| |

প্রেসিডেন্ট আনসার পদক’ পেলেন নেত্রকোনা জেলা কমান্ড্যান্ট

আপডেটঃ 10:11 pm | February 15, 2017

Ad

শাহজাদা আকন্দ, নেত্রকোনা ॥ প্রেসিডেন্ট আনসার মেডেল (পিএএম) পদক পেলেন নেত্রকোনা জেলার জেলা কমান্ড্যান্ট ও ২৫ আনসার ব্যাটালিয়ন নেত্রকোনার অধিনায়ক মুহাম্মদ মেহেদী হাসান। সেবা, সাহসিকতা ও বীরত্বপূর্ণ কাজের জন্য এ বছর ১১৯ জন আনসার সদস্যকে বাংলাদেশ আনসার পদক (বিএএম) এবং রাষ্ট্রপতি আনসার পদক (পিএএম) প্রদান করা হয়েছে। পদক প্রাপ্তদের তালিকায় রয়েছেন নেত্রকোনা জেলার জেলা কমান্ড্যান্ট ও ২৫ ব্যাটলিনয় নেত্রকোনার অধিনায়ক উপ-পরিচালক মুহাম্মদ মেহেদী হাসান। ১২ ফেব্রুয়ারী/২০১৭ খ্রি: জাতীয় আনসার সমাবেশ/২০১৭ উপলক্ষ্যে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী তাকে এ পদক পড়িয়ে দেন। মুহাম্মদ মেহেদী হাসান, জেলা কমান্ড্যান্ট, নেত্রকোনা, সংযুক্ত আনসার স্ট্রাইকিংফোর্স, ভাটারা, ঢাকা। তিনি ২৫ তম বিসিএস-এর একজন সদস্য হিসেবে ২১/০৮/২০০৬ খ্রি: তারিখ সহকারী জেলা কমান্ড্যান্ট পদে অত্র বাহিনীতে যোগদান করেন। চাকরি জীবনে তিনি প্রথাগত দায়িত্বের পাশাপামি ব্যক্তিগত উদ্যোগে বাহিনীর উন্নয়নের ভূমিকা রেখেছেন। তিনি অপারেশন উত্তরনের আওতায় পার্বত্য চট্টগ্রামের ০৩টি ও সমতলে ০২টি ব্যাটালিয়নসহ মোট ০৫টি ব্যাটালিয়ন এবং ০২টি জেলা কমান্ড করেন। এ ছাড়াও উপ-পরিচালক/অস্ত্র চালনা প্রশিক্ষণ হিসেবে তিনি অত্যন্ত আন্তরিকতা ও নিষ্ঠার সাথে আনসার ও ভিডিপি একাডেমীতে প্রশিক্ষণ কার্যক্রম পরিচালনা করেন। তিনি ২০০৮ সাল হতে ০৩ বছর এসএসএফ প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়-এ প্রেষণে দায়িত্ব পালন করেন। মহামান্য রাষ্ট্রপতি, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীসহ রাষ্ট্রীয় অতিগুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিবর্গের দেহরক্ষী হিসেবে নিরাপত্তার দায়িত্ব পালন ছাড়াও বৈদেশিক ভ্রমনে অগ্রগামী দলের সদস্য হিসেবে সুনামের সাথে দায়িত্ব পালন করেন এবং তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অধিভুক্ত মাস্টার্স ইন হিউম্যান সিকিউরিটি (গঐঝ) কোর্স প্রবর্তনের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন এবং ১ম ও ৩য় ব্যাচ (গঐঝ) ও ৩০তম এবং ৩৩তম বিসিএস মৌলিক প্রশিক্ষণ কোর্সে যথাক্রমে সফল কোর্স অ্যাডজুটান্ট ও কোর্ন কোন-অর্ডিনেটর হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। তিনি আনসার বাহিনীর ইতিহাসে সর্ব প্রথম ধীরে চলা অর্থাৎ স্লো মার্চ করে কুচকাওয়াজ প্রদর্শনে নেতৃত্ব দান করেন। তিনি দেশে-বিদেশে নিরাপত্তা বিষয়ের উপর ডিগনিটারি প্রটেকশন কোর্স (উচঈ) ভেরি ভেরি ইমপোর্ট্যান্ট পার্সন প্রটেকশন কোর্স (ঠঠওচচ) বেসিক ইন্টেলিজেন্স কোর্স (ইওঈ) সফলতার সাথে সম্পন্ন করেন এবং প্রতিভার স্বাক্ষর রাখেন। তিনি গোপালগঞ্জ জেলায় জেলা কমান্ড্যান্ট হিসেবে দায়িত্ব পালন কালে বাহিনীর বেদখলকৃত জমি পুনরুদ্ধার করতঃ তারকাটা বেষ্টনী স্থাপন করে সরকারী ভূমি রক্ষায় সাহসী ভূমিকা রাখেন। তিনি আনসার বাহিনীর নবগঠিত আনসার স্ট্রাইকিংফোর্স (এএসএফ) এর প্রশিক্ষণ ও গঠনে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন এবং এই দলের অপারেশনাল কমান্ডার হিসেবে বর্তমানে তিনি কুটনৈতিক পাড়াসহ রাষ্ট্রের বিশেষ বিশেষ প্রয়োজনে সরকারী আদেশ অপারেশন কার্যক্রম পরিচালনা করছেন। প্রেসিডেন্ট আনসার মেডেল (পিএএম) পদক পেলেন মুন্সিগঞ্জের কৃতি সন্তান ডিপ্লোম্যাটিক এলাকার নিরাপত্তার দায়িত্বে নিয়োজিত আনসার স্ট্রাইকিং ফোর্স (এএসএফ) এর ডেপুটি কমান্ডার (অপারেশনস্) মুহাম্মদ মেহেদী হাসান। সেবা, সাহসিকতা ও বীরত্বপূর্ণ কাজের জন্য এ বছর ১০০ জন আনসার সদস্যকে বাংলাদেশ আনসার পদক (বিএএম) এবং রাষ্ট্রপতি আনসার পদক (পিএএম) প্রদান করা হয়েছে। পদক প্রাপ্তদের তালিকায় রয়েছেন মুন্সিগঞ্জের কৃতিসন্তান মুহাম্মদ মেহেদী হাসান। ১২ ফেব্রুয়ারী/২০১৭ খ্রি: জাতীয় আনসার সমাবেশ উপলক্ষে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী তাকে এ পদক পড়িয়ে দেন। মুন্সিগঞ্জ জেলার সদর উপজেলার চরকেওয়ার ইউনিয়নের সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারের ছেলে মেহেদী হাসান ২৫তম বিসিএস পরীক্ষার মাধ্যমে আনসার বাহিনীতে যোগদান করেন।চাকুরীকালীন তিনি দেশে বিদেশে নিরাপত্তা বিষয়ের উপর উচ্চতর প্রশিক্ষণ গ্রহণ করেন। বর্তমানে তিনি কুটনৈতিক এলাকায় বিদেশী মিশন ও কুটনৈতিক ব্যক্তিবর্গের নিরাপত্তায় নিয়োজিত আনরার স্ট্রাইকিং ফোর্স এর উপ-অধিনায়ক (অপারেশনস্) হিসেবে কর্মরত আছেন। ব্যক্তিগত জীবনে অত্যন্ত বিনয়ী এই কর্মকর্তা বিবাহিত এবং এক পুত্র ও এক কন্যা সন্তানের জনক। পেশাগত জীবন সম্পর্কে প্রশ্ন করতে তিনি বলেন, আমি এ মাটির সন্তান। পেশাগত জীবনে উৎকর্ষ সাধনের পাশাপাশি দেশ-মাটি-মানুষের জন্য আত্ম-উৎসর্গ করতে চাই।

ব্রেকিং নিউজঃ