| |

তরুণ যুবরাজের নতুন ভিশন, সরকারে ব্যাপক পরিবর্তন

আপডেটঃ 6:40 pm | May 09, 2016

Ad

রিয়াদ (সৌদি আরব) : সৌদি আরবের তেল ও খনিজ সম্পদ ইঞ্জিনিয়ার আলী ইবনে ইব্রাহীম আল নাইমীসহ একসঙ্গে ৫ মন্ত্রীকে অপসারণের পাশাপাশি দেশটির বেশ কয়েকটি মন্ত্রণালয়ের শীর্ষ কর্মকর্তা পর্যায়েও পরিবর্তন আনা হয়েছে। নতুন নামকরণ করা হয়েছে বেশ কয়েকটি মন্ত্রণালয়েরও। এসব পরিবর্তন সম্পর্কে রাজকীয় ফরমান জারি করেছেন সৌদি বাদশা সালমান বিন আব্দুল আজিজ আল সৌদ।

গত শনিবার (৭ মে) এই সংক্রান্ত রাজকীয় আদেশ জারি করা হয়।

সৌদি আরবের ডেপুটি ক্রাউন প্রিন্স (যুবরাজ) মোহাম্মদ বিন সালমান বিন আব্দুল আজিজ আল সৌদ ঘোষিত ভিশন ২০৩০ বাস্তবায়নের অংশ হিসেবে সরকারের উচ্চ পর্যায়ে ব্যপক এ পরিবর্তন করা হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

মন্ত্রীর দায়িত্ব থেকে তেল ও খনিজসম্পদ মন্ত্রীর পাশাপাশি অব্যাহতি দেয়া হয়েছে হজমন্ত্রী ড. বানদার বিন মোহাম্মদ বিন হামজা আসসাদ হাজ্জার, শিল্প ও বাণিজ্য মন্ত্রী তৌফিক বিন ফাওয়াজ বিন মোহাম্মদ আল রাবিয়াহ (নতুন দায়িত্ব দেয়া হয়েছে স্বাস্থ্য মন্ত্রী হিসেবে), পরিবহন মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার আব্দুল্লাহ বিন আব্দুল রহমান আল মুকবিল, সমাজকল্যাণ মন্ত্রী ড. মাজেদ বিন আব্দুল্লাহ আল কাসাবি।

নতুন মন্ত্রী হয়েছেন- ইঞ্জিনিয়ার খালিদ বিন আব্দুল আজিজ আল ফালিহ (এনার্জি, শিল্প ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়), সোলাইমান বিন আব্দুল্লাহ আল হামদান (পরিবহন মন্ত্রণালয়), ড. মোহাম্মদ সালেহ বিন তাহের বেনতিন (হজ অ্যান্ড ওমরাহ মন্ত্রণালয়), যুবরাজ ড. তুর্কি বিন মোহাম্মদ বিন সৌদ আল কাবের আল সৌদ (সৌদি বাদশার উপদেষ্টা, মন্ত্রীর পদ মর্যাদা), যুবরাজ খালিদ বিন সৌদ বিন খালিদ আল সৌদ (শুরা কাউন্সিল), যুবরাজ বানদার বিন সৌদ বিন মোহাম্মদ আল সৌদ (রয়েল কোর্ট), যুবরাজ ফয়সাল বিন খালিদ বিন সুলতান বিন আব্দুল আজিজ আল সৌদ (রয়েল কোর্টের উপদেষ্টা), যুবরাজ মোহাম্মদ বিন আব্দুল রহমান বিন আব্দুল আজিজ আল সৌদ (রয়েল কোর্টের উপদেষ্টা), যুবরাজ আব্দুল আজিজ বিন সৌদ বিন নায়েফ বিন আব্দুল আজিজ আল সৌদ ( স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের উপদেষ্টা), আলী ইবনে ইব্রাহীম আল নাইমী (রয়েল কোর্টের উপদেষ্টা), শেখ ড. সাদ বিন নাসের আল সাথরী (রয়েল কোর্টের উপদেষ্টা এবং সিনিয়র স্কলার কমিশনের মেম্বার), রয়েল কোর্টের উপদেষ্টা থেকে ড. মোহাম্মদ বিন সোলাইমান আল জাসেরকে অব্যাহতি দিয়ে উপদেষ্টা করা হয়েছে মন্ত্রিসভা কাউন্সিলের।

অব্যাহতি দেয়া হয়েছে সৌদি অ্যারাবিয়ান মনিটারি এজেন্সির গভর্নর ড. ফাহাদ বিন আব্দুল্লাহ বিন আব্দুল লতিফ আল মোবারক, জেনারেল অথোরিটি অব অডিট ব্যুরোর প্রেসিডেন্ট ওসামাহ বিন জাফর ফাকিহ, বন্যপ্রাণি অথোরিটির প্রেসিডেন্ট যুবরাজ বানদার বিন সৌদ বিন মোহাম্মদ আল সৌদকে।

নতুন দায়িত্ব পেয়েছেন অথোরিটি অব জেনারেল অডিট ব্যুরোর প্রেসিডেন্ট ড. হোসাইন বিন আব্দুল মোহসিন আল আনকারি, ড. সোলাইমান বিন আব্দুল্লাহ আবালখাইলকে ইমাম মোহাম্মদ বিন সউদ বিশ্ববিদ্যালয়ের রেকটর, আহমেদ বিন সালেহ বিন আলী আল আজলাকে ক্রাউন প্রিন্সের বিশেষ সচিব, খালিদ বিন আব্দুল আজিজ আল সোয়ালিমকে সৌদি বাদশার স্পেশাল অ্যাফেয়ার্স বিভাগের ডেপুটি প্রেসিডেন্ট, মোহাম্মদ বিন আব্দুল্লাহ বিন সৌদ আল দায়েলকে করা হয়েছে স্বরাষ্ট মন্ত্রণালয়ের উপদেষ্টা।

দেশটির পানি ও বিদ্যুৎ মন্ত্রণালয় বাতিল করা হয়েছে। এছাড়া নাম পরিবর্তিত করা হয়েছে বেশ কয়েকটি মন্ত্রণালয় ও বিভাগের। শিল্প ও বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের নামকরণ  করা হয়েছে বাণিজ্য ও বিনিয়োগ মন্ত্রণালয়, তেল ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়কে এনার্জি, শিল্প ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়, কৃষি মন্ত্রণালয়কে পরিবেশ, পানি ও কৃষি মন্ত্রণালয়, হজ মন্ত্রণালয়কে করা হয়েছে হজ এবং ওমরাহ মন্ত্রণালয়, শ্রম ও সোশ্যাল অ্যাফেয়ার্স মন্ত্রণালয়কে শ্রম ও সোশ্যাল ডেভেলপমেন্ট মন্ত্রণালয়, জেনারেল প্রেসিডেন্সি মেটিওরোলজি এনভায়রনমেন্ট প্রোটেকশন মন্ত্রণালয়ের নামকরণ করা হয়েছে জেনারেল অর্থোরিটি ও মেটিওরোলজি অ্যান্ড এনভায়রনমেন্ট প্রটেকশন মন্ত্রণালয় হিসেবে (এর একটি পরিচালনা বোর্ড থাকবে), জেনারেল প্রেসিডেন্সি ফর ইয়ুথ ওয়েলফেয়ার মন্ত্রণালয় হয়েছে জেনারেল অথোরিটি ফর স্পোর্টস (এটির একটি পরিচালনা বোর্ড থাকবে যায় চেয়ারম্যান নিয়োগ হবে রাজকীয় ফরমানের মাধ্যমে), পাবলিক এডুকেশন ইভেলুয়েশন কমিশন মন্ত্রনালয়কে করা হয়েছে এডুকেশন ইভেলুয়েশন কমিশন, ডিপার্টমেন্ট অব যাকাত অ্যান্ড ইনকাম টেক্স  হয়েছে জেনারেল অথোরিটি অব যাকাত অ্যান্ড ইনকাম।

উল্লেখ্য, সৌদি আরবের ক্ষমতায় বসার এক বছরের মাথায় মোহাম্মদ বিন সালমান আনুমানিক ৩০জন রাজপুত্রকে নিয়ে পাল্টাতে যাচ্ছেন তাদের অর্থনৈতিক সামগ্রিক পরিকল্পনা। নতুন পরিকল্পনা অনুযায়ী, আগামী ২০৩০ সালকে সৌদি কর্তৃপক্ষ নতুন অর্থনৈতিক খাত উদ্ভাবনের মাইলফলক হিসেবে ধরেছেন।

এই পরিকল্পনাকে ‘সৌদি ভিশন ২০৩০’ বলে ঘোষণা দিয়েছেন তারা। তেল সম্পদের ওপর নির্ভরশীলতা কমিয়ে অন্য খাতে প্রবৃদ্ধি অর্জনের লক্ষ্যেই এই পরিকল্পনা। গত চার বছরে আশীর্বাদস্বরূপ খনিজ তেল সৌদি আরবের জন্য অভিশাপ হিসেবে দেখা দিয়েছে। এমতাবস্থায় সৌদি কর্তৃপক্ষ আগামী কয়েক বছরের মধ্যেই রাষ্ট্রায়ত্ত তেল কোম্পানি সৌদি আরামকো’র শেয়ার বিক্রি করার ঘোষণা দিয়েছে। শেয়ার বিক্রির টাকা দিয়ে পাবলিক ইনভেস্টমেন্ট ফান্ড গঠন করা হবে। যা দিয়ে রাষ্ট্রের শিক্ষা, স্বাস্থ্য, বিমানবন্দর এবং বেসরকারি খাতে উন্নয়ন করা হবে বলে প্রাথমিক পরিকল্পনায় বলা হয়েছে।

ব্রেকিং নিউজঃ