| |

পানি-বিপর্যয় রোধে বিশ্ব নেতাদের প্রতি আহ্বান প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার

আপডেটঃ 12:41 am | November 29, 2016

Ad

বিশেষ প্রতিনিধি : জলবায়ু পরিবর্তনে সবচেয়ে হুমকির মুখে থাকা দেশগুলোর জন্য পানি একটি বড় চ্যালেঞ্জ। পানি সম্পর্কিত কোনো বিপর্যয় রোধ করা আজকের সময়ের জন্য জরুরি প্রয়োজন। আর সে কারণে জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবেলার উদ্যোগগুলোতে পানির বিষয়টি গুরুত্ব দিতে বিশ্ব নেতাদের প্রতি আহ্বান জানান বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
রোববার হাঙ্গেরির রাজধানী বুদাপেস্টে বিশ্ব পানি শীর্ষ সম্মেলনের উদ্বোধনী অধিবেশনে শেখ হাসিনা এ আহ্বান জানান।
বুদাপেস্টের মিলিয়েনারিজ পার্কে এই শীর্ষ সম্মেলনে এক ডজনেরও বেশি রাষ্ট্র কিংবা সরকার প্রধান অংশ নিয়েছেন। যোগ দিয়েছেন বিশ্বের পানি বিশেষজ্ঞ ও বিশ্লেষকরা।
নিরাপদ পানি সরবরাহে সহস্রাব্দ উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এমডিজি) বাংলাদেশ এরই মধ্যে অর্জন করেছে, স্যানিটেশন খাতেও ব্যাপক অগ্রগতি নিশ্চিত হয়েছে বলে উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বিশ্ব ফোরামকে জানান, দেশের ৬৫ শতাংশ জনগোষ্ঠী উন্নত স্যানিটেশন সুবিধার আওতায় রয়েছে। ২০২১ সালের মধ্যে দেশের সবার জন্য নিরাপদ খাবার পানি নিশ্চিত করা আর ৯০ শতাংশ মানুষকে উন্নত স্যানিটেশনের আওতায় আনার সরকারি অঙ্গীকারের কথাও তুলে ধরেন তিনি।
জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে সবচেয়ে হুমকির মুখে থাকা দেশ হিসেবে সরকার এরই মধ্যে তা মোকাবেলায় ধারাবাহিক উদ্যোগ নিয়েছে, যার মধ্য পূর্ব-সতর্কতা ব্যবস্থা, সাইক্লোন সেন্টার, উপকূলীয় এলাকাজুড়ে সবুজ বেষ্টনী তৈরি বিশ্বের নজর কেড়েছে, বলেন শেখ হাসিনা।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, বর্ষায় পানির ঢল, আর শুকনো মৌসুমে পানির অভাব, এক বিশেষায়িত চ্যালেঞ্জ বাংলাদেশ মোকাবেলা করে আসছে। আর অপর নাজুক দিকটি হচ্ছে, দেশের উপরিতলের ৯২ শতাংশ পানিই আসে সীমান্তের ওপার থেকে। আর সে কারণে, আন্তঃসীমান্ত পানি বণ্টন একটি জটিল সঙ্কট হয়ে রয়েছে। গত দুই দশক আগে বাংলাদেশ সাফল্যের সঙ্গে গঙ্গার পানি বণ্টন চুক্তি করতে সক্ষম হয়েছে। আর বাংলাদেশ-ভুটান-ভারত ও নেপালের মধ্যে উপ-আঞ্চলিক পানি-সহযোগিতার বিষয়টিও সঠিকভাবেই এগোচ্ছে।

ব্রেকিং নিউজঃ