| |

তাইজুল বোল্ড করলেন সেঞ্চুরিয়ান বিজয়কে

আপডেটঃ 4:00 pm | February 09, 2017

Ad

স্টাফ রিপোর্টারঃ শক্তিশালী ব্যাটিং লাইন আপের বিপক্ষে শুরুতে ব্যাট প্রথম ওভারেই উইকেটের দেখা পেল বাংলাদেশ। ফাস্ট বোলার তাসকিন আহমেদ ভারতীয় ওপেনার কেএল রাহুলকে ফেরান।

দিনের চতুর্থ বলেই অফ স্ট্যাম্পের বাইরে ফুল লেন্থের বলে ড্রাইভ করতে গিয়ে ব্যাটের কানায় লেগে কেএল রাহুলের স্ট্যাম্পে আঘাত হানে তাসকিন।

প্রথম ওভারে উইকেট পতনের পর তিন নম্বরে নামা চেতেশ্বর পুজারাকে নিয়ে বুঝে শুনে খেলতে থাকেন আরেক ওপেনার মুরলি বিজয়।

তাসকিন-রাব্বির নতুন বলের স্পেলে ধাঁর কমার পরেই বাউন্ডারি হাঁকিয়ে দলের স্কোর বোর্ড সচল রাখেন দুই ভারতীয় ব্যাটসম্যান।

তবে সুযোগ সৃষ্টি করলেও নিজেদের ভুলের খেসারত দিতে হয়েছিল বাংলাদেশকে, যখন মেহেদী হাসান মিরাজ একই প্রান্তে দুই ব্যাটসম্যানকে পেয়েও রান আউট করতে ব্যর্থ হন।

স্লিপে ক্যাচ ধরতে ব্যর্থ হয়েছিলেন সাকিবও। ২৭ ওভার ও লাঞ্চ ব্রেকে শেষ পর্যন্ত এক উইকেট হারিয়ে ৮৬ রান তুলে নেয় ভারত। বিজয় ৪৫ ও পূজারা ৩৯ রানে অপরাজিত থেকে লাঞ্চের পর ব্যাট করতে নেমে নিজেদের স্বাভাবিক খেলা খেলে যান।

ইনিংসের ৩১তম ওভারে এসে সাকিবকে কাভারে চার মেরে অর্ধশত পূর্ণ করেন বিজয়। একই সাথে শত রানের জুটিও পূর্ণ করেন বিজয়-পূজারা। ইনিংসের ৩৪তম ওভারে এসে পূজারাও ফিফটি পূর্ণ করেন।

তাইজুল ও সাকিব কিছু সময় ধরে রানের চাকা থামিয়ে রাখলেও চাপ মুক্ত হওয়ার জন্য বড় শট খেলে যান বিজয় ও পূজারা। ইনিংসের ৪৫তম ওভারে দ্বিতীয় উইকেটে ১৫০ রানের জুটি পূর্ণ করেন এই দুই ডানহাতি।

ম্যাচে ফিরতে বাংলাদেশের উইকেটের দরকার ছিল। উইকেটের আশা দিনের সেরা বোলার তাসকিনকে ফিরিয়ে আনে মুশফিক। সামান্য রিভার্স সুইং কাজে লাগিয়ে উইকেটের আশায় ছিল বাংলাদেশ।

কাঙ্ক্ষিত উইকেটের দেখা পায় মিরাজের বলে। লেন্থের উপর করা আর্ম বলে পূজারা কট বিহাইন্ডের ফাঁদে ফেলেন তিনি। দলীয় ১৮০ রান ও ব্যক্তিগত ৮৩ রানের সময় সাজঘরে ফিরে পূজারা।

পূজারার বিদায়ের পর চা পান বিরতি পর্যন্ত ভারতের স্কোর দুই উইকেটে ২০৬ রানে পৌঁছে দেন ৯৮ রানে অপরাজিত থাকা বিজয় ও কোহলি।

চা পান বিরতি শেষে ক্যারিয়ারের নবম সেঞ্চুরি ও বাংলাদেশের বিপক্ষে দ্বিতীয় সেঞ্চুরি তুলে নেন মুরলি বিজয়। তবে তাইজুলের নিয়ন্ত্রন বোলিংয়ে বেশী লম্বা ইনিংস খেলতে পারেনি বিজয়।

৬৪তম ওভারে সুইপ করতে গিয়ে ব্যক্তিগত ১০৮ রানে বোল্ড হন তিনি। দলের স্কোর তখন তিন উইকেটে ২৩৪ রান।

বাংলাদেশ একাদশ- 

তামিম ইকবাল, সৌম্য সরকার, মমিনুল হক, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিম (অধিনায়ক ও উইকেট রক্ষক), সাব্বির রহমান, মেহেদি হাসান মিরাজ, তাইজুল ইসলাম, তাসকিন আহমেদ, কামরুল ইসলাম রাব্বি।

ভারত একাদশ- 

মুরলি বিজয়, লোকেশ রাহুল, চেতেশ্বর পুজারা, বিরাট কোহলি (অধিনায়ক), আজিঙ্কা রাহানে, ঋদ্ধিমান সাহা, রবিচন্দ্রন অশ্বিন, রবীন্দ্র জাদেজা, ভুবনেশ্বর কুমার, উমেশ যাদব, ইশান্ত শর্মা।

ব্রেকিং নিউজঃ