| |

ঈশ্বরগঞ্জে মুক্তিযোদ্ধা সড়ক দখল করে সমাধিসৌধ নির্মাণের অভিযোগ

আপডেটঃ 8:13 pm | February 20, 2017

Ad

 

ঈশ্বরগঞ্জ (ময়মনসিংহ) সংবাদদাতাঃ ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জের মুক্তিযোদ্ধাদের গণকবরের সড়ক দখল করে সমাধির প্রাচীর করার অভিযোগ উঠেছে। মুক্তিযোদ্ধাদের নামে উৎসর্গ করা সড়ক দখল হয়ে যাওয়ায় স্থানীয়রা ক্ষোভ জানিয়েছেন। এ বিষয়ে সড়ক দখল মুক্ত করার দাবি জানিয়ে লিখিত আবেদনও করা হয়েছে পৌর কার্যালয়ে।
ঈশ্বরগঞ্জ পৌর এলাকার তারুন্দিয়া-ঈশ্বরগঞ্জ সড়কের দত্তপাড়া এলাকায় মুক্তিযোদ্ধাদের একটি নির্ধারিত কবরস্থান রয়েছে। সেখানে সম্মুখ যুদ্ধে নিহত কয়েকজ মুক্তিযোদ্ধা ও পরবর্তীতে মারা যাওয়া মুক্তিযোদ্ধাদের সমাহিত করা হয়েছে। কবর স্থানটিতে যাওয়ার জন্য কোনো রাস্তা না থাকায় স্থানীয় ওয়ায়েদুর রহমান নাকের এক ব্যক্তি মুকিযোদ্ধাদের কবর স্থানে যাওয়ার জন্য জমি দেন। সড়ক তৈরির জন্য তিনি ৮ ফুট জমি দিলে তারুন্দিয়া-ঈশ্বরগঞ্জ সড়ক থেকে কবর স্থান পর্যন্ত রাস্তাটি করা হয়। নির্মিত রাস্তাটির নাম দেওয়া হয় মুক্তিযোদ্ধা সড়ক। এই সড়কের প্রবেশ মুখে সমাহিত করা হয় কবি আবদুল হাই মাশরেকীকে। কবরকে ঘিরে সমাধি সৌধ নির্মাণ করতে গিয়ে সড়কের প্রায় ৩ ফুট জায়গা দখল করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। বিষয়টি স্থানীয় পৌর সভার কাউন্সিলদের সমন্বয়ে একাধীক সালিশের আয়োজন করা হয় বিষয়টি সমাধানের জন্য। সালিশে থাকা ঈশ্বরগঞ্জ পৌর কাউন্সিলর আবদুল হোসেন বলেন, মুক্তিযোদ্ধাদের কবরস্থানের জন্য মানুষ জায়গা দিলেও রাস্তা করলেও কবির ছেলেরা সমাধি সৌধ করতে গিয়ে রাস্তাটি দখল করে ফেলেছে। এরে সড়কের প্রবেশ মুখ ছোট হয়ে গেছে। বিষয়টি সমাধানের জন্য একাধীক বার সালিশ ও মাপযোপের আয়োজন করেন তারা। কিন্তু এতে কবির ছেলেরা কেউ আসেনি। ওই অবস্থায় গ্রামের লোকজন নিয়ে মাপযোগ করে তারা দেখতে পান কবির কবরের পাশের প্রাচীরটি সড়কের মধ্যে পড়েছে।’ স্থানীয় বাসিন্দা ও কবি আবদুল হাই মাশরেকীর ভাতিজা শফিকুল ইসলাম মিন্টু বলেন, মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য এলাকাবাসীর কাছ থেকে জমি নিয়ে রাস্তাটি নির্মাণ করলেও কবিকে বিতর্কিত করার জন্য তাঁর ছেলেরা সড়ক দখল করে কবরের প্রাচীল তুলে দিয়েছে। এখানে সরকারি অনুদান ব্যবহার করে সমাধি সৌধ নির্মাণ করে কবিকে বিতর্কিত করা ছেলেদের উচিৎ হয়নি বলে মন্তব্য করেন তিনি।
ঈশ্বরগঞ্জ পৌরসভার প্যানেল মেয়র খলিলুর রহমান বাচ্চু বলেন, এলাকাবাসীর উপস্থিতিতে বিতর্কিত জমিটি মাপযোপ করে চি‎ি‎হ্নত করা হয়েছে। এতে কবি আবদুল হাই মাশরেকীর সমাধি সৌধের কিছু অংশ পড়ে। ওই অবস্থায় জমি দেওয়া ব্যক্তিকে বিতর্কিত সমাধির প্রাচীর অপসারণের জন্য লিখিত অভিযোগ দিতে বলা হয়েছে।
কবি আবদুল হাই মাশরেকীর ছেলে নঈম মাশরেকী বলেন, সরকারী অনুদান দিয়ে তাঁর বাবার সমাধি সৌধটি নির্মিত হচ্ছে। এটির কাজ দীর্ঘ দিন ধরে চললেও কেউ কেনো আপত্তি তোলেনি। কিন্তু হঠাৎ তাঁদের বিরুদ্ধে ষরযন্ত্র করে সমাধিটি সড়কের জমিতে করা হচ্ছে বলে অভিযোগ তোলে। তিনি বলেন, তাঁর বাবার সমাধি সড়কের জমিতে করা হচ্ছে না। অভিযোগ অমূলক।
ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমাণ্ডার ও পৌর সভার মেয়র মো. আবদুস ছাত্তার বলেন, মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য কবরস্থানটিতে যাওয়ার রাস্তাটি দখল করে সমাধির প্রাচীর করা হয়েছে। পৌর আইন অনুযায়ী রাস্তা রেখে করার কথা থাকলেও তা করা হয়নি। তিনি অভিযোগ করেন, সরকারী অনুদান এনে কবির ছেলেরা এখানে বিতর্কিত পরিস্থিতির সৃষ্টি করেছে। তিনি আরো বলেন, সড়কের জমি দখল মুক্ত করে দিতে কবির ছেলেদের বলা হয়েছে।

ব্রেকিং নিউজঃ