| |

ময়মনসিংহে এই প্রথম ইলিজারভ পদ্ধতিতে অর্থোপেডিক চিকিৎসা

আপডেটঃ 2:15 am | March 11, 2017

Ad

স্টাফ রিপোর্টার আঘাত জনিত কারনে বা বিকলাঙ্গ রোগে রোগীর হাতপা না কেটে বিকল্প ইলিজারভ চিকিৎসা পদ্ধিতে সমস্য সমাধান করা যায়। মানুষের মেরু দন্ড হাতপা ভাঙ্গাসহ অন্যান্য অপারেশন এখন ঝুকিপূর্ণ নয়, এসব জটিল রোগের অপারেশন করতে এখন আর বিদেশ যেতে হবে না, খুবই কম খরচে এখন দেশেই জটিল রোগের অপারেশন করা হচ্ছে। ছাড়াও অর্থপেডিক রোগের উন্নত মানের চিকিৎসা বিদেশের চেয়ে কম খরচেই বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকা ছাড়াও সরকারী বেসরকারী হাসপাতালে দেশের চিকিৎসকরা ইলিজারভ চিকিৎসা পদ্ধতিতে মানুষের মেরু দন্ড হাতপা ভাঙ্গাসহ অন্যান্য জটিল রোগের অপারেশন করে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন। দেশের অষ্টম বিভাগীয় শহর ময়মনসিংহের চরপাড়ায় বেসরকারী শাহীন ডায়াগনস্টিক এন্ড হাসপাতালে কামরুজ্জামান ইলিজারভ অর্থোপেডিক সেন্টারে আজ বৃহস্পতিবার অর্থপেডিকের উপর এক বিশেষজ্ঞ সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন কালে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের কনসালটেন্ট অর্থপেডিক স্পাইন সার্জন ডাঃ এম কামরুজ্জামান মানিক এসব কথা বলেন। ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের অর্থপেডিক বিভাগের প্রাক্তন বিভাগীয় প্রধান প্রফেসর ডা: হুমায়ুন কবীর মুকুলের সভাপতিত্বে অর্থপেডিকের উপর সেমিনারে বক্তব্য রাখেন অর্থপেডিকের ডা: মুর্শেদুল ইসলাম ডাঃ আব্দুল আজিজ প্রমুখ। বক্তারা বলেন তথ্য প্রযুক্তিযুগের সাথে সাথে কর্ম ব্যস্ত জীবনে মানুষের প্রয়োজনে এক স্থান থেকে অন্য স্থানে সড়ক পথে যানবাহনে যাতায়াতের ফলে সড়ক দূর্ঘটনার কারনে অর্থপেডিক ট্রমা রোগীর সংখ্যা দিনদিন বৃদ্ধি পেয়েছে। ক্রমবর্ধমান রোগীর চাহিদায় এবং উন্নত চিকিৎসা পদ্ধিতও উন্নতর দিকে এগিয়ে যাচ্ছে, তাই প্রযুক্তির এই যুগে সড়ক দূর্ঘটনা আঘাত জনিত কারনে বা বিকলাঙ্গ রোগে রোগীর হাতপা না কেটে বিকল্প ইলিজারভ চিকিৎসা পদ্ধিতে তা সমস্য সমাধান করা যায়। আমাদের পাশের দেশ ভারতে এসব রোগের চিকিৎসা করতে থেকে লাখ টাকা,বাংলাদেশে বেসরকারী হাসপাতালে ৫০হাজার থেকে লক্ষ টাকা  আর সরকারী হাসপাতালে ১০ থেকে ২০ হাজার টাকা খরচ হয়। দেশের অষ্টম বিভাগের ময়মনসিংহ শহরের শাহীন ডায়াগনস্টিক এন্ড হাসপাতালে কামরুজ্জামান ইলিজারভ অর্থোপেডিক সেন্টারে বেসরকারী ভাবেই এই প্রথম ইলিজারভ পদ্ধিতে অর্থোপেডিকের চিকিৎসা করা হচ্ছে। অর্থপেডিকের উপর বিশেষজ্ঞ সেমিনারে চিকিৎসা গ্রহনকারী রোগী, ডাক্তার সাংবাদিকরা অংশ গ্রহন করেন। সেমিনার শেষে কয়েকজন  রোগী দেখে ব্যবস্থা পত্র দেন।

 

ব্রেকিং নিউজঃ