| |

ফুলবাড়ীয়ায় তিনকোটি টাকা মূল্যের সরকারী সম্পত্তি বেদখল

আপডেটঃ 8:42 pm | March 08, 2017

Ad

ফুলবাড়ীয়া প্রতিনিধি ॥ ফুলবাড়ীয়া পৌর সদরের হাসপতাল রোড অন্তর সিনেমা হল সংলগ্ন প্রায় তিন কোটি টাকা মূল্যে ৩৩ শতাংশ জমি দখল করতে কৃষি বিভাগের প্ল্যান্ট প্রটেকশন স্টোর কাম ওয়ার্কশপের একতলা ভবনটি প্রকাশ্যে ভেঙ্গে মালামাল নিয়ে যায় স্থানীয় প্রভাবশালী বানু ঋষি গংরা।  মঙ্গলবার ভোর থেকে ১৩ শতাংশ জমির উপর নির্মিত একতলা ভবনটি ভাংঙ্গা শুরু করে বানু ঋষি ও জয় মহন ঋষিসহ কমপক্ষে অর্ধশতাধিক লোকজন। দুপুরে উপজেলা কৃষি অফিসার ড. নাসরিন আক্তার বানু পুলিশ নিয়ে বাঁধা দেয়। কয়েক ঘন্টা ভাঙ্গার কাজ বন্ধ রেখে আবরও শুরু করে। বুধবার সকালে দেখাযায় বানু ঋষির পুত্র সুমন ঋষির নেতৃত্বে অর্ধশতাধিক লোকজন ভবন ভাংচুর করে ইট,রড নিয়ে নিয়ে যাচ্ছে। স্থানীয়রা বলেন, ৩৩ শতাংশ জমি বর্তমান বাজার মূল্যে তিন কোটি টাকার উপরে। জমি দখল করতে কৃষি অফিসের সরকারী একতলা ভবনটি ভেঙ্গে কয়েক লক্ষ টাকার মালামাল লোটপাট করে নিয়েগেছে। গতকাল দুপুরে কৃষি অধিদপ্তর ময়মনসিংহের উপপরিচালক আলতাবুর রহমানের নেতৃত্বে তিন সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল ঘটনাস্থল পরিদর্শণ করেছেন। এসময় সাংবাদিকদের বলেন, কৃষি অফিসের ৩৩ শতাংশ সরকারী জমি দখল নিতে অবৈধ ভাবে সরকারী স্থাপনা (একতলা ভবন) ভেঙ্গে ইট, রড লোটপাট করে নিয়ে গেছে। জড়িতদের বিরুদ্ধে ফৌজধারী মামলা করার জন্য উপজেলা কৃষি কর্মকর্তাকে নির্দেশ প্রদান করা হয়েছে। কৃষি অফিস সূত্রে জানাগেছে, ফুলবাড়ীয়া মৌজার ২৫১৮ নং দাগে কৃষি বিভাগের জন্য মন মোহন ঋষির কাছ থেকে ১৫/৭৩-৭৪ নং এল এ কেইস মূল্যে ৩৩ শতাংশ জমি উপযুক্ত ক্ষতিপুরন দানে ১৯৭৪ সালে ৪ নভেম্বর ডেপুটি কমিশনার ময়মনসিংহ ফুলবাড়ীয়া উপজেলা কৃষি বিভাগের প্ল্যান্ট প্রটেকশন স্টোর কাম ওয়ার্কশপ নির্মাণের জন্য একুয়ার করেন। (ঢাকা গেজেটে ১৪ জুন ১৯৭৯ প্রকাশিত)। বানু ঋষি বলেন, কৃষি অফিসের দখলকৃত জমি আদালত আমাদেরকে রায় দিয়েছে। আদালতের রায়ের প্রেক্ষিতেই ভবনটি ভাঙ্গা হয়েছে। আদালত জমির রায় দিয়েছেন, কিন্তু আপনাকে সরকারী স্থাপনা (ভবন) ভাঙ্গার নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল কিনা জানতে চাইলে, তিনি কোন উত্তর দেননি। উপজেলা কৃষি অফিসার ড. নাসরিন আক্তার বানু বলেন, কৃষি বিভাগের সরকারী জমি নিয়ে আদলতে মামলা করে একতরফা রায় নিয়ে আসার পর আমরা ছানি মামলা করি আদালতে। আদলতে মামলা চলমান থাকা অবস্থায় অবৈধ ভাবে সরকারী জমি দখল করতে বানু ঋষি গংরা সরকারী ১৩ শতাংশ জমির উপর একতলা ভবন ভাংচুর করে মালামাল লোটপাট করে নিয়ে যায়। সরকারী স্থাপনা ভেঙ্গে লোটপাটের ঘটনায় বানু ঋষি,জয় মহন ঋষিসহ অজ্ঞাত ৪০/৫০ জনকে আসামী করে থানায় মামলা করার প্রস্তুতি চলছে। 

ব্রেকিং নিউজঃ