| |

শ্রীলংকার কাছ থেকে বাংলাদেশের শিক্ষা নিতে হবে

আপডেটঃ 12:51 pm | April 04, 2022

Ad

শ্রীলংকা নামক রাষ্ট্রটি আজ ভয়ানক অর্থনৈতিক বিপর্যয়ের সম্মুখীন। এর জন্য দায়ী অর্থনৈতিক অব্যবস্থা, ক্ষমতায় টিকে থাকার রাজনীতি, গোষ্ঠীতন্ত্র, পরিবার তন্ত্র ও প্রশাসনিক এবং সরকারি দলের নেতাকর্মীদের দুর্নীতি। দেশটিতে চরম খাদ্যাভাব, তীব্র জ্বালানি সংকট, মুদ্রার বৈদেশিক রিজার্ভ শূন্যের কোঠায়। শুধু তাই নয় মেগা প্রকল্প ও দৃশ্যমান উন্নয়ন দেখানোর জন্য বেপরোয়া অর্থ খরচ শ্রীলঙ্কাকে একটি দরিদ্রতম রাষ্ট্রে পরিণত করেছে। শ্রীলংকার আমদানিকৃত পণ্যের মূল্য পরিশোধের ক্ষমতা ১০ দিনের নেই বর্তমানে। প্রতিদিন ১০ থেকে ১২ ঘণ্টা লোডশেডিং চলছে। জ্বালানি তেলের প্রচন্ড সংকট চলছে। বিভিন্ন দেশ ও দাতা সংস্থা গুলি থেকে যে সমস্ত ঋণ করেছে বর্তমানে দেশটির তা পরিশোধের ক্ষমতা নেই । বিভিন্ন অর্থনীতিবিদরা মনে করেন মেগা প্রকল্প গুলি গ্রহণ ও প্রকল্প বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে দীর্ঘ সময় ব্যয় এবং প্রকল্পে অতিরিক্ত অর্থব্যয় শ্রীলংকার এ অবস্থার জন্য দায়ী। শ্রীলংকা এখন চলছে পারিবারিক শাসনে। প্রেসিডেন্ট, প্রধানমন্ত্রী ও অনেক পার্লামেন্ট সদস্য, সরকার দলীয় নেতা, একই পরিবারের। মেগা প্রকল্পগুলি যেহেতু চীন ও ভারতের আর্থিক ঋণের উপর নির্ভর করে করা হয়েছে সেগুলি এখন সুদসহ ফেরত দিতে হচ্ছে। বিপুল পরিমাণ ঋণ শ্রীলংকার পক্ষে এখন শোধ করা সম্ভব হচ্ছে না। তাই মুখ থুবরে পড়েছে শ্রীলংকা নামক রাষ্ট্রের অর্থনৈতিক অবস্থা। রপ্তানি বহুমুখী প্রকল্পগুলিকে হাতে না নিয়ে মেগা প্রকল্প গুলি হাতে নেওয়া হয়েছে। যা অর্থনৈতিকভাবে কোন লাভজনক নয়। উৎপাদনমুখী প্রকল্পগুলো বাস্তবায়ন না করে যদি মেগা প্রকল্প গুলি বাস্তবায়নের পিছে রাষ্ট্রের বৈদেশিক মুদ্রা ব্যয় করা হয় তাহলে অর্থনীতি মুখ থুবড়ে পড়তে বাধ্য। শ্রীলংকার কাছ থেকে বাংলাদেশেরও শিক্ষণীয় ব্যাপার আছে। করুণা কালীন সময়ে স্বল্প পুঁজির ব্যবসায়ী ও শ্রমজীবী মানুষের অর্থনৈতিক অবস্থা দরিদ্রসীমার নিচে নেমে গেছে। সরকারি হিসাব অনুযায়ী ২০ ভাগ কিন্তু বাস্তবে অনেক অর্থনীতিবীদ মনে করেন তা চল্লিশ ভাগের নিচে আছে। নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্য চিকিৎসা ব্যবস্থা অতীতের চাইতে বেশি মুদ্রাস্ফীতির মুখোমুখি এই অবস্থায় সরকার অবশ্য স্বীকার করেছেন মানুষ কষ্টে আছে। আমাদের দেশে অবশ্য অপ্রয়োজনীয় মেগা প্রকল্প এখনো গ্রহণ করা হয়নি তবে যেগুলি গ্রহণ করা হয়েছে সেগুলি বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে যেন সময় বেশি না লাগে ও খরচ বৃদ্ধি না হয় সেদিকে সরকারকে লক্ষ রাখতে হবে। যাতে করে বৈদেশিক মুদ্রার ওপর অপ্রয়োজনীয় চাপ না পড়ে। বাংলাদেশ সরকারকে সময় থাকতেই সতর্ক হতে হবে। শ্রীলংকার মত চরম বিপদজনক অবস্থার মধ্য গিয়ে আমাদের পড়তে না হয় তার জন্য সরকারকে পরিবারতন্ত্র, গোষ্ঠীতন্ত্র মুক্ত থাকা, এবং সরকারি দলের নেতাকর্মী ও প্রশাসনিক আমলাদের দুর্নীতিমুক্ত রাখতে হবে। সুবিধাবাদী ব্যবসায়ীক শ্রেণীকে অবশ্যই নিয়ন্ত্রণে রাখতে হবে। তাহলেই আমরা উচ্চ আয়ের দেশে পরিণত হতে পারব, নয়তো শ্রীলঙ্কার মতো দরিদ্র রাষ্ট্রে পরিনত হব।

93Vashani Bashar, Tayem Hasan and 91 others24 commentsLikeCommentShare

ব্রেকিং নিউজঃ