| |

গৌরীপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে ভিপি বাবুল সভাপতি প্রার্থী

আপডেটঃ 2:47 pm | September 12, 2022

Ad

স্টাফ রির্পোটার ॥ সাবেক ছাত্রলীগ নেতা ময়মনসিংহ জেলা কৃষকলীগের সাধারন সম্পাদক গোলাম মোস্তফা বাবুল ভিপি বাবুল আসন্ন ১৪ সেপ্টেম্বর গৌরীপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে সভাপতি প্রার্থী। তিনি পারিবারিক ভাবেই জাতির জনকের আদর্শের সৈনিক হিসাবে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের একনিষ্ট কর্মী হিসাবে আওয়ামীলীগের দলীয় রাজনীতি শুরু করেন। গৌরীপুর আসনে ২০১৪ সালের ৫ই জানুয়ারী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের মনোনয়ন চেয়ে গনসংযোগ ও ব্যাপক প্রচারনা করেন। মনোনয়ন না পেয়ে দলীয় সিদ্ধান্তের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে জননেত্রী শেখ হাসিনার মনোনীত প্রার্থী প্রয়াত স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী ডা: ক্যাপ্টেন (অব) মজিবুর রহমান ফকিরের পক্ষে ব্যাপক গনসংযোগ ও প্রচারনা চালিয়ে নৌকার জয়লাভে গুরুত্বপুর্ন ভুমিকা পালন করেন। একই অবস্থায় ২০১৬ সালে উপনির্বাচনে মনোনয়ন চেয়ে ব্যাপক গনসংযোগ ও প্রচারনা চালান। মনোনয়ন না পেয়ে দলীয় সিদ্ধান্তের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে জননেত্রী শেখ হাসিনার মনোনীত প্রার্থী বীরমুক্তিযোদ্ধা নাজিম উদ্দিন আহমেদ এর পক্ষে ব্যাপক গনসংযোগ ও প্রচারনা চালিয়ে নৌকার বিজয়লাভে গুরুত্বপুর্ন ভুমিকা পালন করেন। ২০১৮ সালে পুনরায় মনোনয়ন চান এবং না পেয়ে নৌকার মনোনীত প্রার্থী বীরমুক্তিযোদ্ধা নাজিম উদ্দিন আহমেদ এর পক্ষে কাজ করেন। ভিপি বাবুল ৯০ এর গনঅভ্যথ্যানে স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলনে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শে জননেত্রী শেখ হাসিনার একজন সৈনিক হিসাবে অগ্রনী ভুমিকা পালন করেন। ৯১ এর নির্বাচনে বিএনপি সরকারের ক্লিনহার্ট অপারেশনে নির্যাতিত হন। ৯৬ এর ১৫ই ফেব্রয়ারী নির্বাচন প্রতিহত ও অসহযোগ আন্দোলন বেগবাস করতে রাজপথে থাকাকালীন সময়ে জোট সরকারের পেটুয়া বাহিনী ও সরকারদলীয় নেতাকর্মীদ্বারা নির্যাতিত হন। ২০০১ সালে নির্বাচনের পর দলীয় সকল কার্যক্রম বাস্তবায়ন, বিএনপি জামাত জোটের ষড়যন্ত্র বিরোধী সংকট মোকাবেলায় অগ্রসেনানী হিসাবে ভুমিকা পালন করেন। ২১ আগষ্ট গ্রেনেট হামলার বিরোদ্ধে জনমত গঠন ও তৃনমুল পর্যায়ে একজন নিবেদিত প্রান হিসাবে কাজ করেন। ১১ জানুয়ারী ২০০৭ এর পরবর্তী সময়ে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সভানেত্রী শেখ হাসিনার কারামুক্তি দাবীসহ দলীয় কর্মসুচীতে নেতৃত্ব দেন। ১/১১ এর সময় সরকারের নিপিড়ন নির্যাতনের বিরোদ্ধে জনমত গঠন ও নির্বাচনের জন্য প্রস্তুতিমুলক কর্মকান্ড পরিচালনায় অগ্রনী ভুমিকা পালন করেন। এছাড়া শিক্ষা জীবনে ভিপি থাকা অবস্থায় তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার বানী সম্বলিত ১৫ আগষ্টে কালো আগষ্ট নামে স্বরনিকা প্রকাশ করেন। বিভিন্ন সামাজিক উন্নয়ন মুলক কাজ, মানুষের পাশে থেকে কাজ করা, বিভিন্ন শিক্ষা ও ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে পৃষ্ঠপোষকতা করেন। শ্যামগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ের সভাপতি হিসাবে দ্বায়িত্ব পালন করা অবস্থায় বিদ্যালয়ের ভৌত অবকাঠামো, শিক্ষা, সাংস্কৃতিক ও খেলাধুলার মান উন্নয়নে গুরুত্বপুর্ন ভুমিকা পালন করেন। তিনি জাতীয় মানসম্পন্ন শহীদ মিনার নির্মানসহ বিভিন্ন প্রকার উন্নয়ন মুলক কাজ করেন। গৌরীপুর জাতীয় সংসদ নির্বাচনী এলাকায় স্কুল, কলেজ, মাদরাসা ও অন্যান্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ঘুরে ঘুরে লাইব্রেরীতে সংরক্ষন ও বঙ্গবন্ধুকে জানার জন্য জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবুর রহমানের আত্নজীবনী বইখানা স্বহস্তে বিতরন করেন। বর্তমান সরকার তথা জননেত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়ন ও সাফল্যের চিত্র তুলে ধরে বিভিন্ন সময় গৌরীপুর নির্বাচনী এলাকায় গানে গানে প্রচারনা ও প্রচারপত্র (লিফলেট) বিতরন এবং ১০ ফুট ১০ ফুট সাইজের দুই শতাধিক বিলবোর্ড স্থাপন করেন। ময়মনসিংহ জেলা কৃষকলীগের সাধারন সম্পাদক হিসাবে দ্বায়িত্ব পাওয়ার পর ১৩টি উপজেলায় শক্তিশালী সংগঠন হিসাবে গড়ে তুলতে বলিষ্ঠ ভুমিকা পালন করেন। বিশেষ করে গৌরীপুর উপজেলা কমিটিকে ঢেলে সাজানো, প্রতিটি ইউনিয়ন কমিটি ও ওয়ার্ড কমিটি করে জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করার ভিশন বাস্তবায়ন করেন। ভিপি বাবুল এছাড়াও বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক কর্মকাডের সাথে জড়িত রয়েছেন। তার রচনা ও প্রযোজনায় নাটক অন্য প্রহর চ্যানেল আইতে প্রচারিত হয়েছে।

ব্রেকিং নিউজঃ