| |

ময়মনসিংহ বিভাগীয় শহরে ডিআইজি মামুনের নির্দেশে প্রথম বারের মত নারী ট্রাফিক পুলিশ দায়িত্ব পালন

আপডেটঃ 2:04 am | June 14, 2016

Ad

প্রদীপ ভৌমিক:

বাংলাদেশের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা নারী-পুরুষের সমঅধিকার বাস্তবায়নের লক্ষ্যে প্রশাসন থেকে শুরু করে সর্বক্ষেত্রে পুরুষের পাশাপশি নারীদের কাজ করার সুযোগ সৃষ্টি করে দিচ্ছেন। তার ধারাবাহিকতায় পুলিশ প্রশাসনের আইন শৃংখলা উন্নয়নের লক্ষ্যে উল্লেখযোগ্য ভুমিকা পালনের জন্য পুরুষদের পাশাপাশি বিপুল সংখ্যক নারী অফিসার ও কনস্টেবল নিয়োগ করেছে বর্তমান সরকার। বাংলাদেশ পুলিশে অনেক উর্ধতন পুলিশ কর্মকর্তা ও পুলিশ সদস্যরা সততা, নিষ্ঠার সাথে সুনামের সহিত তাদের উপর অর্পিত দায়িত্ব পালন করছে। ময়মনসিংহ জেলা পুলিশের চৌকুষ পুলিশ অফিসার সিনিয়র এ এসপি সীমা রানী সরকার ও এএসপি ইন সার্ভিস সেন্টার ফাল্গুনী নন্দী সুষ্টুভাবে দায়িত্ব পালনের ক্ষেত্রে প্রশংসার দাবী রাখে। কোতুয়ালী মডেল থানার দায়িত্বপ্রাপ্ত অফিসার ইনচার্জ কামরুল ইসলাম জানান, কোতুয়ালী থানায় ২জন মহিলা অফিসার ও ১০জন কনস্টেবল কর্মরত আছেন। নারী পুলিশ সদস্যরা তাদের উপর অর্পিত দায়িত্ব পুরুষ পুলিশদের পাশাপাশি নিষ্ঠার সাথে পালন করে যাচ্ছে। যানজটের শহর ময়মনসিংহে এবার সংযোজিত হলো নারী ট্রাফিক পুলিশ। এতদিন পর্যন্ত ময়মনসিংহ জেলা ট্রাফিক পুলিশে উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তা থেকে শুরু সাধারন পুলিশ সদস্যরা কাজ করে গেলেও জেলা ট্রাফিক পুলিশে কোন নারী সদস্য ছিলনা। ময়মনসিংহ বিভাগের রেঞ্জ ডিআইজি চৌধুরী আব্দুল্লাহ আল মামুন এর নির্দেশে ময়মনসিংহ জেলা পুলিশ প্রশাসন ময়মনসিংহ শহরের ট্রাফিক পুলিশে ৮জন নারী পুলিশ সদস্যকে ট্রাফিক ব্যবস্থার উন্নয়নে সহায়তা করার জন্য নিয়োগ দিয়েছে। ময়মনসিংহ রেঞ্জের অতিরিক্ত ডিআইজি ড: আক্কাস উদ্দিন ভূঞা কর্মস্থলে যোগ দানের পর থেকে যানজট নিরসনের জন্য বিশেষ ভাবে সচেষ্ঠ আছেন। গত ৭জুন থেকে দুই সিফটে ৪জন করে নারী ট্রাফিক পুলিশ তাদের দায়িত্ব পালন শুরু করেছে। যে সমস্ত গুরুত্বপুর্ন পয়েন্টে তারা বর্তমানে দায়িত্ব পালন করছে সে গুলি হলো ময়মনসিংহ বিভাগীয় পুলিশের রেঞ্জ ডিআইজির কার্যালয়, জেলা পুলিশ সুপারের কার্যালয়, ময়মনসিংহ বিভাগীয় রেঞ্জের অফিসারের বাসভবনের সামনে, মুমিনুন্নিসা সরকারী মহিলা কলেজের সামনে। এছাড়াও বিভাগীয় শহর ময়মনসিংহের গুরুত্বপুর্ন মোড় গুলোতে পুরুষ পুলিশ সদস্যদের পাশাপাশি নারী পুলিশ সদস্যরা অত্যান্ত দক্ষতার সহিত নিষ্ঠা ও সাহসিকতার সাথে দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন বলে জানায় জেলা ট্রাফিক ইন্সপেক্টর সৈয়দ মাহবুবুর রহমান। যানজট এর কারন সমন্ধে জানতে চাইলে সৈয়দ মাহবুবুর রহমান বলেন, শহরে অতিরিক্ত অবৈধ অটোরিক্সার জন্য যানজট নিরসন করা দু:সাধ্য হয়ে পরেছে। এ ব্যাপারে শীঘ্রই সর্বাত্বক ব্যবস্থা গ্রহন করা উচিত বলে তিনি মনে করেন। পুলিশ বিভাগকে এব্যাপারে সংশ্লিষ্ট সবাইকে সহযোগিতা করা প্রয়োজন। ভবিষ্যতে আরো নারী পুলিশ সদস্য ট্রাফিক পুলিশে যুক্ত করা হবে বলে তিনি জানান।

ব্রেকিং নিউজঃ