| |

ময়মনসিংহে জনম হত্যার প্রতিবাদে মানববন্ধন হত্যার ঘটনায় আটক ১

আপডেটঃ 8:15 pm | August 14, 2016

Ad

স্টাফ রিপোর্টার:
ময়মনসিংহে কলেজ শিার্থী সামিউল আলম জনম হত্যার প্রতিবাদে মানববন্ধন করেছে তার সহপাঠী ও এলাকাবাসী। শনিবার (১৩ আগস্ট) বিকেলে শহরের চরপাড়া লাশকাটা ঘরের সামনে শিার্থী জনম হত্যাকারীদের গ্রেপ্তার ও বিচারের দাবিতে এই মানববন্ধন করেন। তবে শিার্থী জনম হত্যার ঘটনায় একজনকে আটক করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। এদিকে শনিবার (১৩ আগস্ট) জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) সৈয়দ নুরুল ইসলাম বলেন, কলেজ ছাত্র হত্যার ঘটনায় অনিক নামে একজনকে আটক করা হয়েছে। অন্য আসামিদের খুব শিগগির আটক করা হবে। এ হত্যাকাণ্ডের ন্যায়বিচারের জন্য সব ধরনের চেষ্টা করবে পুলিশ। এর আগে সন্ধায় এসপি শিার্থী জনমের বাসায় যান এবং তার পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে কথা বলেন ও সান্ত্বনা দেন। এ সময় এসপির সঙ্গে কোতোয়ালি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামরুল ইসলাম ও ৩নং ফাঁড়ির উপ-পরিদর্শক মোঃ হাবিবুর রহমান উপস্থিত ছিলেন। জনমের মামা হাবিবুর রহমান জানান, জনম এবার বীর মুক্তিযোদ্ধা মতিউর রহমান একাডেমি অ্যান্ড কলেজ থেকে এবার এসএসসি পাস করেছে। সে ‘টাঙ্গাইলে মেডিকেল ম্যাটস’ নামে একটি প্রতিষ্ঠানে ভর্তি পরীা দিয়েছে। তবে এঘটনার বর্ণনা দিয়ে পুলিশ সুপার আরো বলেন, শুক্রবার রাতে সোয়া ৮টার সময় জনম নিজ বাড়ির কাছেই রাস্তায় বসা ছিল। এ সময় মোটরসাইকেলের আলো তার শরীরে পড়ায় সে প্রতিবাদ করে। এতেই ুব্ধ হন রাকিব, তার জমজ ভাই আকিব, তাদের মা-বোন ও বোনজামাই। একপর্যায়ে আকিবের বোনজামাই ধারালো অস্ত্র দিয়ে জনমের মাথায় কোপ দেন এবং রাকিব ও আকিব পেছন থেকে ধারালো অস্ত্র ঢুকিয়ে দেন শরীরে। গুরুতর অবস্থায় জনমকে প্রথমে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অবস্থার অবনতি হলে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখান থেকে বব্যাধি হাসপাতালে নেওয়ার পথেই মারা যায় জনম। এসপি আরো জানান, ঘটনার পর থেকেই রাকিব-আকিবের পরিবার পলাতক রয়েছে। পুলিশ তাদের বাড়িটি সিলগালা করে দিয়েছে। কোতোয়ালী মডেল থানার ওসি কামরুল ইসলাম জানান, এ ঘটনায় নিহতের বাবা মুদি দোকানি লিটন বাদী হয়ে একটি মামলা করেছেন।

ব্রেকিং নিউজঃ