| |

ময়মনসিংহ শহর কমিটি বর্তমানে মহানগর যুবলীগ

আপডেটঃ 6:04 pm | September 12, 2021

Ad

ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশন গঠনের পর শহর যুবলীগ জেলার মর্যাদা সম্পন্ন মহানগর যুবলীগে রূপান্তরিত হয়। ৯/১১/২০১৭ তারিখে প্রায় চার বছর পূর্বে ময়মনসিংহ জেলা যুবলীগের পাশাপাশি ময়মনসিংহ মহানগর যুবলীগ কমিটি গঠিত হয়। ৩৩টি ওয়ার্ড নিয়ে ময়মনসিংহ মহানগর যুবলীগের সাংগঠনিক কমিটি গঠিত ।৭৫ পূর্ববর্তী সময়ে কারা শহর যুবলীগের দায়িত্ব পালন করেছেন তা আমার জানা নেই তবে ৭৫ পরবর্তী সময়ে সর্বপ্রথম মরহুম দবির উদ্দিন ভূইয়া কে আহ্বায়ক , প্রদীপ ভৌমিককে যুগ্ন আহ্বায়ক করে একটি আহবায়ক কমিটি গঠিত হয়। পরবর্তী সময়ে জেলা যুবলীগের সভাপতি মরহুম মজিবর রহমান খান মিল্কি ও সাধারণ সম্পাদক অ্যাড, আব্দুর রাজ্জাক নির্বাচিত হওয়ার পর জরুরী সভা ডেকে জেলা যুবলীগের কার্যকরী কমিটি ২৪ ঘণ্টার নোটিশে কার্যকরী কমিটির মিটিং করে উক্ত শহর কমিটিকে বিলুপ্ত ঘোষণা করে। তৎকালীন ৮ নং ওয়ার্ডের সাবেক কমিশনার আসাদুজ্জামান আসাদ কে শহর যুবলীগের আহবায়ক নির্বাচিত করা হয় । বাকশাল গঠিত হলে আসাদ মুজিবুর রহমান মিল্কির নেতৃত্বে বাকশালে যোগদান করেন। পরবর্তী সময়ে এহতেশামুল আলম কে সভাপতি ও হাফিজুর রহমান খান আরজুকে সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত করা হয়। তারপর যাকে আহবায়ক হিসেবে শহর যুবলীগের আহ্বায়কের দায়িত্ব দেয়া হয় সে হলো এবি সিদ্দিক , যুগ্ম আহ্বায়ক মরহুম ইমতিয়াজ জুবায়ের খোকা। আহ্বায়কের দায়িত্ব পরবর্তীতে যার উপর ন্যস্ত হয় তিনি হলেন এডভোকেট আজাহারুল ইসলাম, বর্তমান ময়মনসিংহ জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক। আমি যখন জেলা যুবলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি সেই সময় সম্মেলনের মাধ্যমে জনাব রফিকুল ইসলাম জাহাঙ্গীর সভাপতি ও আজাদুর রহমান আজাদ সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশন গঠনের পর জেলার সমমর্যাদা দিয়ে ময়মনসিংহ মহানগর যুবলীগ গঠিত হয়। ময়মনসিংহ মহানগর যুবলীগের প্রতিষ্ঠাকালীন আহবায়ক মনোনীত হন মো: শাহিনুর রহমান যুগ্ন-আহবায়ক ১। রাসেল খান পাঠান ২। রাসেল আব্দুল্লাহ । নির্ধারিত তিন মাসের স্থলে চার বছর অতিক্রান্ত হলেও ময়মনসিংহ মহানগর যুবলীগের কমিটি এখন পর্যন্ত ওয়ার্ড গুলির সম্মেলন সমাপ্ত করতে পারেনি। যুবলীগের জেলা ও শহর কমিটির সাবেক নেতৃবৃন্দ মনে করেন আহবায়ক ও যুগ্ন আহবায়কদের মধ্য সমন্বয়হীনতা এর মূল কারণ। ময়মনসিংহ আওয়ামী লীগের অতীতের বিবাদমান দুই গ্রুপের মধ্যে থেকে সমন্বয় করে এই কমিটি গঠন করা হয়েছিল বলে কোন কোন ক্ষেত্রে বর্তমান আহ্বায়ক ও যুগ্ম-আহ্বায়করা সাংগঠনিক কর্মকাণ্ডে ঐক্য মতে পৌঁছতে পারছেনা। তবে জাতীয়, রাষ্ট্রীয় ,ব্যক্তিগতএবং দলীয় কর্মসূচিতে পৃথক পৃথকভাবে তাদের সন্তোষজনক উপস্থিতি লক্ষ্য করা যায়। নবগঠিত মহানগর যুবলীগের সাংগঠনিক কর্মকাণ্ড যে পর্যায়ে হওয়া উচিত ছিল বর্তমানে তা অনুপস্থিত। এর মূল কারণ যুবলীগ কর্মীরা বিশেষ বিশেষ ব্যক্তির প্রতি অনুগত বিধায় এ পরিস্থিতির উদ্ভব হয়েছে। আমরা যারা সাবেক যুবলীগ কর্মী তারা মনে করি এই অবস্থা থেকে বেরিয়ে এসে ঐক্যবদ্ধ ভাবে সংগঠনটি গড়ে তুলতে না পারলে আগামীতে মহানগর যুবলীগ একটি দুর্বল সংগঠন হিসেবে চিহ্নিত হবে। আমরা যারা অতীতে যুবলীগের নেতাকর্মী ছিলাম তারা মনে করি আমাদের ‌ মুজিব আদর্শই একমাত্র আদর্শ কোন ব্যক্তি নয়। জননেত্রী শেখ হাসিনা আমাদের নেত্রী আমাদের তার নির্দেশেই কাজ করা উচিত। আগামী ১১ সেপ্টেম্বরের বর্ধিত সভার পর থেকে মহানগর যুবলীগ সাংগঠনিকভাবে গতিশীল হবে ও একটি ঐক্যবদ্ধ মুজিব আদর্শের যুবলীগ হিসেবে গড়ে উঠবে এ প্রত্যাশা সকল মুজিব সৈনিকদের ।আমার জানামতে যে কয়জন যুবলীগ নেতাকর্মী দুঃসময়ে যুবলীগ গঠনের জন্য ৭৫ পরবর্তী সময়ে নেতৃত্বে থেকে দায়িত্ব পালন করেছেন , বর্তমানে করছেন শহর আওয়ামী যুব লীগ ও বর্তমান মহানগর আওয়ামী যুবলীগের তাদের বিবরণ তুলে ধরলাম:–আহবায়ক:-দবির উদ্দিন ভূইয়া, যুগ্ন আহবায়ক প্রদীপ ভৌমিক। মজিবুর রহমান খান মিল্কি ময়মনসিংহ জেলা যুবলীগের সভাপতি ও অ্যাডভোকেট আব্দুর রাজ্জাক সাধারণ সম্পাদক হওয়ার পর জরুরী কার্যকরী কমিটির মিটিং ডেকে উপরোক্ত আহবায়ক কমিটিটি ভেঙ্গে দেয় এবং ৮ নং ওয়ার্ডের সাবেক কাউন্সিলর আসাদকে শহর আওয়ামী যুবলীগের আহবায়ক করেন। পরবর্তীতে আওয়ামী লীগ দুই ভাগে বিভক্ত হলে মজিবর রহমান খান মিল্কির নেতৃত্বে আসাদ বাকশাল সমর্থিত যুব লীগে যোগ দেয়। আওয়ামী লীগের সেই সংকটময় সময় শহর যুবলীগের সভাপতি হিসাবে হাল ধরেন আজকের মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি এহতেশামুল আলম ও সাধারণ সম্পাদক হন হাফিজুর রহমান আরজু। উনারা আওয়ামী লীগে চলে যাওয়ার পর আহ্বায়কের দায়িত্ব পান এবি সিদ্দিক। পরবর্তীতে শহর কমিটি ভেঙ্গে দিয়ে আহ্বায়ক হিসেবে দায়িত্ব দেয়া হয় বর্তমান জেলা আওয়ামী যুবলীগের আহবায়ক অ্যাডভোকেট আজহারুল ইসলামকে। শহর আওয়ামী যুবলীগ যখন মহানগর আওয়ামী যুবলীগে রূপান্তরিত হল সেই সময় প্রতিষ্ঠাকালীন আহবায়ক হলেন শাহিনুর রহমান আর যুগ্ম আহ্বায়করা হলেন, রাসেল পাঠান ও রাসেল আব্দুল্লাহ।

ব্রেকিং নিউজঃ