| |

রাজনীতিতে বায়োডাটার যুগ

আপডেটঃ 12:24 am | March 28, 2022

Ad

১৫ বছর যাবত আওয়ামীলীগ ক্ষমতায়। এ সময়টাকে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের কর্মীদের জন্য শান্তিকালীন সময় হিসেবে বিবেচিত। এই শান্তিকালীন সময়ে কর্মী ,নেতা ও সমর্থকের সংখ্যাও বেড়েছে এই দলটির। এখন কোন কর্মীর জীবন বাজি রেখে রাজপথে লড়াই-সংগ্রাম করতে হয় না। রাজনীতির কারণে পুলিশের হয়রানি থেকে মুক্ত শান্তিতে নিজ বাসায় ঘুমানো যায়। বিশেষ যোগ্যতা থাকলে অর্থের অভাব নেই, বিভিন্ন পদ্ধতিতে হাতে টাকা এসে যায়। এখন আওয়ামী লীগ ও তার অঙ্গ সহযোগী সংগঠনসমূহের নেতা হতে হলে লড়াই-সংগ্রামের প্রয়োজন নেই। প্রয়োজন নেই সাংগঠনিক শক্তি প্রকাশের। টাকা ও পেশী শক্তি এবং ক্ষমতাসীন ব্যক্তিবর্গের আশীর্বাদ থাকলেই হওয়া যায় নেতা। আশীর্বাদ অর্জন করতে প্রয়োজন আর্থিক সচ্ছলতা, চাটুকারিতা ও তৈলবাজি। এ অবস্থায় সহজ পদ্ধতিতে নেতা নির্বাচনের একমাত্র পথ বায়ো ডাটা সিস্টেম। বায়োডাটা জমা দিয়ে প্রয়োজনীয় শর্তাবলী পূরণ করলেই হওয়া যায় নেতা। রাজনীতিতে ত্যাগ ও অভিজ্ঞতার প্রয়োজন নেই। নেতা হতে প্রয়োজন নেই তৃণমূলের নেতাকর্মীদের সমর্থনের।সুধীজনরা একে বায়োডাটার যুগ বলে আখ্যায়িত করেছে।

ব্রেকিং নিউজঃ