| |

৩২ বছর পর ময়মনসিংহের ঐতিহ্যবাহী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এডওয়ার্ড ইনষ্ট্রিটিউট এর ৮৫ব্যাচের পুর্নমিলনী অনুষ্ঠিত

আপডেটঃ 11:19 pm | February 18, 2017

Ad

মো: নাজমুল হুদা মানিক ॥ ৩২ বছর পর একান্তে একত্রে স্মৃতির মহেন্দ্রক্ষনে ময়মনসিংহের ঐতিহ্যবাহী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এডওয়ার্ড ইনষ্ট্রিটিউট এর ১৯৮৫ ব্যাচের পুর্নমিলনী অনুষ্ঠিত হয়েছে। ময়মনসিংহ সদরের মধ্য বাড়েরা বাইপাস রোড আওয়াল নুর কনভেনশন রুমে ১৭ ফেব্রয়ারী দিনব্যাপী পুর্নমিলনী অনুষ্ঠানটি পরিনত হয় মানুষ গড়ার কারিগর শিক্ষকদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে। শিক্ষক ও ছাত্র সকলেই স্মৃতিচারন করেন পাঠদান ও শিক্ষা জীবনের। বিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্র অনুষ্ঠানের সমন্বয়কারী পুলিশ সুপার মোস্তফা কামাল বাপ্পী, অধ্যাপক আনিসুর রহমান, ধর্মমন্ত্রীর এপিএস মো: শফিকুল ইসলাম, মো: শামসুদ্দোহা সবুজ, উষা বরন সরকার সহ আয়োজকরা প্রথমেই তাদের প্রিয় সাবেক শিক্ষকদের মঞ্চে নিয়ে উত্তরীয় পড়িয়ে ক্রেষ্ট ও উপহার প্রদান করেন। সমাজের বিভিন্ন স্থানে প্রতিষ্ঠিত বিজ্ঞ অভিজ্ঞ কর্মকর্তারা ৩২ বছর পুর্বের ছাত্র সুলভ মনোভাব নিয়ে শিক্ষদের পা ছুয়ে ছালাম করে শিক্ষকদের দোয়া নেন। শিক্ষকরাও বাবা বাবা বলে সন্তানদের মত প্রাক্তন ছাত্রদের মাথায় হাত বুলিয়ে দিয়ে কান্নায় বুক ভাসান ও প্রান খোলে দোয়া করেন। দোয়া করে শিক্ষকরা বলেন, সমাজে প্রতিষ্ঠিত হলেও তোমরা আমাদের কাছে আজও সন্তানের মতই আছ। বাকী জীবনটা সুখে শান্তিতে কাটাও আর দেশের সেবা করো। এডওয়ার্ড ইনস্টিটিউট এর সাবেক শিক্ষক মো: মমতাজ উদ্দিন আকন্দ, বাবু অনিল কুমার সাহা, বাবু দিবাকর ঘোষ, মো: মোখলেছুর রহমান, মো: বজলুল করিম, মো: আজহারুল ইসলাম অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন। সাবেক ছাত্র অধ্যাপক আনিসুর রহমান বলেন, মহান আল্লাহতালার রহমতে পিতা মাতা দুনিয়া দেখিয়েছেন আর শিক্ষকগন জ্ঞানের আলো দেখিয়েছেন। ধর্মমন্ত্রীর এপিএস বিদ্যালয়ের সাবেক ছাত্র মো: শফিকুল ইসলাম বলেন, পিতামাতার পর যাদের স্থান সেই শিক্ষকদের সম্মাননা প্রদান করতে পেরে আমরা খুবই আনন্দিত। এটি আমাদের জন্য বড় পাওয়া। তিনি বলেন, দেশ বিদেশের বন্ধুদের একত্রিত করতে পেরেছি, এটি ভবিষ্যতেও অভ্যাহত রাখতে চাই। তিনি বলেন, এক কালের বন্ধুরা কাজের প্রয়োজনে একেক জন একেক জায়গায় প্রতিষ্ঠিত। তারপরও সবার সাথে সবার যেন পরিচয় থাকে সে পদক্ষেপ অভ্যাহত রাখতে হবে। প্রানের টান ঠিক রাখতে হবে। সকলের মনে রাখতে হবে, পিতা মাতা জন্ম দিয়েছেন আর শিক্ষক মানুষ করেছেন। তাদের প্রতি আজীবন শ্রদ্ধা রাখতে হবে। অতীতের স্মৃতি ধরে রাখতে প্রতি বছর বন্ধুরা একত্রিত হতে চাই। তিনি বলেন, এক কালের ঐতিহ্যবাহী প্রতিষ্ঠিত স্কুল আজ তার ঐতিহ্য হরাতে বসেছে। বিদ্যালয়ের অতীত ঐতিহ্য ফিরিয়ে আনতে বর্তমানে উন্নয়নের কোন পরিকল্পনা নেই। তিনি বলেন, বর্তমান প্রধান শিক্ষককে প্রকল্প দেয়ার কথা বলেছি, প্রধান শিক্ষক প্রকল্প দিতে পারেনি। তিনি বলেন, বিদ্যালয়ের সাবেক ছাত্র হিসাবে বিদ্যালয়ের সার্বিক উন্নয়নে এ ব্যাপারে দায়িত্ব রয়েছে। তিনি বিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষক মমতাজ উদ্দিন স্যারের প্রকাশিত বইটি সকলকে সংগ্রহ করার জন্য আহবান জানান। লন্ডন প্রবাসী মেহেদী হাসান বলেন, বিদ্যালয়ের সাবেক ছাত্রদের একত্রিত করে আজকের দিনটিকে যারা চিরস্মরনীয় করে রাখলেন তাদের প্রতি রইল সশ্্রদ্ধ ছালাম ও শুভেচ্ছা। আশাকরি আগামীদিনেও প্রাক্তন ছাত্রদের মিলন মেলা অভ্যাহত থাকবে। পুর্নমিলনীতে এডওয়ার্ড ইনস্টিটিউট এর সাবেক ছাত্র মো: মোশাররফ হোসেন মিন্টু, মো: রেজাউল করিম কচি, মো: শামসুদ্দোহা সবুজ, লন্ডন প্রবাসী মো: মেহেদী হাসান, মো: মেহেদী হাসান, এলজিইডির কর্মকর্তা শেখ মো: শরীফ, মো: মাঝহারুল ইসলাম জুয়েল, মো: এমদাদ হোসেন, মো: উসমান গনি হারুন, মো: দেলোয়ার হোসেন দেলু, মো: হাবিবুর রহমান মিলন, মোস্তফা মাহমুদ হাসান লিটন, মো: নুরুল আলম, পলাশ, উজ্জল, হিরন, সাইদ, সন্টু, মো: জহিরুল ইসলাম সহ ৮৫ ব্যাচের প্রায় সকলেই উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র কোরআন তেলাওয়াত করেন বিদ্যালয়ের সাবেক ছাত্র মো: নাইম ও গীতা পাঠ করেন মানিক। দিনব্যাপী কর্মসুচীতে কোরআন তেলাওয়াত, গীতা পাঠ, নিবন্ধন, ফুলের শুভেচ্ছা, পরিচিতি, সৌহার্দ বিনিময়, প্রয়াত শিক্ষক ও ছাত্রছাত্রীদের প্রতি শ্রদ্ধাজ্ঞাপন, দোয়া ও মিলাদ মাহফিল, নামাজ, দুপুরের খাবার, কুইচ, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, বাউলগান, র‌্যাফল ড্র, রাতে ডিনার, পুরস্কার বিতরন অনুষ্ঠিত হয়।

ব্রেকিং নিউজঃ