক ভূমিকা রেখেছি। তিনি আরো বলেন, স্বাধীনতার ৫০ বছরে আমাদের প্রত্যাশা, আগামী ৫০ বছরে আমাদের রাষ্ট্রটি হবে সম্পূর্ণ গণতান্ত্রিক যেখানে বাক স্বাধীনতা থাকবে,ভোটের অধিকার থাকবে এবং রাষ্ট্রটি আমলা ও পুলিশ নির্ভর রাষ্ট্র হবে না। তিন ঘণ্টাব্যাপী চলা ভার্চুয়াল আলোচনা সভায় বক্তারা প্রায় অভিন্ন স্বরে বলেন, স্বাধীনতার ৫০ বছরে আমরা আমাদের কাঙ্খিত লক্ষ্যে পৌঁছাতে পারিনি যার অন্যতম প্রধান কারণ আমাদের রাজনৈতিক সহিষ্ণুতার অভাব ও উন্নয়নের প্রশ্নে রাজনৈতিক অনৈক্য। আলোচনা সভার শেষাংসে সকল বক্তাই আশাবাদ ব্যক্ত করেন, স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে আমাদের একটাই চাওয়া হোক আগামী ৫০ বছর পর মহান স্বাধীনতার শতবর্ষপূর্তিতে পরবর্তী প্রজন্মের দেশপ্রেমিক রাজনীতিবিদরা ঐক্যবদ্ধ হয়ে লাল সবুজের পতাকাবাহী এই সোনার বাংলাকে পৃথিবীর বুকে একটি সমৃদ্ধশালী ও উন্নত রাষ্ট্রে পরিণত করবে।

ব্রেকিং নিউজঃ