| |

কাটার মাস্টারকে নিয়ে সুখবর

আপডেটঃ 8:46 pm | February 16, 2017

Ad

স্টাফ রিপর্টারঃ ইংল্যান্ড, নিউজিল্যান্ড এবং ভারতে ইনজুরির জন্য খেলতে পারেননি কাটার মাস্টার।  ফলে আগের মতো মোস্তাফিজের বলেও নেই আগুণের ফুলকি।  কারণ হিসেবে ফিটনেস আর দীর্ঘদিনের ক্রিকেট-বিচ্ছেদকে কাঠগড়ায় তুলছেন ক্রিকেটবোদ্ধারা।  ‘আসলে মোস্তাফিজের ছন্দে ফেরাটা সময়ের ব্যাপার।  ও দীর্ঘদিন পর মাঠে ফিরেছে।  এসে আগের মতো পারফর্ম করা আসলেই কঠিন।  তবে ক্রমান্বয়ে ও স্বরূপে ফিরবে। ’

মোস্তাফিজের চেষ্টারও কমতি নেই।  নিজেকে ফিরে পেতে প্রাণপণ লড়াই করে যাচ্ছেন তিনি।  ‘আমি প্রাণপণ চেষ্টা করছি।  নেটে নিয়মিত অনুশীলন করছি।  প্রতিদিনই টানা ছয়-সাত ওভার করে বোলিং করছি।  এখন আর ব্যথা অনুভব হচ্ছে না।  শ্রীলঙ্কা সফর নিয়ে আমি আশাবাদী।  এ সময়ের মধ্যে নিজেকে শতভাগ ফিট করতে চাই। ’

শেষ পর্যন্ত নিজের ফিটনেস যাচাই করতে মোস্তাফিজকে দিতে হয়েছে একটি পরীক্ষাও।  ঘরোয়া টুর্নামেন্ট বিসিএলে প্রাইম ব্যাংক দক্ষিণাঞ্চলের হয়ে দুই ম্যাচের চার ইনিংসে বোলিং করেছেন মোট ৪৮ ওভার।  দিয়েছেন ১০২ রান।  নিয়েছেন ৪টি উইকেট।

বিসিএলে মোস্তাফিজকে খেলানোর মূল উদ্দেশ্য ছিল, দীর্ঘ সময়ের বোলিংটা পরখ করা।  যেটা উতরে গেছেন মোস্তাফিজ।  সেদিক থেকে ‘কাটার মাস্টার’কে পাস নম্বর দিচ্ছেন প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন।  প্রধান নির্বাচক বলেন, ‘মোস্তাফিজের ফিটনেস আগের চেয়ে অনেক ভালো।  আমার বিশ্বাস, ও টেস্টের জন্য সম্পূর্ণ ফিট।  ওর নিজেও এখন কোনো সমস্যা অনুভব করছে না।  ও চাইলেই লঙ্কান সফরে খেলতে পারবে। ’

এদিকে চলতি বছরের এপ্রিলে মাঠে গড়াবে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) দশম আসর।  বেশ কয়েকজন খেলোয়াড় কাটছাঁট করলেও মোস্তাফিজকে বাদ দেয়নি  হায়দরাবাদ।  আসর থেকে তিনি পকেটে পুরবেন ১ কোটি ৬৮ লাখ টাকা।  তবে অঙ্কটা এর চেয়ে বেশিও হতে পারে।  কেননা মোস্তাফিজকে হায়দরাবাদ রেখে দেয়ায় নিলামে নাম ওঠেনি তাঁর।  তবে ফ্রাঞ্চাইজির সঙ্গে সমঝোতার ভিত্তিতে এবারের চুক্তিটা টুকে নেবেন এই টাইগার পেসার।

অবশ্য বিসিবি আগেই বলে দিয়েছে, মোস্তাফিজকে নিয়ে কোনো প্রকার ঝুঁকি নিতে চায় না বাংলাদেশ।  মোস্তাফিজ শতভাগ সুস্থ না থাকলে তাকে আইপিএলের ছাড়পত্র দেয়া হবে না।  ‘মোস্তাফিজ যদি শারীরিকভাবে সম্পূর্ণ সুস্থ না হয়।  তাহলে ওকে নিয়ে বাংলাদেশ কোনো প্রকার ঝুঁকি নেবে না।  ওর ফিটনেস শতভাগ থাকলে সেটা বিবেচনা করে দেখা হবে।  আইপিএলে খেলা খেলোয়াড়ের জন্য গুরুত্বপূর্ণ।  টাকার ব্যাপারটাও আছে। ’

সবকিছুর মূলে মোস্তাফিজের সুস্থতা।  বর্তমানে তাঁর অবস্থা আগের চেয়ে বেশ ভালো।  একনাগাড়ে বোলিংও করার সক্ষমতা অর্জন করেছেন তিনি।  উইকেটও নিচ্ছেন।  এককথায় ‘সম্পূর্ণ ফিট’।  তাহলে শ্রীলঙ্কা সফরে মোস্তাফিজকে পাচ্ছে বাংলাদেশ দল? আর ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগে খেলার ছাড়পত্রও হাতে ওঠছে তাঁর।  দুই সুখবর ক্রিকেটপাড়ায় চাউর হলেও আনুষ্ঠানিক ঘোষণার জন্য ভক্তদের অপেক্ষা করতে হবে আরও কিছু দিন।

দীর্ঘ নয় মাসের ইনজুরির ছোবল বাদ দিলে গেল বছরের বাকি সময়টা ছিল মোস্তাফিজময়।  পুরো বছরে অসংখ্য মুকুট উঠেছে মোস্তাফিজের শোকসে।  দুহাত ভরে কুড়িয়েছেন ভক্ত, শুভাকাঙ্ক্ষী এবং ক্রিকেটবোদ্ধাদের প্রশংসা।  এককথায় বছরজুড়েই ছিল মোস্তাফিজের কল্পকথা।

প্রসঙ্গত, বাংলাদেশ ক্রিকেটের এক উজ্জ্বল নক্ষত্র মোস্তাফিজ।  ২০১৫ সালে ২২ গজে পথচলা শুরু মোস্তাফিজের।  একদিনের ক্রিকেটে এখন পর্যন্ত ১১টি ম্যাচে ৩০টি উইকেট শিকার করেছেন মোস্তাফিজ।  সাদা পোশাকে ২ ম্যাচ খেলে নিয়েছেন ৪টি উইকেট।  টি-টোয়েন্টিতে ১৫ ম্যাচে ২৩ উইকেট ঝুলিতে পুরেছেন মোস্তাফিজ।

ব্রেকিং নিউজঃ