| |

সরিষাবাড়ীতে শিক্ষক বদলি বানিজ্য

আপডেটঃ 12:24 am | March 05, 2017

Ad

সোহেল রানা জামালপুরের সরিষাবাড়ী উপজেলা প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক বদলি নামে বানিজ্যের অভিযোগ  পাওয়া গেছে। সূত্রে জানা যায়,সরিষাবাড়ী উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসারের কার্যলয় থেকে ২০১৬ইং সালে প্রধান শিক্ষক সহকারী শিক্ষক মোট ৪১ জন বদলি করা হয়।এবং ২০১৭ইং সালে  সহকারী শিক্ষক ১০ জন আরো তালিকা আছে অনেকে। এসব শিক্ষকদের নিকট থেকে মোটা অক্কের অর্থ আদায় করে বদলী নিয়োগ বানিজ্যের রমরমা কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে। ভক্ত ভুগিরা উপজেলা শিক্ষা কর্মকতার স্পেসাল বাহিনীর হাতে লাঞ্চিত হওয়ার ভয়ে কেউ মুখ খুলছে না। প্রধান শিক্ষকেরা হলেন দবির উদ্দিন আহমেদ  কর্মরত কাচিহারা সপ্রাবি থেকে বদলীকৃত  গংগাপাড়া সপ্রাবি। পামেলী চৌধুরী কর্মরত গংগাপাড়া সপ্রাবি থেকে বদলীকৃত কাচিহারা সপ্রাবি। মোহাম্মদ আলী কর্মরত কুলকান্দি পূর্ব সপ্রাবি থেকে উত্তর সরিষাবাড়ী সপ্রাবি। ওয়াজেদা পারভীন কর্মরত স্থল সপ্রাবি থেকে বলারদিয়ার সপ্রাবি। হাসিনা মমতাজ কর্মরত ফতেপুর সপ্রাবি থেকে বদলীকৃত শাহবাজপুর সপ্রাবি। সহকারী শিক্ষকেরা হলেন, ডলিরানী মোদক কর্মরত ১০ নং শিশুয়া সপ্রাবি থেকে বদলীকৃত ৫৯ নং বিনজাইল সপ্রাবি। চামেলী কর্মরত ৮১ নং মেইয়া সপ্রাবি থেকে ৩৯ নং উল্যাকুমারপাড়া সপ্রাবি। রুমা খাতুন কর্মরত ৫৩ নং নলসোন্দা সপ্রাবি থেকে বদলীকৃত চর জামিরা সপ্রাবি। শাম্মী আক্তার কর্মরত ৭৬ নং সেঙ্গুয়া সপ্রাবি থেকে ৫৮ নং শুয়াকুরী সপ্রাবি। মাকসুদা সলতানা কর্মরত ৩৯ নং উল্যাকুমারপাড়া সপ্রাবি থেকে বদলীকৃত ৩৮ নং স্থল সপ্রাবি। শামীমা নারসিন  কর্মরত ৫২ নং বাশুরিয়া সপ্রাবি থেকে বদলীকৃত ৩৯ নং উল্যাকুমারপাড়া সপ্রাবি। কানিজ ফাতেমা কর্মরত  ১২নং পলিশা সপ্রাবি থেকে বদলীকৃত ১৪ নং তারাকান্দি সপ্রাবি। রোকেয়া খাতুন কর্মরত গোবিন্দপটল সপ্রাবি থেকে বদলীকৃত হোসনাবাদ সপ্রাবি। মোস্তফা আল মামুন কর্মরত ১৮নং মালিপাড়া সপ্রাবি থেকে বদলীকৃত গোবিন্দপটল সপ্রাবি। রেজাউল করিম কর্মরত ১৫ নং পূর্ব বয়ড়া সপ্রাবি থেকে বদলীকৃত ৪৯ নং দড়ি মেইয়া সপ্রাবি। সুলতানা রাজিয়া কর্মরত ৩৬নং আদাচাকী সপ্রাবি থেকে বদলীকৃত ১৫নং পূর্ব বয়ড়া সপ্রাবি। মোহাম্মদ ফিরোজ আলম কর্মরত ৫৯নং বিনজাইল সপ্রাবি থেকে বদলীকৃত উত্তর বলারদিয়ার সপ্রাবি। শিরিন শিলা কর্মরত ৩০নং মানজালিয়া সপ্রাবি থেকে বদলীকৃত পশ্চিম বয়ড়া সপ্রাবি। সন্জিতা ঘোষ কর্মরত ৯নং চর জামিরা সপ্রাবি থেকে বদলীকৃত গোপীনাথপুর সপ্রাবি। মুনমুন নাহার কর্মরত ৭৬নং সেঙ্গুয়া সপ্রাবি থেকে বদলীকৃত সরিষাবাড়ী বালিকা সপ্রাবি। সুফিয়া খাতুন কর্মরত সরিষাবাড়ী বালিকা সপ্রাবি থেকে বদলীকৃত ৭৬নং সেঙ্গুয়া পূর্ব সপ্রাবি। রুমানা খানম কর্মরত ৭৬নং সেঙ্গুয়া পূর্ব সপ্রাবি থেকে বদলীকৃত ৫৬নং কোনাবাড়ী সপ্রাবি। ওয়াসিম উদ্দিন কর্মরত ৫৬নং কোনাবাড়ী সপ্রাবি থেকে বদলীকৃত ৭৬নং সেঙ্গুয়া সপ্রাবি। জাকিয়া সুলতানা কর্মরত চর জামিরা থেকে বদলীকৃত আদ্রা  সপ্রাবি প্রমুখ। তালিকাকৃত চর জামিরা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা সাবিনা খাতুন বলেন,আমি ২০১৬ইং সালে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকতা ফেরদৌস স্যারকে ২৫ হাজার টাকা দিয়েছি। কিন্তু আমাকে এখনো কোন বদলী করেন নাই। উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষক কমিটির সভাপতি ইসমাইল হোসেন বলেন, সরিষাবাড়ী প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা ফেরদৌস এর ব্যাপারে অনেক রিপোটই পাই। তিনি শুধু নিয়োগ বা বদলী বানিজ্য নয় প্রয়োজনে ভুয়া কাগজ পত্র তৈরীর ক্ষেত্রেও স্বাক্ষর জালের তথ্য আছে অনেক। এব্যাপারে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মোহাম্মদ ফেরদৌসকে কোন প্রশ্ন করলে কোন কিছু না বলার অনিচ্ছুক প্রকাশ করে।

 

 

ব্রেকিং নিউজঃ